মমতাকে ‘খুনি’ বলে সম্বোধন করলন বিজেপি নেতা

ঢাকা, বুধবার   ১৯ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৫ ১৪২৬,   ১৪ শাওয়াল ১৪৪০

মমতাকে ‘খুনি’ বলে সম্বোধন করলন বিজেপি নেতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৩৩ ১১ জুন ২০১৯   আপডেট: ১৯:৩৩ ১১ জুন ২০১৯

পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন পরবর্তী অস্থিরতা যেন কমছেই না। রাজ্যটির প্রধান দুই প্রতিদ্বন্দী তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি’র নেতাকর্মীদের মধ্যে থেমে থেমে সংঘর্ষ ও প্রাণহানীর ঘটনা ঘটেই চলেছে। এরই জেরে রাজ্যের মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়কে ‘খুনি’ বলে মন্তব্য করেছেন বিরোধী দল বিজেপি’র এক নেতা।

রাজ্য বিজেপির নেতা মুকুল রায় অভিযোগ করেছেন, মমতার উস্কানিতে পরিকল্পিতভাবে সন্দেশখালিতে বিজেপি কর্মীদের হত্যা করা হয়েছে। আর এ নিয়ে মমতার বিরুদ্ধে এফআইআর করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে মুকুল রায় বলেন, ‘এটা পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। আমাদের বিজেপি কর্মীদের টার্গেট করে মারা হয়েছে। এখনো নিখোঁজ আছেন বেশ কয়েকজন কর্মী। আমরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে এফআইআর করবো।’

তিনি আরও বলেন, ‘এই মুখ্যমন্ত্রী (মমতা বন্দোপাধ্যায়) খুনি মুখ্যমন্ত্রী। সমস্ত রিপোর্ট স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে লিখিতভাবে জানাবো আমরা। এভাবে চলতে পারে না।’

প্রভাবশালী এই বিজেপি নেতার দাবি, ‘মুখ্যমন্ত্রী বলছে, সরকার ভেঙে দেয়ার কথা। তাই ওনাকে বলবো একবার এসে দেখে যান সন্দেশখালির কি পরিস্থিতি। আমরা সরকার পতনের পক্ষে নই। অবিলম্বে যেসব দুর্বৃত্ত হামলা চালিয়েছে তাদেরকে গ্রেফতার করতে হবে।’ পুলিশ কোনো সহযোগিতা করছে না বলে অভিযোগ তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগ দেয়া এই নেতার।

উত্তর চব্বিশ পরগণার সন্দেশখালির ঘটনাকে কেন্দ্র করে গোটা রাজ্য এখন উত্তপ্ত। ঘটনাকে কেন্দ্র করে মোদি-মমতার সংঘাতের লড়াই চলছে।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ বিষয়ে বলেছেন, ‘সরকার ভেঙে দেয়ার জন্য এটা বিজেপির চক্রান্ত৷’ তার এই মন্তব্যকে বিজেপি নেতা মুকুল রায় ভুল বলে দাবি করেছেন।

মঙ্গলবার দুপুরে সন্দেশখালি ভাঙি পাড়া গ্রামে নিহত ও আহত বিজেপি কর্মীদের বাড়িতে গিয়ে নিহতদেরে পরিবারের পাশে থাকা ও সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছে তিনি।

এদিকে চব্বিশ পরগনার ভাটপাড়ায় বিজেপি কর্মীদের বোমা হামলায় তৃণমূলের দুই সদস্য নিহত হয়েছেন। সোমবারে এ হামলার ঘটনা বলে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। তবে এ হামলার সঙ্গে সম্পর্ক থাকার কথা অস্বীকার করেছে স্থানীয় বিজেপি।

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী