ভাড়া কমাতে বলায় খুবি শিক্ষার্থীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে মেসছাড়া
SELECT bn_content.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content.ContentID WHERE bn_content.Deletable=1 AND bn_content.ShowContent=1 AND bn_content.ContentID=191761 LIMIT 1

ঢাকা, শনিবার   ০৮ আগস্ট ২০২০,   শ্রাবণ ২৫ ১৪২৭,   ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

ভাড়া কমাতে বলায় খুবি শিক্ষার্থীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে মেসছাড়া

খুবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:৩০ ৩ জুলাই ২০২০  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

করোনা পরিস্থিতিতে মেস মালিকদের কাছে ভাড়া কমানোর দাবি জানিয়ে আসছিলেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এর পরিপ্রেক্ষিতে এক শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন রকম হুমকিসহ নানাবিধ ভয়ভীতি দেখানো হয়েছে। ফলে মেস ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন ওই শিক্ষার্থী। এ ঘটনায় তিনি নিরাপত্তাহীনতার কারণে হরিণটানা থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন তিনি।

ইসলামনগর ছাত্র কল্যাণ সমিতির (মেসে থাকা শিক্ষার্থীদের সংগঠন) ওই সদস্য বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী।

সাধারণ ডায়েরিতে অভিযোগ করেন, অনান্য শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাস ছেড়ে গেলেও ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী  খুলনার স্থানীয় হওয়ায় কাসফা হাউস ছাত্রাবাসে (মালিক কবির মোল্লা) অবস্থান করেন। বিভিন্ন সময়  মেস মালিকদের অযৌক্তিক দ্বিগুণ তিনগুন ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করায় এবং শিক্ষার্থীদের দাবি নিয়ে আন্দোলন করার কারণে সম্প্রতি বিভিন্ন এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের দিয়ে তাকে ভয়ভীতি দেখানো হয়। একপর্যায়ে তাকে রুম ছেড়ে দিতে বলা হয়। গত ২৬ জুন এক সন্ত্রাসীকে দিয়ে তাকে ও তার রুমমেটকে হুমকি দিলে তারা মেস ত্যাগ করেন। এ নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে পরিবারেরও ক্ষতি করা হবে বলে হুমকি দেয়া হচ্ছে।

শিক্ষার্থীরা জানায়, সাধারণ সময়ে তারা স্কয়ার ফিট অনুযায়ী মেস ভাড়া দিতে চান। অন্যদিকে চলমান করোনা পরিস্থিতিতে তারা মেস ভাড়ার ৬০ শতাংশ মওকুফ চান। এদিকে মেস মালিকদের বেশিরভাগই স্কয়ার ফিট অনুযায়ী মেসভাড়া নিতে সম্মত হননি। এছাড়া চলমান পরিস্থিতিতে তারা সর্বোচ্চ এপ্রিল ও মে মাসের অর্ধেক ভাড়া নিতে সম্মত হয়েছেন। আবার অনেক মেস মালিকই শিক্ষার্থীদের হুমকি দিয়েছেন, জুন মাসের মধ্যে পুরো ভাড়া না দিতে পারলে রুমের জিনিসপত্র সব নামিয়ে দেবেন।

ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী জানায়, আমি ও আমার রুমমেট সহ সকল শিক্ষার্থী করোনাকালীন সময়ে টিউশনি ও অন্যান্য আয়ের পথ বন্ধ থাকায় খুবই কষ্টে দিন কাটাচ্ছি। এমতাবস্থায় আমাদের পক্ষে একজন তৃতীয়পক্ষ (হিদু মল্লিক)- কে আর টাকা পয়সা দেওয়া কোনভাবেই সম্ভব না। আমি এতদিন ধরে এই বিষয়গুলো বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন বা কোন শিক্ষার্থীকে ভয়ে জানাইনি কিন্তু এখন আর উপায় না পেয়ে জানাতে বাধ্য হই। 

এখন আমি খুবই ভীতসন্ত্রস্ত কারণ, এখানে আমার স্থানীয় বাসায় আমি আমার বাবা-মা সহ অবস্থান করছি। হেদায়েতুল ইসলাম হিদু মল্লিকসহ বাড়িওয়ালা কবির মোল্যা, কাওসার শিকদার, হাজী সেলিম আমাকে এই মর্মে হুমকি প্রদান করেছে যে, এই বিষয় নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে আমাকে সহ আমার পরিবারে বড় ধরনের ক্ষতি করবে বলে ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে। এমতাবস্থায় আমিসহ আমার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে কবির মোল্লা বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের সবার আগে শিক্ষার্থীসুলভ আচরণ করতে হবে। তাদের অভিযোগ তদন্ত করে দেখা হোক।’

খুবি শিক্ষার্থীরা করোনাকালীন সময়ে ৬০% বাসা ভাড়া মওকুফের জন্য খুলনা জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন প্রদান করেছে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/আরআর