বেড়াতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার তিন ছাত্রী, বিদ্যালয় দিলো টিসি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৯ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২৬ ১৪২৬,   ১৫ শা'বান ১৪৪১

Akash

বেড়াতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার তিন ছাত্রী, বিদ্যালয় দিলো টিসি

ঘাটাইল (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:২৪ ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৫:৪৬ ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বেড়াতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার তিন ছাত্রীকে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক টিসিসহ বের করে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে চরম হতাশায় রয়েছেন ভুক্তভোগী ও তাদের অভিভাবকরা।

এ ঘটনা টাঙ্গাইলের ঘাটাইলের এস ই পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ঘটেছে। টিসি দেয়ার পর ছাত্রীদের বারবার করা অনুরোধ শুনেননি ওই শিক্ষক।

এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক বুলবুলি বেগম বলেন, ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্তে একজনকে টিসি দেয়া হয়েছে। এছাড়া দুইজন স্বেচ্ছায় টিসি নিয়েছে। ম্যানেজিং কমিটি চাইলে তারা বিদ্যালয়ে পড়তে পারবে।

ওই বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও ঘাটাইল উপজেলা চেয়ারম্যান মো. শহিদুল ইমলাম লেবু বলেন, তিন ছাত্রীর ব্যাপারে অনেক অভিভাবক অভিযোগ করেছেন। ওই তিন ছাত্রী বিদ্যালয়ে আসলে অন্য ছাত্রীর অভিভাবকরা তাদের মেয়েদের বিদ্যালয়ে আসতে দেবেন না। ফলে তিনজনকেই টিসি দেয়া হয়েছে।

মানবাধিকারকর্মী অ্যাডভোকেট আতোয়ার রহমান আজাদ বলেন, সমাজের কিটগুলো ওই ছাত্রীদের নির্যাতন করেছে। অন্যদিকে সমাজের আলোকিত নামের মানুষরা তাদের অন্ধকারের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। ভুক্তভোগীদের শিক্ষার সুযোগ দেয়ার পাশাপাশি অন্যায়ের সঙ্গে জড়িতদের ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা নেয়া উচিত।

অতিরিক্ত এসপি শফিকুল ইসলাম বলেন, মেয়েগুলো দুর্ঘটনার শিকার। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঘাটাইলের ইউএনও অঞ্জন কুমার সরকার বলেন, সবার শিক্ষার অধিকার রয়েছে। বিষয়টি যাচাই করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

২৬ জানুয়ারি ঘাটাইলের ওই বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়া শেষে দুই বন্ধুসহ চার বান্ধবী পাহাড়ি এলাকার বনের ভিতরে ঘুরতে যান। তবে তাদের অজান্তে পিছু নেয় ১০ থেকে ১২ যুবক। তারা যখন বনের গভীরে ঢুকে, তখন যুবকরা দুই বন্ধুকে গাছের সঙ্গে বেঁধে তিন ছাত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে এক ছাত্রীর নানির বাড়ি আশ্রয় নিয়ে ঘটনাটি পুলিশকে জানায় ভুক্তভোগীরা।

পরে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী এক ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে ঘাটাইল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। পরে অভিযান চালিয়ে চারজনকে গ্রেফতার করে আদালতে হাজির করে পুলিশ। চারজনই ঘটনার সঙ্গে জড়িত ছিলেন বলে আদালতে স্বীকার করেছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ