Alexa মহাবিপদ সংকেত উপেক্ষা করে মাছ শিকারে হাজারো জেলে

ঢাকা, শনিবার   ২৩ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ৮ ১৪২৬,   ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

মহাবিপদ সংকেত উপেক্ষা করে মাছ শিকারে হাজারো জেলে

মনপুরা (ভোলা) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৪০ ৯ নভেম্বর ২০১৯  

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি : ডেইলি বাংলাদেশ

ভোলার বিচ্ছিন্ন মনপুরা উপকূলের জেলেরা ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর মহাবিপদ সংকেত উপেক্ষা করে মেঘনায় মাছ শিকারে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। এতে যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে প্রাণহানির আশংকা রয়েছে।

এদিকে শনিবার সকাল থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান শেলিনা আকতার চৌধুরী ও ইউএনও বশির আহমেদ মেঘনা পাড়ে গিয়ে সর্তক করতে নিজেরা মাইকিং করেছেন।

এর আগে শুক্রবার রাতে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে জনপ্রতিনিধি, প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, সাংবাদিক, জেলে প্রতিনিধিসহ সামাজের বিভিন্ন পর্যায়ের প্রতিনিধির সঙ্গে কয়েক দফা মিটিং করে। এ ছাড়া উপজেলা পর্যায়ে একটি কন্ট্রোলরুম খোলা হয়। তাছাড়া উপজেলা থেকে বিচ্ছিন্ন চরে অবস্থানরত সব মানুষকে নিরাপদে সরিয়ে আনার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।

সরেজমিনে ভোর ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত মেঘনা পাড়ের বিভিন্ন ঘাটে গিয়ে দেখা যায়, মেঘনায় হাজার হাজার জেলে নৌকা মাছ শিকারে ব্যস্ত। মৎস্য ঘাটের আড়তগুলো রয়েছে খোলা।

এদিকে বিচ্ছিন্ন চরনিজাম ও কলাতলীর চরে অবস্থানরত ২০ হাজার মানুষ এখনো আশ্রয়কেন্দ্রে এসে পৌঁছাননি। সকাল থেকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিসহ ধমকা হাওয়া বইছে।

চরনিজামের ইউপি সদস্য নুরনবী মুঠোফোনে জানান, রাতে রেড ক্রিসেন্ট সদস্যরা মসজিদে মসজিদে মাইকিং করেছেন। তারপরও মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে আসছে না। একই অবস্থা বিছিন্ন কলাতলীর চরে।

এ ছাড়া শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় ইউপি চেয়ারম্যান শাহরিয়ার চৌধুরী দীপকের উদ্যোগে মনপুরা উপকূলের সদর থেকে বিচ্ছিন্ন পশ্চিম পাশে শামসুদ্দিনের চরে অবস্থানরত ১৮ পরিবারকে মূল ভূখণ্ডে নিয়ে আসার জন্য ৩টি ট্রলার পাঠানো হয়েছে।

ভোর থেকে উপকূলের বিভিন্ন বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্র ঘুরে দেখা যায়, প্রত্যেকটি আশ্রয় খোলা থাকলেও দুপুর ১টা পর্যন্ত কোনো মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে আসেনি।

ইউএনও বশির আহমেদ জানান, আশ্রয়কেন্দ্রে খিচুড়ির আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়া কলাতলীর চর ও চরনিজামে অবস্থানরত স্থানীয়দের আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য জনপ্রতিনিধিদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া নদীতে মাছ ধরা থেকে ফিরিয়ে আনার জন্য ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ