Alexa মাছের ত্বক দিয়ে বানানো পোষাক পরেন যারা

ঢাকা, রোববার   ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ১০ ১৪২৬,   ২৮ জমাদিউস সানি ১৪৪১

Akash

মাছের ত্বক দিয়ে বানানো পোষাক পরেন যারা

লাইফস্টাইল ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২৩:৪৫ ২৩ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ২৩:৪৯ ২৩ জানুয়ারি ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

মাছের ত্বক দিয়ে পোশাক তৈরি করেন তারা। তবে আজকাল এ সম্প্রদায়ের লোকেরা মাছের ত্বকের পোষাক তৈরি কমিয়ে দিয়েছেন। রাশিয়ার সীমান্তবর্তী চীনের রাজ্য হেইলংজিয়াংয়ের তংজিয়াং শহরে হ্যাজেন সম্প্রদায়ের মানুষেরা মূলত এ পোষাক তৈরি করেন। 

গত শতকের ত্রিশ ও চল্লিশ দশকে জাপানিরা মাঞ্চুরিয়া দখল করলে ঐ সম্প্রদায়ের অনেককে হত্যা করা হয়। ফলে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর হ্যাজেন সম্প্রদায়ের জনসংখ্যা ছিল মাত্র ৩০০ জন। অবশ্য এখন সেটি বেড়ে হয়েছে প্রায় পাঁচ হাজার৷  

যেভাবে পোশাকটি বানানো হয়

প্রথমে মাছের ত্বক ছাড়িয়ে শুকানো হয়। এরপর তা নরম করে জামাকাপড় তৈরি করা হয়। এতে সময় লাগে প্রায় এক মাস। আর সেলাই করতে লাগে আরো ২০ দিন।

হ্যাজেন সম্প্রদায়ের তরুণরা মাছের ত্বক দিয়ে পোশাক বানাতে তেমন আগ্রহী নন। এছাড়া হ্যাজেন সংস্কৃতিতেও আর নিত্যদিনের পোশাক তৈরিতে মাছের ত্বক ব্যবহৃত হয় না।

হ্যাজেন তরুণদের আগ্রহ কম থাকায় তারা এখন চীনা নারীদের মাছের ত্বক দিয়ে পোশাক তৈরির কৌশল শেখাচ্ছেন। এভাবে অন্তত ঐতিহ্যটি টিকিয়ে রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে।  

ডিয়র, প্রাডার মতো ফ্যাশন ব্র্যান্ডগুলো মাঝেমধ্যে মাছের ত্বক দিয়ে বানানো পোশাক নিয়ে এসেছে। তবে তা এখনো বাণিজ্যিকভাবে ততটা সফলতরা মুখ দেখেনি।   

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ