মাদারীপুরে কবিরাজের ওষুধে অচেতন সাত
SELECT bn_content_arch.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content_arch.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content_arch.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content_arch INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content_arch.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content_arch.ContentID WHERE bn_content_arch.Deletable=1 AND bn_content_arch.ShowContent=1 AND bn_content_arch.ContentID=65159 LIMIT 1

ঢাকা, বুধবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ৮ ১৪২৭,   ০৫ সফর ১৪৪২

মাদারীপুরে কবিরাজের ওষুধে অচেতন সাত

মাদারীপুর প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৩:১৬ ২ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৩:২১ ২ ডিসেম্বর ২০১৮

ডেইলি বাংলাদেশ

ডেইলি বাংলাদেশ

মাদারীপুরের ছনিয়া গ্রামে শুক্রবার রাতে ইউপি সদস্যের পরিবারের লোকজনকে অচেতন করে মালামাল নিয়ে গেছে এক ভণ্ড কবিরাজ। এ ঘটনায় ইউপি সদস্যসহ সাতজন অচেতন হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

উপজেলার ঘটমাঝির ছনিয়া গ্রামের ইউপি সদস্য তাজেল মোল্লার প্রতিবন্ধী মেয়ে তানহার কবিরাজি চিকিৎসার জন্য এক ফকির বাড়িতে আসে। শুক্রবার রাতে তানহার চিকিৎসার জন্য পরিবারের সবাইকে এক গ্লাস করে শরবত ও চেতনা নাশক ওষুধ খাওয়ান। এরপরই তারা অচেতন হয়ে পড়ে।

তারা হলেন- ইউপি সদস্য তাজেল মোল্লা, তার স্ত্রী রুবি বেগম, মেয়ে তানহা (৭), রুবি বেগমের ভাই ফারুক মৃধার স্ত্রী সালমা বেগম, ফারুক মৃধার ছেলে মারুফ মৃধা, ফারুক মৃধার মেয়ে তন্নী (১২), ভাইয়ের স্ত্রী রেখা বেগম।

চেতনা নাশক ওষুধ খাইয়ে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, মোবাইলসহ অন্যান্য মালামাল নিয়ে গেছে ভণ্ড ফকির। শনিবার সকালে প্রতিবেশীরা তাদের অচেতন অবস্থায় মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। তবে শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত মারুফ ও তন্নীর জ্ঞান ফিরলেও বাকিদের এখন জ্ঞান ফিরেনি।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. মাহাবুব আবির বলেন, নেশা জাতীয় ওষুধ খাওয়ানোর কারণে ইউপি সদস্যের পরিবারের লোকজন অচেতন হয়ে গেছে। এ কারণে জ্ঞান ফিরতে সময় লাগছে। হাসপাতালে রোগীদের ভালোভাবে চিকিৎসা চলছে। আশা করি দ্রুত তাদের জ্ঞান ফিরে আসবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস