মিন্নি কারাগারে

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০২ মার্চ ২০২১,   ফাল্গুন ১৮ ১৪২৭,   ১৭ রজব ১৪৪২

মিন্নি কারাগারে

বরগুনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:২৯ ১৯ জুলাই ২০১৯   আপডেট: ১৯:৪৪ ১৯ জুলাই ২০১৯

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বরগুনার আলোচিত রিফাত হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী ও রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

পাঁচদিনের মধ্যে দুদিনের রিমান্ড শেষে শুক্রবার বিকেলে তাকে বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়। পরে তার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি শেষে কারাগারে পাঠান বিচারক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম গাজী।

একটি মোবাইলের জন্য রিফাতকে মারার চক্রান্ত করেন মিন্নি-নয়ন!

রিফাত হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদর থানার ওসি (তদন্ত) মো. হুমায়ুন করিব বলেন, মিন্নি রিফাত হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। জবানবন্দি গ্রহণ শেষে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

টিকটক হৃদয়ে ফেঁসে গেলেন মিন্নি

এর আগে মঙ্গলবার সকালে বরগুনার মাইঠা এলাকার বাবার বাসা থেকে বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোরসহ মিন্নিকে জিজ্ঞাসাবাদ ও তার বক্তব্য রেকর্ড করতে বরগুনা পুলিশ লাইনসে নেয় পুলিশ। এরপর দীর্ঘ ১০ ঘণ্টার জিজ্ঞাসাবাদ ও বিভিন্ন মাধ্যম থেকে পাওয়া তথ্য-উপাত্ত পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে বিশ্লেষণ ও পুলিশের কৌশলী এবং বুদ্ধিদীপ্ত প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে আটকে যান মিন্নি। বেরিয়ে আসে হত্যাকাণ্ডে তার সম্পৃক্ততার প্রমাণ। এরপরই তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

মিন্নিকে আইনি সহায়তা না দেয়ার দায় নেয়নি কেউ

এরপর বুধবার বিকেল ৩টার দিকে বরগুনার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মিন্নিকে হাজির করে সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। পরে শুনানি শেষে মিন্নির পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম গাজী।

২৬ জুন সকালে  বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাতকে কুপিয়ে হত্যা করে নয়ন বন্ড, রিফাত ফরাজী, রিশান ফরাজীসহ তার সহযোগীরা। এ ঘটনায় রিফাত শরীফের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর