Alexa বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা ছাড়ার হুমকি ট্রাম্পের

ঢাকা, শুক্রবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৫ ১৪২৬,   ২০ মুহররম ১৪৪১

Akash

বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা ছাড়ার হুমকি ট্রাম্পের

 প্রকাশিত: ১৫:০১ ৩১ আগস্ট ২০১৮   আপডেট: ১৫:০১ ৩১ আগস্ট ২০১৮

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

যুক্তরাষ্ট্রের বিষয়ে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা (ডব্লিউটিও) তাদের নীতির পরিবর্তন না করলে সংস্থা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার হুমকি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সংস্থাটি যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি ‘অন্যায্য আচরণ’ করছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। ব্লুমবার্গ নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থাকে এমন হুমকি দেন ট্রাম্প। খবর- বিবিসি।

বৃহস্পতিবার ব্লুমবার্গ নিউজকে ট্রাম্প বলেন, ১৯৯৪ সালে যে চুক্তির ভিত্তিতে ডব্লিউটিও প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে তা ‘এখন পর্যন্ত হওয়া বাণিজ্য চুক্তিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে নিকৃষ্ট’।

ট্রাম্পের দাবি, সংস্থাটি প্রায়ই যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়। আর যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য প্রতিনিধি রবার্ট লাইথিযার বলেন, বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা যুক্তরাষ্ট্রের সার্বভৌমত্বে হস্তক্ষেপ করছে।

বিশ্ব বাণিজ্যের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক নিয়ম নির্ধারণ করা ও সেসব নিয়মের বিষয়ে বিভিন্ন দেশের মধ্যে অন্তর্দ্বন্দ্বের সমাধান করার উদ্দেশ্যে গঠন করা হয়েছিল বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা। তবে আন্তঃদেশীয় বাণিজ্যের ক্ষেত্রে সংরক্ষণ নীতির সমর্থক ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার বৈষম্যমূলক আচরণের শিকার।

বিশ্লেষকরা বলছে, ট্রাম্পের বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা প্রত্যাহারের হুমকির পর মার্কিন প্রেসিডেন্টের বাণিজ্য নীতি আর বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার মুক্তবাজার নীতির মধ্যকার আদর্শিক দ্বন্দ্ব আরো পরিষ্কার হলো।

দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার আগেই সংস্থাটির নীতির সমালোচনা করে আসছেন ট্রাম্প। ২০১৭ সালে ফক্স নিউজের এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেন, আমাদের ছাড়া সবাইকে সুবিধা দেয়ার জন্য গঠন করা হয়েছিল বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা। এর প্রায় সব আইনি সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রেই দেখা যায় আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হই।

যুক্তরাষ্ট্রকে গত কয়েক মাসে অন্যান্য দেশের সঙ্গে বাণিজ্য বিষয়ক নীতি নির্ধারণের ক্ষেত্রে বেশ কঠোর অবস্থানে দেখা গেছে। সবচেয়ে বেশি আলোড়ন তুলেছে চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সাম্প্রতিক 'বাণিজ্য যুদ্ধ'। যেখানে বিশ্বের সবচেয়ে বড় দুইটি অর্থনৈতিক শক্তি বিশ্ববাজারে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বিরুদ্ধ অবস্থান করেছে।

সম্প্রতি হাজার হাজার চীনা পণ্যের উপর শুল্কারোপ করেছে ট্রাম্প। পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে চীনও যুক্তরাষ্ট্রের অনেকগুলো পণ্যের উপর শুল্কারোপ করে। চীনের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বলছে, চীনা পণ্যের উপর শুল্কারোপ ‘পরিষ্কারভাবে’ যুক্তরাষ্ট্রের ডব্লিউটিও নীতি লঙ্ঘন।

বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা ১৯৯৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এর মাধ্যমেই আন্তঃদেশীয় বাণিজ্যের আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত নিয়মগুলো প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে সেসব নিয়মের ব্যতিক্রম হচ্ছে কি না তা পর্যবেক্ষণ করা ও বাণিজ্য নীতি নির্ধারণের ক্ষেত্রে আন্তঃদেশীয় দ্বন্দ্বের মীমাংসা করা বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার অন্যতম প্রধান দায়িত্ব।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর