মামলাজট নিরসনই বড় চ্যালেঞ্জ: আইনমন্ত্রী

ঢাকা, বুধবার   ১৯ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৫ ১৪২৬,   ১৪ শাওয়াল ১৪৪০

মামলাজট নিরসনই বড় চ্যালেঞ্জ: আইনমন্ত্রী

আহমেদ ছিদ্দিকী

 প্রকাশিত: ১৪:০২ ২০ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৭:০১ ৩১ জানুয়ারি ২০১৯

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

আইনমন্ত্রী হিসেবে টানা দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব নিয়ে রেকর্ড গড়েছেন অ্যাডভোকেট আনিসুল হক। গত মেয়াদে সফলতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করায় প্রধানমন্ত্রীর পুরস্কার হিসেবে আবারো একই মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেয়েছেন তিনি। চলতি মেয়াদের মধ্যে মামলাজট নিরসন করাই তার মূল লক্ষ্য। এছাড়া একটি ন্যাশনাল জুডিশিয়াল একাডেমি তৈরি ও ন্যাশনাল লিগ্যাল এইড সার্ভিসেসকে আরো শক্তিশালী করতে চান তিনি।

ডেইলি বাংলাদেশকে দেয়া সাক্ষাৎকারে আইনমন্ত্রী তার এসব লক্ষ্যের কথা জানান। আইনমন্ত্রী বলেন, দেশের আদালতে যেসব মামলাজট রয়েছে, সর্বপ্রথম আমার চেষ্টা থাকবে এই জট কমানো। দেশে এখন ৩৪ লাখ মামলাজট রয়েছে জানিয়ে আইনমন্ত্রী বলেন, সর্বাধিক গুরুত্ব সহকারে প্রকৃত মামলার সংখ্যা নির্ণয় করবো। এরপর তড়িৎ পদক্ষেপ নিয়ে এই মামলাজট কমিয়ে ফেলা হবে এবং আগামী ৬ মাসের মধ্যে আমি এটা করবো।

আইনমন্ত্রী বলেন, দেশে একটি ন্যাশনাল জুডিশিয়াল একাডেমি তৈরি তার দ্বিতীয় লক্ষ্য। যেখানে বিচারকরা প্রশিক্ষণ নিতে পারবেন। উন্নত দেশগুলোর সঙ্গে তাল মিলিয়ে এটি করা হবে বলে জানান মন্ত্রী। এছাড়া ন্যাশনাল লিগ্যাল এইড সার্ভিসেসকে আরো শাক্তিশালী করতে চান তিনি। যাতে বিনা খরচে জনগণ বিচার পায় তার ব্যবস্থা করা হবে।

বঙ্গবন্ধু হত্যার আসামিসহ বিদেশে পলাতক দণ্ডিত আসামিদের ফিরিয়ে আনার বিষয়ে চেষ্টা চালিয়ে যাবেন উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এ ব্যাপারে অনেক কথাই বলতে পারি না। তার কারণ হচ্ছে অনেক পদক্ষেপই আমাদের সতর্কতার সঙ্গে নিতে হয়। কারণ হচ্ছে, কী পদক্ষেপ নিচ্ছি তা যদি বলে ফেলি তবে পলাতকরা প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা নেবে। এজন্যই অনেক কথাই বলতে পারবো না। কিন্তু এইটুকু আশ্বস্ত থাকেন, এই সরকার তাদেরকে ফিরিয়ে আনার জন্য যা যা করা দরকার তার সবটুকু করবে।

গত মেয়াদে কোন কাজ না করতে পারা বা কোনো কাজে সফল না হওয়া নিয়ে আক্ষেপ আছে কি না জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, আক্ষেপ নয়, তবে সাবেক প্রধান বিচারপতি সিনহা যদি দুরভিসন্ধি, ষড়যন্ত্র না করতো, দুর্নীতি না করতো তাহলে আমার মনে হয় অনেকটা স্বস্তির সঙ্গে আমি কাজ করতে পারতাম। ওই সময়টা একটু চ্যালেঞ্জিং ছিল বলেও জানান তিনি।

জামায়াতের বিচার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আনিসুল হক বলেন, এ আইনের যেটুকু সংশোধনের প্রয়োজন রয়েছে সেটা নিশ্চয় সংশোধন করবো। বিএনপি জামায়াতের বিরুদ্ধে শুধু বাংলাদেশের আদালতে রায় হচ্ছে, তা নয়। বিদেশের আদালতেও তাদেরকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে বলা হয়েছে। রাজনৈতিক দল হিসেবে জামায়াতের অপরাধ বিচারের জন্য আইনের যে সংশোধনী প্রয়োজন সেটুকু করা হবে। এই ক্ষেত্রে সময় নির্দিষ্ট করে বলা একটু কঠিন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এস