বয়স ১০৮: পিয়ানো যেন তার পোষা পাখি

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৪ ১৪২৬,   ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

বয়স ১০৮: পিয়ানো যেন তার পোষা পাখি

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:৩০ ১২ জুন ২০১৯   আপডেট: ১২:০৩ ১২ জুন ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

পিয়ানোর সুর যেন তার হাতের পোষা পাখি। যেভাবে খুশি ঠিক সেভাবেই তাদের নিয়ে মজা করেন। পাশাপাশি সুর তুলে মানুষের মন কাড়েন তিনি। তার পিয়ানো যেন তার সঙ্গেই মিল রেখে সুরে সুরে বাজে।

বলছিলাম ওয়ান্ডা জারজিকা। যার বর্তমান বয়স ১০৮ বছর। তবে এ ব্য়সে এসেও পিয়ানোকে নিজের হাতের পোষা পাখি করে রেখেন তিনি। যেভাবে তাদের নিয়ে নাড়াচাড়া করেন, সেভাবেই তারা সুরে সুরে বাজে। পিয়ানো তার এতটাই প্রিয় যে রোজ যন্ত্রে সুর না তুললে ঘুম আসে না পোল্যান্ডের ওয়ান্ডার। 

এছাড়া আরো অবাক করা ঘটনা হলো, ৮০ বছর বয়সে তার হাত ভেঙে গিয়েছিল। ডাক্তার বলেছিলেন, আর কোনোদিন আগের মতো স্বাভাবিক হবে না তার হাত। চিকিতসকের সেই ভবিষ্যবাণীকেও বেস্তে দিয়েছেন ওয়ান্ডা।

ইউরো নিউজে প্রকাশিত খবরে, পশ্চিম ইউরোপের লিভিলে বড় হওয়া ওয়ান্ডা ছোট থেকেই পিয়ানো বাজাতে ভালোবাসতেন। ১৯৩১ সালে লিভিল থেকেই মিউজিক নিয়ে স্নাতক হন তিনি। কিন্তু দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হলে বন্ধ হয়ে যায় তার অতি সাধের বাজনা।

১৯৪৪ সালে ওয়ান্ডার পরিবার চলে আসেন পোল্যান্ডের ক্রাকো শহরে। আবার শুরু হয় তার পিয়ানো চর্চা। কাঠের গায়ে সূক্ষ কারুকাজ করা পিয়ানোটি উত্তরাধিকারী হিসেবে ওয়ান্ডা পেয়েছেন তার মায়ের কাছ থেকে। এটাও তার কাছএ পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সম্পদ।

আজও যখন প্রতিদিন পিয়ানোয় বসেন ওয়ান্ডা, আর কান পেতে তার বাজনা শোনেন প্রতিবেশিরা।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএএস