মানবীয় মর্যাদার বিভিন্ন দিকসমূহ

ঢাকা, সোমবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ১৩ ১৪২৭,   ১০ সফর ১৪৪২

মানবীয় মর্যাদার বিভিন্ন দিকসমূহ

ধর্ম ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:২৪ ৫ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৭:৩১ ৫ আগস্ট ২০২০

পবিত্র কোরআনুল কারিমে ইরশাদ হয়েছে, ‘অবশ্যই আমি সৃষ্টি করেছি মানুষকে সুন্দরতম অবয়বে।’ (সূরা: ত্বিন, আয়াত: ৪)।

পবিত্র কোরআনুল কারিমে ইরশাদ হয়েছে, ‘অবশ্যই আমি সৃষ্টি করেছি মানুষকে সুন্দরতম অবয়বে।’ (সূরা: ত্বিন, আয়াত: ৪)।

মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তায়ালা সুনিপুণ করে সুন্দর আকৃতিতে মনোরম কাঠামোতে মানুষ সৃষ্টি করেছেন।

রাব্বুল আলামিন মানুষকে শুধু সৃষ্টিই করেননি দিয়েছেন মানবীয় মর্যাদাও।

আর এ মানবীয় মর্যাদার বিভিন্ন দিক আছে। প্রথমত, যে আকার-আকৃতি ও সামঞ্জস্যপূর্ণ শারীরিক কাঠামো মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তায়ালা মানুষকে দান করেছেন, তা অন্য কোনো সৃষ্টবস্তুকে দেয়া হয়নি। দ্বিতীয়ত, যে জ্ঞান মানুষকে দেয়া হয়েছে, যার দ্বারা তারা নিজেদের জীবন গতিশীল করার জন্য নিত্যনতুন বস্তু আবিষ্কার করেছে, অন্য কোনো সৃষ্টবস্তুকে তা দেয়া হয়নি। তৃতীয়ত, মানুষকে আসমানি ওহি দেয়া হয়েছে। এই জ্ঞান দিয়ে তারা কল্যাণ-অকল্যাণ, উপকারী-অপকারী ও ভালো-মন্দের মধ্যে পার্থক্য করতে সক্ষম। চতুর্থত, মানুষকে একধরনের বিশেষ জ্ঞান দেয়া হয়েছে, যার মাধ্যমে সে আল্লাহর অন্য সৃষ্টবস্তু থেকে উপকৃত হতে ও বশে রাখতে সক্ষম। 

রাব্বুল আলামিন আল্লাহর কিছু সৃষ্টবস্তু এমন আছে, যেগুলোর শক্তিমত্তার কথা ভেবেও মানুষ কিংকর্তব্যবিমূঢ়। অথচ মহান আল্লাহ সেগুলোও মানুষের কল্যাণে নিয়োজিত করেছেন। যেমন—চাঁদ, সূর্য, বাতাস, পানি মানুষের বশে নেই, কিন্তু দিব্যি এগুলো মানুষের কল্যাণে নিয়োজিত।

মানুষের প্রতি আল্লাহর বিশেষ অনুগ্রহ হলো, তিনি তাকে বিশেষ দেহ-কাঠামো দান করেছেন। সুন্দর চেহারা, সুষম দেহ, উপযুক্ত প্রকৃতি ও অঙ্গসৌষ্ঠব আল্লাহর বিশেষ দান। 

পবিত্র কোরআনুল কারিমে ইরশাদ হয়েছে, ‘অবশ্যই আমি সৃষ্টি করেছি মানুষকে সুন্দরতম অবয়বে।’ (সূরা: ত্বিন, আয়াত: ৪)।

মানুষকে দুই পায়ে সম্পূর্ণ সোজা হয়ে দাঁড়ানোর ক্ষমতা দেয়া হয়েছ। হাত দিয়ে খাওয়ার শক্তি দেয়া হয়েছে। অন্য প্রাণীরা চার পায়ে হাঁটে। মুখ দিয়ে খায়। মানুষকে যে চোখ, কান ও অন্তর দেয়া হয়েছে, মানুষ এসব সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে