Exim Bank Ltd.
ঢাকা, মঙ্গলবার ১১ ডিসেম্বর, ২০১৮, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

মহিয়সী নারী শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব

যাহিন ইবনাত
তারুণ্যের ঝলকানিতে যারা আলো ছড়াচ্ছে এরমধ্যে অন্যতম যাহিন ইবনাত। প্রতিশ্রুতিশীল একইসঙ্গে উদাস মানুষটি ভালবাসেন লিখতে। এ একটিমাত্র ভালবাসার বন্ধনেই আটকে আছেন ২০১৪ সাল থেকে। পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছেন সাংবাদিকতা। মানবজমিন পত্রিকার বিনোদন প্রতিবেদক হিসেবে এ রাস্তায় যাত্রা শুরু। এরপর গণমাধ্যমের নানা অলিগলি ঘুরে বর্তমানে ডেইলি বাংলাদেশে নিজস্ব প্রতিবেদক হিসেবে কাজ করছেন। ১৯৯০ সালে জন্ম নেয়া এ তরুণ এখন পুরোদস্তর সাংবাদিক।

তিনি ছিলেন জ্ঞানী, বুদ্ধিদীপ্ত, দায়িত্ববান ও ধৈর্যশীল। স্বপ্নদ্রষ্টা প্রিয় মানুষটির আপন সঙ্গী। মহিয়সী নারী। বঙ্গের বঙ্গমাতা। শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। এক কথায় ছিলেন অসামান্য একজন নারী।

ফজিলাতুন্নেছা মুজিব খুব ছোট বয়সে হারিয়েছিলেন বাবাকে। এদের মধ্যে মাত্র পাঁচ বছর বয়সেই মাকে হারান তিনি। এরপর দাদার কাছে বেড়ে উঠেন এই বঙ্গমাতা। ওই সময় তিনি (দাদা) ছাড়াই আর কেউই ছিলেন না ফজিলাতুন্নেছার।

মাত্র সাত বছর বয়সেই তাকে ছেড়ে যান দাদাও। এরপর চাচাতো ভাই বঙ্গবন্ধুর মায়ের কাছে (চাচি) চলে আসেন মাতা ফজিলাতুন্নেছা। পরে বঙ্গবন্ধু ও তার ভাইবোনদের সঙ্গেই বেড়ে ওঠেন তিনি।

একটা সময় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হন মাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। অসমাপ্ত আত্মজীবনীতে মুজিব এই বিষয়ে লিখেছেন, যখন আমাদের বিয়ে হয় তখন আমার বয়স বার কী তের হতে পারে! রেণুর (শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব) বাবা মারা যাবার পরে ওর দাদা আমার আব্বাকে ডেকে বললেন, তোমার বড় ছেলের সঙ্গে আমার নাতনীর বিবাহ দিতে হবে।

এরপর মুরব্বীর হুকুম মানতে রেণুর সঙ্গে আমার বিবাহ রেজিস্ট্রি করে ফেলা হয়। ওই সময় আমি শুনলাম, আমার বিবাহ হয়েছে। তখন এসবের কিছুই বুঝতাম না। হয়ত তখন রেণুর বয়স তিন বছর হবে।

এদিকে, ১৯৩৯ সালে শেখ মুজিবুর রহমান ও ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে সম্পন্ন হয়। এ সময় বঙ্গবন্ধুর বয়স ছিল ১৯ বছর আর রেণুর ৯। এরপর ওই সুখের সংসার আলো করে একে একে জন্ম নেন শেখ হাসিনা, শেখ কামাল, শেখ জামাল, শেখ রেহানা ও শেখ রাসেল।

আজীবন দুজনের সম্পর্কে ভালোবাসার যেন অফুরাণ ছিল না। অতিমধুর ছিল তাদের দাম্পত্য জীবন। এতোটাই সুখী ছিলেন যে, কখনো ‘উফ’ শব্দটিও ব্যবহার করেননি শেখ মুজিব। আজ আবারো সেদিনটা এসেছে! আজকের এই দিনেই জন্মেছিলেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। ১৯৩০ সালের ৮ আগস্ট ঠিক এই দিনে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন তিনি।

বঙ্গবন্ধুর জীবনে রেণুর বেশ প্রভাব ছিল। স্বামীর প্রতিটি সাফল্যের পেছনে বড়ই ভূমিকা রেখেছেন তিনি। মাসের পর মাস কারাবাসে বন্দি থাকা মানুষটির পরিবারের হাল ধরেছিলেন বেশ মজবুত হাতে। ছেলে-মেয়েদের পড়াশোনা, তাদের দেখভাল, শ্বশুর-শাশুড়ির সেবাযত্নসহ কোনো কাজে কখনো কমতি ছিল না তার।

শত ব্যস্ততার মাঝেও ভুলে যাননি স্বামীকে। বঙ্গবন্ধু কারাগারে কেমন আছেন? সুস্থ আছেন কিনা? কোনো কিছুতে সমস্যা হচ্ছে কিনা? সব কিছুর খোঁজ রাখতেন দিনের পর দিন। স্বামীর প্রতি ছিল তার অতুলনীয় ভালোবাসা। স্বামীর অসুখে অসুখী, সুস্থতায় সুখী থাকতেন রেণু। অফুরন্ত ভালোবাসায় আগলে রাখতে চাইতেন স্বামীর সব কষ্টকে।

একদা স্বামীকে জেলে দেখতে গিয়ে সান্ত্বনায় তিনি বলেন, জেলে থাকো আপত্তি নেই। তবে স্বাস্থ্যের দিকে খেয়াল রেখো। তোমাকে দেখে মন খুব খারাপ হয়ে গেছে। তোমার বোঝা উচিত এই দুনিয়ায় আমার আর কেউই নেই। ছোটবেলায় বাবা-মাকে হারিয়েছি, এখন তোমার কিছু হলে কাকে নিয়ে বাঁচবো? শুনে বঙ্গবন্ধুও বলছিলেন, উপরওয়ালা যা করবেন তাই হবে, চিন্তা করো না।

এদিকে বেগম মুজিব সংসারের দেখভালে ছিলেন অদ্বিতীয়। সারা জীবন সংসার, ছেলে-মেয়েদের পেছনে কষ্ট করে গেছেন। কিন্তু স্বামীকে কিছুই বলতেন না। নিজে কষ্ট সহ্য করে সবাইকে আগলে রাখতেন। তবে তার কষ্ট কেউ না বুঝলেও বুঝতেন বঙ্গবন্ধু। তিনি তার আত্মজীবনী বইটিতে লিখেছেন, সে (রেণু) তো নীরবে সকল কষ্ট সহ্য করে, কিন্তু কিছুই বলে না। আর বলতে চায় না বলে আরো বেশি ব্যথা লাগে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের পেছনেও বেগম মুজিবের ভূমিকা ছিল অপরিসীম। রাজনীতির সংকটময় মুহূর্তে, ক্রান্তি লগ্নে সবাইকে সাহস যুগিয়েছেন তিনি। সুবোধ পরামর্শও দিয়েছেন তিনি। ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে যোগদানের প্রাক্কালে তিনি বঙ্গবন্ধুকে বলেন, দেশের মানুষ তোমার মুখের দিকে তাকিয়ে আছে, তাদের নিরাশ করো না। যা বলার ভেবেচিন্তেই বলো।

এভাবে বিভিন্ন সংকটময় মুহূর্তে বঙ্গের পাশে ছিলেন বঙ্গমাতা। অসময়ে বঙ্গবন্ধুকে সাহস জুগিয়েছেন বেশ জোরেশোরে। যার ফলে নিজের জীবনের কথা লিখতে গিয়ে রেণুর প্রসঙ্গ টেনেছেন বারংবার শেখ মুজিবুর রহমান। এমনকি অসমাপ্ত আত্মজীবনী বইটি লিখতে স্বামীকে উদ্বুদ্ধ করেছিলেন রেণু। তিনি জেলগেটে মুজিবকে তার কাহিনী লেখার জন্য খাতাও দিয়ে এসেছিলেন।

কার্যত শেখ মুজিবুর রহমানের উৎকৃষ্ট জীবন ও বঙ্গবন্ধু হয়ে ওঠার পেছনে ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ভূমিকা অনস্বীকার্য। আজকের এই দিনে আবারো বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ করছি আমাদের বঙ্গমাতাকে। স্মরণ করছি দেশ গড়নে সঙ্গীর (বঙ্গবন্ধুর) পাশে থেকে ভূমিকা রাখা সঙ্গীকে (রেণু)।

রেণু বরাবরই চাইতেন দেশের মানুষকে কীভাবে খুশি রাখা যায়। যেমনটা চেয়েছেন বঙ্গবন্ধু নিজেও। দেশ ও দশের সুখ দেখতে গিয়ে জীবন দিতে হয়েছে যে পরিবারটিকে, সে ঘরের মানুষগুলোকে বিনম্র শ্রদ্ধায় আরো একবার স্মরণ করছি। এই মহীয়সী নারীর কথা ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে থাকবে আজীবন।

তবে এই জাতির একটা বড়ই দুঃখ, রেণুর জন্মদিন শুধু দলীয়ভাবে ছোট পরিসরে কিছু কর্মসূচির মধ্য দিয়ে পালিত হয় বারবার। যা হওয়ার কথা নয়। বাংলা ও বাঙালির ইতিহাসের যার অবদান পরতে পরতে জড়িয়ে আছে। তার জন্মদিন জাতীয়ভাবে পালিত হওয়া উচিত।

আজ হয়তো তিনি নেই, তবে তার পরিবারের এমন একজন আছেন, দেশ গড়নে তিনিই দায়িত্ব পালন করছেন। তিনিই তারই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যিনি বাবা-মায়ের মতো এ দেশের মানুষের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। রাজনৈতিক জীবনে বাবার মতো প্রজ্ঞাবান হলেও ব্যক্তিজীবনে বরাবরই মায়ের মতোই এই কন্যা। বেশ ধৈর্য্যশীল, বিনয়ী ও মমতাময়ী একজন মা।

আরোও পড়ুন
সর্বাধিক পঠিত
ফাইভ জি চালু হতেই মরল কয়েকশ পাখি!
ফাইভ জি চালু হতেই মরল কয়েকশ পাখি!
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেয়াই মারা গেছেন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেয়াই মারা গেছেন
ফখরুলের গাড়িবহরে হামলা
ফখরুলের গাড়িবহরে হামলা
দেশের মাটিতে মাশরাফির শেষ ম্যাচ
দেশের মাটিতে মাশরাফির শেষ ম্যাচ
‘বিশ্ব সুন্দরী’র মুকুট পড়া হলো না ঐশীর
‘বিশ্ব সুন্দরী’র মুকুট পড়া হলো না ঐশীর
৭ দিনের নিচে কোন ইন্টারনেট প্যাকেজ নয়
৭ দিনের নিচে কোন ইন্টারনেট প্যাকেজ নয়
মৃত সাফায়েত উদ্ধার, বাবা আটক; সুরায়েত জীবিত
মৃত সাফায়েত উদ্ধার, বাবা আটক; সুরায়েত জীবিত
সিলেটি যুবককে বিয়ের জন্য ক্যাথলিক মেয়ের ইসলাম ধর্ম গ্রহণ
সিলেটি যুবককে বিয়ের জন্য ক্যাথলিক মেয়ের ইসলাম ধর্ম গ্রহণ
এমিরেটসের হীরায় মোড়ানো বিমান
এমিরেটসের হীরায় মোড়ানো বিমান
পাপ যেন পিছু ছাড়ছে না নিকের!
পাপ যেন পিছু ছাড়ছে না নিকের!
সোমবার রাতের মধ্যেই ঢাকা ছাড়ছেন এরশাদ
সোমবার রাতের মধ্যেই ঢাকা ছাড়ছেন এরশাদ
‘যৌন মিলন দেখিয়ে আনন্দ পাই’
‘যৌন মিলন দেখিয়ে আনন্দ পাই’
বাংলাদেশি অভিনেত্রী হিসেবে পরীই প্রথম
বাংলাদেশি অভিনেত্রী হিসেবে পরীই প্রথম
বিশ্বের আদর্শ ফিগারের নারী কেলি ব্রুক
বিশ্বের আদর্শ ফিগারের নারী কেলি ব্রুক
বিএনপির হয়ে লড়বেন পার্থ
বিএনপির হয়ে লড়বেন পার্থ
ক্যান্সার শনাক্তে বাংলাদেশি বিজ্ঞানীর সাফল্য
ক্যান্সার শনাক্তে বাংলাদেশি বিজ্ঞানীর সাফল্য
বাবার ইচ্ছাপূরণে হেলিকপ্টারে বউ তুলে আনল ছেলে
বাবার ইচ্ছাপূরণে হেলিকপ্টারে বউ তুলে আনল ছেলে
তামিম-সৌম্য শতকে ৩৩২ তাড়া করে জয়
তামিম-সৌম্য শতকে ৩৩২ তাড়া করে জয়
তামান্নার অন্তরঙ্গ ছবি, রয়েছে শারীরিক সম্পর্ক!
তামান্নার অন্তরঙ্গ ছবি, রয়েছে শারীরিক সম্পর্ক!
“কে ডেকেছে, চলে যান, ১টায় ছেলেকে দাফন করবো”
“কে ডেকেছে, চলে যান, ১টায় ছেলেকে দাফন করবো”
শিরোনাম :
২৫৬ রানের টার্গেটে ব্যাট করছে উইন্ডিজ, দেড়শতক পার । উইন্ডিজ ১৫৭/৫, ওভার ৩৪, সাই হোপ ৭৮* ২৫৬ রানের টার্গেটে ব্যাট করছে উইন্ডিজ, দেড়শতক পার । উইন্ডিজ ১৫৭/৫, ওভার ৩৪, সাই হোপ ৭৮* জেএসসি-জেডিসির ফল প্রকাশ ২৪ ডিসেম্বর জেএসসি-জেডিসির ফল প্রকাশ ২৪ ডিসেম্বর উপজেলা চেয়ারম্যানরা পদত্যাগ না করেও নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন, হাইকোর্টের এ আদেশ স্থগিত করেছেন চেম্বার বিচারপতি উপজেলা চেয়ারম্যানরা পদত্যাগ না করেও নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন, হাইকোর্টের এ আদেশ স্থগিত করেছেন চেম্বার বিচারপতি উইন্ডিজের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২৫৫ উইন্ডিজের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২৫৫ জাপার সাবেক মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদারের আপিল বাতিল জাপার সাবেক মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদারের আপিল বাতিল আইএসপিআরের নতুন পরিচালক হলেন লেফট্যানেন্ট কর্নেল মো. আবদুল্লা ইবনে জায়েদ আইএসপিআরের নতুন পরিচালক হলেন লেফট্যানেন্ট কর্নেল মো. আবদুল্লা ইবনে জায়েদ