১০ ঝুঁকির মুখোমুখি হচ্ছে মানবজাতি!

ঢাকা, বুধবার   ২৭ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪২৭,   ০৩ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

১০ ঝুঁকির মুখোমুখি হচ্ছে মানবজাতি!

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০০:১০ ২৬ এপ্রিল ২০২০   আপডেট: ০০:৩২ ২৬ এপ্রিল ২০২০

সংগৃহীত ছবি

সংগৃহীত ছবি

চলতি বছরের চারটি মাস পার হচ্ছে। এ সময়ের মধ্যে প্রকৃতির অস্তিত্ব রক্ষার ও ভয়ানক কয়েকটি ঘটনা প্রত্যক্ষ করেছে গোটা বিশ্বের মানুষ। জটিল শুষ্কতা, আমাজন-অস্ট্রিলিয়ার বনে ভয়ানক আগুন, ভয়ংকর ধোঁয়া, শহরের তলদেশে পানিশূন্যতার ঘটনা উল্লেখযোগ্য। এসবের জন্য জলবায়ু পরিবর্তনকে দায়ী করা হচ্ছে। যার পেছনে রয়েছে মানুষ। উল্লেখ করা ঘটনাগুলো বিচ্ছিন্ন হুমকি। এগুলোর সঙ্গে আন্তঃসম্পর্কিত আরো সম্ভাব্য ১০ ঝুঁকির মুখোমুখি হতে যাচ্ছে মানবজাতি।

শনিবার দ্যা কমিশন ফর দ্যা হিউম্যান ফিউচার নামের একটি সংগঠনের প্রকাশিত ‘২১ শতকে বেঁচে থাকা এবং সমৃদ্ধি’ শিরোনামের এক প্রতিবেদনে সম্ভাব্য ১০ ঝুঁকির কথা জানানো হয়। 

একে অপরের অগ্রাধিকার ছাড়া ঝুঁকিগুলো হলো-

১. প্রাকৃতিক সম্পদ কমে যাবে। বিশেষ করে পানির সংকট দেখা দেবে। 

২. বাস্তুতন্ত্রে ধস নামবে এবং জীববৈচিত্র ধ্বংস হতে থাকবে। 

৩. পৃথিবীর ধারণের চেয়ে বেশি জনসংখ্যা বেড়ে যাবে। 

৪. মানুষ দ্বারা ঘটিত বৈশ্বিক উষ্ণতা বাড়বে। 

৫. পৃথিবীতে রাসায়নিক দূষণ বাড়বে। যার মধ্যে পরিবেশ ও মহাসাগর বেশি আক্রান্ত হবে।

৬. খাদ্যের নিরাপত্তা কমবে এবং পুষ্টির গুণগত মান ব্যর্থ হবে। 

৭. পারমানবিক অস্ত্রসহ অন্যান্য অস্ত্র গণ বিধ্বস্ততা তৈরি করবে। 

৮. নতুন ও চিকিৎসা ছাড়া রোগ ছড়াবে। 

৯. শক্তির আবির্ভাব হবে, নতুন প্রযুক্তি নিয়ন্ত্রণহীণ হয়ে পড়বে। 

১০. এই ঝুঁকিগুলো বুঝতে ও মোকাবিলা করতে জাতীয় ও বৈশ্বিকভাবে ব্যর্থ হবে।  

এদিকে দ্যা কমিশন ফর দ্যা হিউম্যান ফিউচার গত বছর গঠিত হয়। অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে মানুষের দ্বারা ঝুঁকির মুখোমুখির বিষয়গুলো আলোচনা করে সংগঠনটি। ঝুঁকিগুলোকে মোকাবিলার পদ্ধতি ও সমাধানের আলোচনাও হয়েছিল। গত মাসে প্রথম গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে ৪০ জন শিক্ষাবিদ, চিন্তাবিদ ও রাজনৈতিক নেতা উপস্থিত ছিলেন। 

কোভিড-১৯: ঝুঁকির আন্তঃসম্পর্কিত একটি শিক্ষা

কোভিড-১৯ ওই সব ঝুঁকিগুলোকে ব্যক্তিগতভাবে প্রলুব্ধ করছে। সংগঠনটি করোনাভাইরাসের সংকটের সঙ্গে ঝুঁকিগুলোর সম্পর্ক খোঁজ পাওয়ার দাবি করেছে।

সংগঠনটির দাবি, জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য করোনাভাইরাস প্রভাব ফেলেছে। সংগঠনটির আরো দাবি, অন্যান্য ঝুঁকিগুলো সমাধান না করে কোভিড-১৯ দূর করা সম্ভব নয়।

সূত্র-সায়েন্স অ্যালার্ট

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ/আরএ