Alexa মার্কিন সেনাঘাঁটিতে ইরানের হামলায় মানসিক ভারসাম্যহীন ৩৪ সেনা

ঢাকা, বুধবার   ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ৬ ১৪২৬,   ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১

Akash

মার্কিন সেনাঘাঁটিতে ইরানের হামলায় মানসিক ভারসাম্যহীন ৩৪ সেনা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:১৩ ২৫ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৩:৩২ ২৫ জানুয়ারি ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ইরাকে অবস্থিত মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র  হামলার ঘটনায় ৩৪ সেনা মস্তিষ্কের আঘাতজনিত সমস্যায় ভুগছে বলে জানিয়েছে পেন্টাগন। যদিও এর আগে ওই হামলায় মাত্র আটসেনা আহত হওয়ার কথা জানিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

শনিবার বিবিসিতে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

দেশটির এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, ১৭ সেনা এখনো চিকিৎসাধীন আছেন। চিকিৎসকরা তাদের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন।

এদিকে ৩৪ সেনার আহত হওয়ার খবরে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নিয়ে নতুন করে সমালোচনা শুরু হয়েছে। ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পরপর ট্রাম্প বলেন, ওই হামলায় মার্কিনিদের তেমন উল্লেখযোগ্য কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। মাত্র আটজন সেনা কিছুটা আহত হয়েছেন। 

সে সময় ট্রাম্প আরো বলেন, ইরানের হামলায় ক্ষয়ক্ষতি কম হয়েছে বলেই তাদের আর পাল্টা হামলা করা হয়নি। যদি ক্ষয়ক্ষতি বেশি হতো তাহলে দাঁত ভাঙা জবাব দেয়া হতো। 

কিন্তু এখন নতুন করে পেন্টাগন জানাচ্ছে যে, ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ৩৪ সেনা আহত। এ তথ্যে ট্রাম্পের পূর্বের বক্তব্য ঘিরে সমালোচনা উঠছে।  

এদিকে পেন্টাগন জানায়, সোলাইমানি হত্যার জেরে ইরানের ওই ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় বেশ কয়েক মার্কিন সেনা আহত হলেও একজনও নিহত হননি। ক্ষেপণাস্ত্র হামলার সময় বেশিরভাগ সেনাই বাঙ্কারে অবস্থান নিয়েছিল। 

শুক্রবার মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগের মুখপাত্র জোনাথন হফম্যান জানান, আহত সেনাদের মধ্যে আটজনকে যুক্তরাষ্ট্র ও নয়জনকে জার্মানিতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া বাকি ১৭ জনের মধ্যে ১৬ জনকে ইরাকে ও একজনকে কুয়েতে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তারা আবারো নিজেদের কাজে যোগ দিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের দাবি অনুযায়ী, আহত সেনার সংখ্যা ১১ থেকে এক লাফে তিনগুণেরও বেশি হওয়ার পর পর্যবেক্ষকরা এখন ঐ হামলায় হতাহতের সংখ্যা সম্পর্কে ইরানের ঘোষণাকে বিশ্বাস করতে শুরু করেছেন।

ইরান ৮ জানুয়ারি ভোরে ঐ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর পর বলেছিল। তাদের হামলায় ৮০ মার্কিন সেনা নিহত ও ২০০ জন আহত হয়েছেন। আহত সেনাদেরকে চিকিৎসা দিতে সি ১৩০ বিমানে করে আইন আল-আসাদ ঘাঁটি থেকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়েছে বলেও ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি’র একজন কর্মকর্তা জানিয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ৩ জানুয়ারি শুক্রবার ভোর রাতে বাগদাদ বিমানবন্দরের কাছে ইরানের কুদস ফোর্সের কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলাইমানিসহ ইরান ও ইরাকের ১০ সেনা কমান্ডারকে হত্যা করে যুক্তরাষ্ট্র। এর প্রতিশোধ হিসেবে ৮ জানুয়ারি আইন আল-আসাদ ঘাঁটিতে এক ডজনেরও বেশি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে ইরান।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ/এসএমএফ