Alexa বিয়ে না করলে জান দেব

ঢাকা, শুক্রবার   ২২ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ৭ ১৪২৬,   ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

বিয়ে না করলে জান দেব

চারঘাট (রাজশাহী) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৩২ ৪ নভেম্বর ২০১৯  

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

জান দেব তবু বাড়ি ছাড়ব না। এমন প্রতিজ্ঞায় অনড় হয়ে রাজশাহীর চারঘাটে বিয়ের দাবিতে চারদিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন শুরু করেছেন দুই সন্তানের এক জননী। 

প্রেমিকার এমন অবস্থানে বাড়ি থেকে পালিয়েছেন দুই সন্তানের জনক প্রেমিক আমজাদ হোসেন। 

বিয়ের না করলে আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছেন অনশনরত ওই প্রেমিকা। বিষয়টি সমাধানে এখনো এগিয়ে আসেনি কেউ। তাই বাধ্য হয়ে কোলের শিশুকে নিয়ে শীতের মধ্যে আমজাদ হোসেনের বাড়ির বারান্দায় খেয়ে না খেয়ে দিন পার করছেন ওই প্রেমিকা। ঘটনাটি এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে। 

ওই প্রেমিকা জানান, তার স্বামী মারা গেছেন দুই বছর আগে। এরপর থেকে প্রতিবেশী উপজেলার ভায়ালক্ষিপুর ইউপির ৮ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা আমজাদ হোসেন বিয়ের প্রলোভন দিয়ে বিভিন্ন সময় অনৈতিক কাজের প্রস্তাব দিতো। বিষয়টি তিনি আমজেদ হোসেনের স্ত্রীসহ তার পরিবারের লোকজনদের জানালেও তারা এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। একপর্যায়ে আমজেদ হোসেনের অনৈতিক প্রস্তাব প্রত্যাখান করে কয়েকদিন আগে নিজ স্বামীর ভিটে মাটি ফেলে পেটের দায়ে রাজশাহী শহরে পালিয়ে এসে একটি ঘর ভাড়া করে বসবাস শুরু করেন।

এখানে আসার পরও আমজাদ হোসেন তাকে আবারো বিয়ের প্রলোভন দেখায়। একপর্যায়ে সরল বিশ্বাসে আমজাদ হোসেনের ডাকে সারা দিলে তার সঙ্গে অবৈধ মেলামেশা শুরু করে। গত শুক্রবার আমজাদ হোসেন বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তার নিজ বাড়িতে আসতে বলে। সে আমজাদ হোসেনের বাড়িতে এসে বিয়ের দাবি জানালে কৌশলে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। এরপর থেকে সে বিয়ের দাবিতে আমজেদ হোসেনের বাড়িতে অনশন শুরু করেনে। 

তার দাবি আমজেদ হোসেন তার সব শেষ করে ফেলেছে। তিনি বলেন এখন সে বিয়ে না করলে জান দেব, তবুও তার বাড়ি ছাড়ব না। 

এ বিষয়ে আমজাদ হোসেনের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমাকে পরিকল্পিতভাবে ফাঁসানো হয়েছে। মান সম্মানের ভয়ে আমি বাড়ি থেকে পালিয়েছি। তবে দ্রুত সময়ের মধ্যে এটির সমাধান করা হবে।

ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সাহাকুল ইসলাম অনশনের কথা স্বীকার করে বলেন, অভিযুক্ত ব্যক্তি পলাতক রয়েছেন। এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে বিষয়টির সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে।

ইউপি চেয়ারম্যান শওকত আলী বুলবুল বলেন, মিলিক লক্ষিপুর গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সঙ্গে নিয়ে পলাতক ব্যক্তিকে হাজির করে এর একটা সমাধানের চেষ্টা করা হবে। মেয়েটির নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে।

চারঘাট মডেল থানার ওসি সমিত কুমার কুণ্ডু বলেন, এ বিষয়ে এখনো কেউ কোনো ধরনের অভিযোগ করেনি।      
 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ