Alexa মা অগ্নিদগ্ধ, দুধের জন্য কাঁদছে ৩৩ দিনের সন্তান

ঢাকা, শুক্রবার   ২২ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ৭ ১৪২৬,   ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

মা অগ্নিদগ্ধ, দুধের জন্য কাঁদছে ৩৩ দিনের সন্তান

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:৩৬ ৪ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৮:৫৯ ৪ নভেম্বর ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে নিজের শরীরে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করা গৃহবধূ আদুরী বেগমকে (২১) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেক) স্থানান্তর করা হয়েছে। 

ওই নারীর ৩৩ দিন বয়সী সৌরভ মায়ের বুকের দুধ না পেয়ে বারবার কাঁদছে। তবে শিশুটিকে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী বায়োমিল্ক খাওয়ানো হচ্ছে। শি সৌরভের শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে বলে পরিবারের লোকজন নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, দাম্পত্য কলহে এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন আদুরী বেগম। তার বাড়ি কুড়িগ্রাম সদর উপজেলায়। তিনি বামনডাঙ্গা ইউপির মিজানুর রহমান মিজানের (২৮) দ্বিতীয় স্ত্রী। 

এলাকাবাসী জানায়, অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় স্বজনরা দ্রুত আদুরীকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে রোববার দুপুরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হয়। 

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, প্রথম স্ত্রী ও দুই ছেলে সন্তানের কথা গোপন রেখে বছর খানেক আগে ভালোবেসে আদুরীকে বিয়ে করেন মিজান। এরই মধ্যে আদুরীর এক ছেলে সন্তান হয়। তার বয়স ৩৩ দিন। বিয়ের পর থেকে বাবার বাড়িতে ছিলেন আদুরী। সেখানে মিজান যাতায়াত করত।

এদিকে বিয়ের পর থেকেই শ্বশুরবাড়ি যেতে স্বামীকে চাপ দেন আদুরী। কিন্তু নানা টালবাহানা করে বিষয়টি এড়িয়ে যেতেন মিজান।

পরে শনিবার বিকেলে স্বামীর বাড়িতে আসেন আদুরী। বাড়িতে আসার পর থেকে স্বামীর সঙ্গে শুরু হয় বাগবিতণ্ডা। প্রতিবেশীরা উভয়কে শান্ত করেন। তবে রাতেই নিজের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন আদুরী। 

আরো পড়ুন>>> ৩৩ দিনের সন্তান রেখে গায়ে আগুন দিলেন মা

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের বিভাগীয় প্রধান ডা. এম এ হামিদ পলাশ জানান, ওই নারীর শরীরে অগ্নিদগ্ধ হওয়ায় মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে। তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় ঢাকায় পাঠানো হয় বলে জানান।

আদুরীর সতীন খুশি বেগম বাড়িতে ঢুকতে না দেয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, আমরা তাকে বাড়িতে ঢুকতে দেই। পরে সে চাচার বাড়িতে অবস্থান নেয়। ঘটনার পরের দিন শালিসে মীমাংসা করার কথা ছিলো, কিন্তু তিনি ওইদিন এ ঘটনা ঘটায়।

সুন্দরগঞ্জ থানার ওসি এস এম আবদুস সোবহান বলেন, এ ঘটনায় এখনো কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে