ভাড়া বাড়িয়ে জরিমানার কবলে গোল্ডেন লাইন

ঢাকা, সোমবার   ২৪ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ১২ ১৪২৬,   ১৯ শাওয়াল ১৪৪০

ভাড়া বাড়িয়ে জরিমানার কবলে গোল্ডেন লাইন

ফরিদপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:০৫ ১১ জুন ২০১৯  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে সেবা গ্রহীতাদের সঙ্গে প্রতারণার দায়ে ফরিদপুরে গোল্ডেন লাইন নামে একটি যাত্রীবাহী বাসকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার বিকেলে ফরিদপুর শহরের গোয়ালচামটস্থ নতুন বাসস্ট্যান্ডে এ অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী হাকিম ও ডেপুটি কালেক্টর নেজারত (এনডিসি) মো. বায়েজুদুর রহমান।

যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের দায়ে ওই পরিবহনের ব্যবস্থাপক রেজাউল করিমকে এ জরিমানা করেন। রেজাউল করিম তাৎক্ষণিকভাবে জরিমানার অর্থ দেন।

ফরিদপুরের এনডিসি মো. বায়েজুদুর রহমান বলেন, ভোক্তা অধিকার আইনের ৪০ ধারা অনুযায়ী যাত্রীদর সঙ্গে প্রতারণার দায়ে এ জরিমানা করা হয়। তিনি বলেন, অভিযানকালে অন্য পরিবহন ব্যবসায়ীদের যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় না করার জন্য পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

‘আমরা অতিরিক্ত ভাড়া নিয়ে যাত্রীদের সঙ্গে প্রতারণা করছি না’- দাবি করে গোল্ডেন লাইন পরিবহনের ব্যবস্থাপক রেজাউল করিম জানান, ঈদুল ফিতর উপলক্ষে মালিক সমিতির বেধে দেয়া নির্ধারিত ভাড়ার বেশি ভাড়া তারা নিচ্ছেন না। তিনি বলেন, তাদের বিরুদ্ধে যাত্রীদের সঙ্গে প্রতারণা করার যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা সঠিক নয়।

তিনি বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালতের আদেশের বিরুদ্ধে তারা ফরিদপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) এর আদালতে আপিল করেছেন।

প্রঙ্গগত ঈদুল ফিতরের কারণে ফরিদপুরের সবগুলি পথে বাসের ভাড়া বৃদ্ধি পেয়েছে। এর ফলে যাত্রীদের ভোগান্তি ও হয়রানির শিকার হতে হয়। ঈদের অজুহাতে যাত্রী প্রতি ভাড়া বাড়ানো হয়েছে ১৬ দশমিক ৬৬ ভাগ থেকে ৫৫ দশমিক ৫৫ ভাগ পর্যন্ত।

ঢাকা থেকে দৌলতদিয়া ফেরি ঘাট হয়ে ফরিদপুরের দূরত্ব ১২৫ কিলোমিটার। ঢাকা থেকে ফরিদপুর রুটে নন এসি বাসের ভাড়া সরকার থেকে নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে ২৬৩ টাকা। তারপরও এ পথে ফরিদপুর থেকে ফেরি পারাপার একটি সাধারণ বাসের যাত্রী প্রতি ভাড়া নেয়া হয় ৩০০টাকা। ঈদ উপলক্ষে ১৬ দশমিক ৬৬ ভাগ ভাড়া বাড়িয়ে বর্তমানে ঢাকা থেকে ফরিদপুর আসার পথে ভাড়া নেয়া হচ্ছে ৩৫০ টাকা করে। এ পথে এসি বাসে যাত্রী প্রতি ভাড়া নেয়া হয় ৪৫০ টাকা। ঈদ উপলক্ষে ৫৫ দশমিক ৫৫ ভাগ ভাড়া বাড়িয়ে বর্তমানে ভাড়া নেয়া হচ্ছে ৭০০ টাকা। আরএম টু বাসে ভাড়া নেয়া হয় ৭০০ টাকা। ঈদ উপলক্ষে ওই বাসে ৪২ দশমিক ৮৫ ভাগ ভাড়া বাড়িয়ে নেয়া হচ্ছে ১০০০ টাকা।

ফরিদপুর বাসস্ট্যান্ডে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা হওয়ার পরও যাত্রীদের থেকে বাড়তি ভাড়া আদায় বন্ধ হয়নি। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, ঢাকা-ফরিদপুর রুটে সব বাসই ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বৃদ্ধি করা ভাড়াই আদায় করা হচ্ছে যাত্রীদের কাছ থেকে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম