ব্রিটিশদের তৈরি অবকাঠামোতেই চলছে নান্দাইলের রেল সেবা
SELECT bn_content.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content.ContentID WHERE bn_content.Deletable=1 AND bn_content.ShowContent=1 AND bn_content.ContentID=140110 LIMIT 1

ঢাকা, বুধবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ৮ ১৪২৭,   ০৫ সফর ১৪৪২

ব্রিটিশদের তৈরি অবকাঠামোতেই চলছে নান্দাইলের রেল সেবা

মো. আবু হানিফ সরকার, নান্দাইল ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:২৪ ২৩ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ২১:২৭ ২৩ অক্টোবর ২০১৯

সংগৃহীত

সংগৃহীত

নিত্যদিন চাহিদা বাড়লেও হচ্ছে না কোনো উন্নতি। সেই ব্রিটিশদের তৈরি অবকাঠামো দিয়েই চলছে ময়মনসিংহের নান্দাইলের দুটি রেল স্টেশনের যাত্রী সেবা। উপজেলার চন্ডিপাশা ইউনিয়নে নান্দাইল রোড রেল স্টেশন ও মুসুল্লি ইউনিয়নের মুসুল্লি রেল স্টেশনে গেলেই দেখা মেলে যাত্রী ভোগান্তির চিত্র। কর্তৃপক্ষ দায় এড়ায় সংকটের দোহাই দিয়ে।

স্টেশন মাস্টার ইমাম হোসেন বলেন, নান্দাইল রোড স্টেশনে একজন ৪র্থ গ্রেট মাষ্টার, একজন ইনচার্জ, ২ জন পয়েন্টম্যান ও ২ জন গেইটম্যান রয়েছেন। আমি মাস তিনেক হলো এখানে যোগদান করেছি। নান্দাইল রোড বি-ক্লাস স্টেশন এবং মুসুল্লি ডি-ক্লাস স্টেশন। এখানে আপ এন্ড ডাউনে ৮টি ট্রেন চলাচল করে।

ইনচার্জ মতিউর রহমান বলেন, অবকাঠামো বলতে এখানে রয়েছে ব্রিটিশদের তৈরি কন্ট্রোল রুম, স্টেশন মাষ্টার অফিস ও কর্মকর্তাদের থাকার জায়গা। আর কোনো উন্নতি হয়নি। লোকবল সংকটও দিনে দিনে বাড়ছে। মুসুল্লি স্টেশনে দু'জন গেইটম্যান ছাড়া কোনো জনবল নেই। এখানে শুধু ভৈরব-ময়মনসিংহ দুটি লোকাল ট্রেন যাত্রা বিরতি করে। নান্দাইল রোড স্টেশন থেকে কিশোরগঞ্জের দূরত্ব ১৬ কিলোমিটার, ময়মনসিংহের দূরত্ব ৫৪ কিলোমিটার। এ অবস্থায় সেবার মান কীভাবে বাড়বে?

ময়মনসিংহ থেকে ছেড়ে আসা নাসিরাবাদ ট্রেনটি নান্দাইল রোড স্টেশন থেকে ছেড়ে যায় সকাল ৮টা ৫৫ মিনিটে আর চট্টগ্রাম পৌঁছে রাত ৯টা ৫ মিনিটে অর্থাৎ সময় লাগে ১২ ঘণ্টা ৫ মিনিট। অথচ একই রোডে আন্ত:নগর বিজয় ট্রেনটি ময়মনসিংহ থেকে ছেড়ে নান্দাইল রোড স্টেশন থেকে চট্টগ্রাম পৌঁছাতে সময় লাগে  ৭ ঘণ্টা ২০ মিনিট।

নান্দাইল রোড স্টেশনের ভবনে ধরেছে ফাটল, খসে পড়ছে প্লাষ্টার। অনেকটা ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে চলছে ব্যবহার। যাত্রীদের ওয়েটিং রুমের বেহাল অবস্থা, নেই কোন ফ্যান, নেই প্রয়োজনীয় আসন। পাবলিক টয়লেটের অবস্থা আরো করুণ।

স্টেশনটিতে নেই কোনো শেড, ফলে রোদ বৃষ্টিতে চরম দূর্ভোগে পড়তে হয় যাত্রীদের। নান্দাইল উপজেলার ১৩টি ইউনিয়ন ও এক পৌরসভার প্রায় সাড়ে চার লাখ মানুষ ছাড়াও কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলা, নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার জনসাধারণের একমাত্র অবলম্বন এই নান্দাইল রোড স্টেশনটি। এই স্টেশনের সার্বিক মান উন্নয়নের দাবি জানান এলাকার সাধারণ মানুষ।

এ ব্যাপারে নান্দাইল আসনের এমপি আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিন বলেন, স্টেশনটির এ-ক্লাসে মান উন্নয়ন, প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণ, আন্তঃনগর বিজয় এক্সপ্রেসের যাত্রা বিরতি চেয়ে আমি সংসদে কথা বলেছি। আমার চেষ্টা অব্যাহত আছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এস