ব্যাটারির দীর্ঘায়ু

ঢাকা, শনিবার   ২৫ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৬,   ১৯ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

ব্যাটারির দীর্ঘায়ু

অনন্যা চৈ ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:২১ ২০ এপ্রিল ২০১৯   আপডেট: ১৪:৫৭ ২২ এপ্রিল ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

মানুষের ব্যবহৃত সবচেয়ে মূল্যবান জিনিস হলো স্মার্টফোন। কেন বলছি? যতই ভালো বন্ধু হন না কেন, আপনি একজন মানুষের ব্যবহৃত সব কিছুতে হাত দিতে পারবেন তবে যদি তার মোবাইল ফোনটি চাওয়া হয় তাহলে সে আপনাকে বাধা দিবে নিশ্চিত। বলবে মোবাইল ফোন নয় বরং অন্য কিছু লাগলে বল, এতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ নাম্বার আছে, অমুখের কল আসতে পারে, গ্যালারিতে আমার প্রাইভেট ছবি আছে অথবা ফোনে ঝামেলা আছে ইত্যাদি ধরনের কথা বলে সে আপনাকে মোবাইল ফোন দেয়া থেকে বিরত থাকবে। 

কারণ, বর্তমান প্রজন্মের কাছে স্মার্টফোন হলো নিত্যদিনের সঙ্গী। এই ফোন দিয়ে তারা অবসর সময়টুকু ব্যয় করেন। একজন গার্লফ্রেন্ডের চেয়ে অনেক ক্ষেত্রে বেশি মূল্যবান এই স্মার্টফোন। কিন্তু অবাক করার মতো হলেও সত্যি যে, এই স্মার্টফোনই আপনার আয়ু কমানোর মহৌষধ। 

১. স্মার্টফোন বেশি ব্যবহারের ফলে আপনার চোখ অল্প বয়সে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। ২. স্মার্টফোনের শর্ট সার্কিটের কারণে ব্যাটারি ব্লাস্ট হয়ে আপনিও জ্বলে যেতে পারেন। ৩. এই স্মার্টফোনের কারণে আপনার হার্টে অনেক ধরনের সমস্যা হতে পারে। এসব কিছু আমার কথা না, বিভিন্ন গবেষণায় এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

তবে এসব আলোচনা কিন্তু আমাদের আজকের প্রতিপাদ্য বিষয় নয়, আজ আমরা আলোচনা করব এই প্রিয় জিনিসটির গুরুত্ব অংশের পরিচর্যা করবেন কীভাবে? অর্থাৎ, স্মার্টফোনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল ব্যাটারি। সে ব্যাটারি ভালো রাখার টিপস আজ পাঠকদের জানানো হবে। 

একটি স্মার্টফোনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ ব্যাটারি কেন বলছি? যদি ব্যাটারিতে ঠিকভাবে চার্জ না থাকে তাহলে সেই ফোন কোন কাজেই আসে না। পাশাপাশি, সঠিকভাবে চার্জ করা না গেলে একটি ফোন অল্প সময়ে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাছাড়া এখনকার স্মার্টফোনগুলোতে ব্যাটারি বিল্ড (আটকানো) করা থেকে। কেউ চাইলে এই ব্যাটারি খুলে আরেকটি চেঞ্জ করতে পারে না। তাই এখনকার সময় ব্যাটারি সবচেয়ে মূল্যবান বললে কোন অংশে ভুল হবে না। 

তাই ফোনের ব্যাটারির দিকে আজ একটু বিশেষ নজর দেয়া যাক-

রাতভর চার্জ নয়
 
অনেকের একটি বদভ্যাস রয়েছে, সারাদিন ফোন চালাচালি করে রাতে চার্জ দেয়া (যখন সে ঘুমিয়ে পড়ে)। এতে করে ফোনটি সারা রাত ধরে চার্জ হয়। এর ফলে ওভার চার্জিং হয়ে থাকে। যা ফোনের জন্য মোটেও ভালো কিছু নয়। এছাড়া সারা রাত ফোনে চার্জে দেয়ার ফলে ব্যাটারি অতিরিক্তি গরম হয়ে বিস্ফোরণ ঘটতে পারে।

ফোনের অরজিনাল চার্জার দিয়ে চার্জ করা

এই কাজটি আমরা সকলেই করে থাকি। কোথায় গেলে অথবা বাসায় থাকলেও কারো চার্জার প্লাগের সঙ্গে লাগানো থাকলে, সেখানে নিজের ফোনটি লাগিয়ে চার্জ করি। যা আপনার ফোনের জন্য মারাত্মক। কারণ ওই চার্জারের সঙ্গে আপনার ফোনটি ম্যাচ নাও হতে পারে। এতে খুব তাড়াতাড়ি আপনার ব্যাটারির আয়ু কমে যেতে পারে।

আর যদি নিজস্ব চার্জার দিয়ে চার্জ করা হয় তাহলে ফোনে চার্জও বেশী থাকে, ব্যাটারির আয়ুও যথার্থ পাওয়া যায়। তাই অবশ্য সর্বদা নিজস্ব ফোন দিয়ে চার্জ করার চেষ্টা করবেন। যা আপনার জন্যও ভালো এবং ফোনের জন্যও ভালো।

যথার্থ সময়ে ফোনে চার্জ করুন

আমরা অনেকেই কাজ শেষ হলে ফোন চার্জ-এ লাগিয়ে রাখি। যেটা একেবারে উচিত নয়। ফোন চার্জ করবেন একটি নির্দিষ্ট সময়ে এসে। অর্থাৎ আপনার ফোন যখন ২০ শতাংশ চার্জ দেখাবে ঠিক তখন ফোন চার্জ করতে দিন। এর ওপরে থাকলে থাকলে চার্জ দেয়া উচিত নয়। আবার ব্যাটারির চার্জ শূন্য করেও চার্জে লাগানো ঠিক নয়। কেননা অপ্রয়োজনীয় রিচার্জে ব্যাটারির আয়ু কমে যায়। সেক্ষেত্রে কমপক্ষে ৫-২০ শতাংশ চার্জ থাকা অবস্থায় ফোন চার্জ দেয়া ভালো।

কেসিং খুলে রাখা

এই কাজটাও আমরা সবাই করি। ফোনের সঙ্গে লেগে থাকা কেসিং না খুলে চার্জ-এ দিই। যেটা একেবারে উচিত নয়। কারণ যখন ফোন চার্জে দেয়া হয় তখন ব্যাটারি কিছুটা গরম হয়ে যায়। ব্যাটারির গরমের প্রভাব ফোনে ছড়িয়ে পড়ে। তাই ফোনকে অতিরিক্ত গরমের হাত থেকে রক্ষা করতে চার্জে থাকা অবস্থায় অবশ্য ফোনের নিরাপত্তামূলক কেসিং বা কভার খুলে রাখবেন।

পাওয়ার ব্যাংক ব্যবহারের সময় যা খেয়াল রাখবেন

আমাদের মধ্যে অনেকেই ফোন টিপাটিপিতে এতই ব্যস্ত যে, ফোনে চার্জ শেষ হয়ে গেলে পাওয়ার ব্যাংকের মাধ্যমে চার্জ দেয়া অবস্থায় ফোনটি ব্যবহার করি। যা একেবারে কাম্য নয়। কারণ, পাওয়ার ব্যাংকের সাহায্যে চার্জ করার সময় ব্যাটারি বেশী গরম হয়ে যায়। ঠিক একই সময় ফোনটি ব্যবহার করলে তা আরো গরম হয়ে যাবে। যা আপনাকে বড় ধরণের বিপদের সম্মুখীন করতে পারে।

ব্যাটারির অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার না করা

আপনার ফোনের ব্যাটারি ক্লিন করার কিছু থার্ডপার্টি ব্যাটারি অপটিমাইজ অ্যাপ রয়েছে। এই অ্যাপগুলো ফোনের ব্যাকগ্রাউন্ডে চালু থাকে। এতে করে ফোনের চার্জ আরো বেশি ব্যয় হয়। এছাড়া লকস্ক্রিনটিতে এই অ্যাপগুলো লোড করা থাকে। তাই ফোনে বেশী ব্যাটারি অ্যাপ ব্যবহার করা উচিত নয়। তাছাড়া একটি ফোনে অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ ব্যবহার করা একদম উচিত নয়। এর দ্বারা আপনার ফোনে অনেক চার্জ খরচ হবে, এতে বারবার চার্জে লাগাতে হবে। তাই প্রয়োজনীয় অ্যাপ ব্যাবহার করা শ্রেয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই
 

Best Electronics