বৌমাকে বেইজ্জতি, বিবেককে ‘এক হাত’ নিলেন অমিতাভ!

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৫ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ১২ ১৪২৬,   ২১ শাওয়াল ১৪৪০

বৌমাকে বেইজ্জতি, বিবেককে ‘এক হাত’ নিলেন অমিতাভ!

বিনোদন ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:২০ ২২ মে ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ওপিনিয়ন পোল, এক্সিট পোলের সঙ্গে ঐশ্বরিয়া রায় বচ্চনের পুরনো প্রেমকে টেনে এনে সোমবার একটি মিম সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে ঘোর বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন অভিনেতা বিবেক ওবেরয়। যদিও তিনি মিমের ক্যাপশানে লিখেছিলেন, এই মিমের সঙ্গে রাজনীতির কোনো সম্পর্ক নেই, সম্পর্ক রয়েছে শুধু ব্যক্তিগত জীবনের। তবুও বিতর্ক তার পিছু ছাড়েনি। 

এই মিমে সালমানের সঙ্গে ঐশ্বরিয়ার সম্পর্ককে ওপিনিয়ন পোল, তার (বিবেক) সঙ্গে ঐশ্বরিয়ার সম্পর্ককে এক্সিট পোল ও অভিষেক বচ্চনের সঙ্গে বিয়েকে আসল ফলাফল বলে দেখানো হয়েছে। 

আর মিমটি শেয়ার করার সঙ্গে সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিবেককে আক্রমণের শিকার হতে হয়। এমনকি এক মহিলার ব্যক্তিগত জীবনকে নিয়ে এধরনের পোস্ট করার জন্য মহারাষ্ট্র মহিলা কমিশনের তরফে বিবেক ওবেরয়ের কাছে নোটিসও পাঠানো হয়। 
এছাড়া, এধরনের পোস্ট একেবারেই ভালোভাবে নেননি সোনম কাপুর, অনুপম খের সহ বি-টাউনের অনেক সদস্যই। সকলেই এক্ষেত্রে অভিনেতা বিবেক ওবেরয়কে একহাত নেন। 

তবে পরে অবশ্য সোশ্যাল মিডিয়া থেকে পোস্টটি ডিলিটও করে দেন বিবেক। তিনি বলেন, লোকজন আমাকে ক্ষমা চাইতে বলেছেন। ক্ষমা চাইতে আমার কোনো সমস্যা নেই। কিন্তু বলুন তো আমি কি ভুল করেছি? যদি আমি কোনো ভুল করে থাকি তবে নিশ্চয়ই ক্ষমা চাইব। আমি মনে করি না, কোনো ভুল করেছি। এতে কি ভুল আছে? 

পাশাপাশি বিবেক আরো বলেন, আমি বুঝতে পারছি না কেন মানুষজন এই সামান্য বিষয়টা নিয়ে এতো বড় ইস্যু করছে! কেউ একজন আমাকে একটা মিম পাঠিয়েছে, যেটা আমার বেশ মজা লেগেছে। আমি খুব হেসেছি এবং অবশ্যই যে ওই মিমটি তৈরি করেছে তার ক্রিয়েটিভিটির প্রশংসা করছি। যদি কেউ তোমাকে নিয়ে মজা করে, তাহলে এটা গম্ভীরভাবে দেখার কিছু নেই।

তবে এই বিষয়টি ঐশ্বরিয়া রায় বচ্চনের শ্বশুরমশাই অমিতাভ বচ্চন যে এক্কেবারেই ভালো চোখে দেখছেন না তা তার একটি টুইট থেকেই স্পষ্ট। এক্ষেত্রে বিবেক ওবেরয়ের নাম না করে বিগ বি লেখেন সোশ্যাল মিডিয়াতে বিবেচনা করেই কোনো পোস্ট করা উচিত। আর অভিতাভের এমন পোস্টে স্পষ্টই বুঝা যায় তিনি বিবেককে এক হাত নিতে চেয়েছিলেন।

যদিও বিবেক ওবেরয় স্পষ্ট জানিয়েছেন, কোনো কিছু একনজরে কারোর চোখে মজার বিষয় মনে হলেও অন্যদের কাছে হয়ত তা নয়। যাই হোক গত ১০ বছরে প্রায় ২০০০ প্রান্তিক মহিলার কাজের ব্য়বস্থা করেছি, তাই কখনোই মেয়েদের অসম্মান করার কথা ভাবতেও পারি না।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএএস