Alexa মিনি রঞ্জি ট্রফিতে শক্ত অবস্থানে বিসিবি একাদশ

ঢাকা, সোমবার   ২২ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ৭ ১৪২৬,   ১৮ জ্বিলকদ ১৪৪০

মিনি রঞ্জি ট্রফিতে শক্ত অবস্থানে বিসিবি একাদশ

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০১:৪৭ ১৩ জুলাই ২০১৯  

ভারতে আয়োজিত মিনি রঞ্জি ট্রফির প্রথম ম্যাচে বেশ ভালো অবস্থানে আছে বাংলাদেশের বিসিবি একাদশ। মুমিনুল হক, নাজমুল হোসেন শান্তর সেঞ্চুরি ও জহুরুল হক, আরিফুল হকের হাফসেঞ্চুরিতে প্রথম ইনিংসে ৫০০ রানের বড় সংগ্রহ গড়েছে তারা।

বিসিবি একাদশের এই সংগ্রহের জবাব দিতে নেমে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩৫৩ রানেই অল আউট হয়ে যায় ভিদরবা ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন। ফলে ১৪৭ রানের বড় লিড পায় বিসিবি একাদশ।

১১৪ রানে ১ উইকেট হারিয়ে দ্বিতীয় দিন শেষ করা ভিদরবা শুক্রবার শুরুতেই উইকেট হারিয়ে ধাক্কা খায়। তাসকিন আহমেদের দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন আগের দিন ফিফটি করা অক্ষয় কোলহার।

প্রথম সেশনের বিসিবি একাদশের সাফল্য ওই এক উইকেটই। কেননা এই সময়ে নিজেদের মধ্যে ১১৬ রানের জুটি গড়ে ফেলেন ভিদরবার দুই ব্যাটসম্যান অথর্ব দেশপান্ডে ও অথর্ব তাইডে।

তবে দ্বিতীয় সেশনের শুরুতেই বিসিবি একাদশের হয়ে আঘাত হানেন তাইজুল ইসলাম। এক ওভারে দুই উইকেট তুলে নিয়ে ভিদরবাকে বিপদে ফেলে দেন তিনি। ২৩৪ রানের মধ্যেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসে ভারতের দলটি।

এরপর থেকেই চলতে থাকে শুধু তাইজুলের ঘূর্ণি জাদু। একে একে আরো ভিদরবার আরো পাঁচটি উইকেট নিয়ে নেন বাঁহাতি এই স্পিনার। ফলে উইকেটে স্থায়ী হতে পারেননি দলের আর কোনো ব্যাটসম্যান। ৩৫৩ রানেই অলআউট হয়ে যায় ভিদরবা ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৯১ রান করেন অথর্ব দেশপান্ডে এবং ৬২ রান আসে অক্ষয় কোলহার ব্যাট থেকে।

আর বিসিবি একাদশের হয়ে একাই ৮টি উইকেট নিয়েছেন তাইজুল ইসলাম এবং একটি করে উইকেট নেন তাসকিন আহমেদ ও আরিফুল হক।

দ্বিতীয় ইনিংসে ১৪৭ রানের বড় লিড পেয়েও অবশ্য শুরুটা খুব একটা ভালো করতে পারেনি বিসিবি একাদশ। দিনের শেষ ভাগে টিকে থাকতে গিয়ে উইকেট বিলিয়ে আসেন আগের ইনিংসে সেঞ্চুরিবঞ্চিত হওয়া জহুরুল হক। দলীয় ৪১ এবং ব্যক্তিগত ২৫ রান করে বোল্ড আউট হন তিনি।

শেষ পর্যন্ত ৪২ রানে ১ উইকেট হারিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শেষ করেছে বিসিবি একাদশ। সাইফ হাসান ১৫ রান ও অধিনায়ক মুমিনুল হক ১ রান নিয়ে ক্রিজে অপরাজিত আছেন। ১৮৯ রানে এগিয়ে থেকে চতুর্থ ও শেষ দিনে মাঠে নামবেন তারা।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএ