Alexa বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১২ ডিসেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ২৭ ১৪২৬,   ১৪ রবিউস সানি ১৪৪১

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ

 প্রকাশিত: ১০:২৬ ২৩ জুলাই ২০১৭  

পিরোজপুরের নাজিরপুরে বিয়ের প্রলভোন দেখিয়ে এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সে একটি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রী। ধর্ষক উপজেলার দেউলবাড়ি ইউনিয়নের বিলডুমুরিয়া গ্রামের সুখরঞ্জন বড়ালের ছেলে সুজিৎ বড়াল (২৫)। ভুক্তভোগী ওই কলেজ ছাত্রী শনিবার প্রতিবেদককে জানায়, গত ২ বছর ধরে সুজিতের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক চলে। কিন্তু সুজিত তাকে বিয়ের প্রলভোন দেখিয়ে চলতি বছর ২ মার্চসহ একাধিকবার ধর্ষণ করে। এতে সম্প্রতি সে গর্ভবতী হলে তাকে শিগগিরই বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ঔষধ খাইয়ে গর্ভপাত করায়। এরপর সুজিৎ বিয়ে না করতে বিভিন্ন টালবাহানা শুরু করে। ধর্ষিতার বাবা জানান, তার মেয়েকে সুজিৎ বিয়ে করতে রাজী না হওয়ায় সে গত ৯ জুলাই থানায় অভিযোগ দিতে গেলে স্থানীয় ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি অরুন হালদারের নেতৃত্বে স্থানীয়ভাবে শালিস বৈঠকের মাধ্যমে বিয়ে দিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দেন ওই যুবলীগ নেতা। এ নিয়ে পরে শালিস বৈঠকে বসলে ওই যুবলীগ নেতা ও স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য সালাম তাকে প্রকাশ্যে অকথ্য ভাষায় গালাগালি সহ খারাপ আচরণ করে ধর্ষককে ছেড়ে দেন। এতে ক্ষোভে দুখে আত্মহত্যার চেষ্টা করে ওই কলেজ ছাত্রী। এ ব্যাপারে যুবলীগ নেতা কলেজ ছাত্রীকে গালাগালির কথা অস্বীকার করে জানান, তিনি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে সেখানে গিয়েছিলেন। শালিস বৈঠকে চুড়ান্ত কিছু হওয়ার আগেই মেয়ে পক্ষ বৈঠক থেকে উঠে যায়। এ ব্যাপারে নাজিরপুর থানা পুলিশের অফিসার্স ইন চার্জ মো. হাবিবুর রহমান জানান, এ ঘটনায় তিনি কোন লিখিত অভিযোগ না পেলেও মৌখিকভাবে বিষয়টি শুনে অভিযুক্ত ধর্ষককে গ্রেফতারের জন্য স্থানীয় ফাঁড়ি পুলিশকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ডেইলি বাংলাদেশ/আরকে