‘বিশ্বসুন্দরী’ আমার প্রথম চলচ্চিত্র: চয়নিকা চৌধুরী  

ঢাকা, বুধবার   ০৮ জুলাই ২০২০,   আষাঢ় ২৪ ১৪২৭,   ১৬ জ্বিলকদ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

‘বিশ্বসুন্দরী’ আমার প্রথম চলচ্চিত্র: চয়নিকা চৌধুরী  

বিনোদন প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০১:৩০ ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

নাটক, টেলিছবির পর এবার চলচ্চিত্র নির্মাণের ঘোষণা দিলেন ছোট পর্দার গুণী নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী। বৃহস্পতিবার রাতে ফেসবুকে নিজের প্রথম চলচ্চিত্র নির্মাণের এ খবর প্রকাশ করেন তিনি।

ফেসবুকে চয়নিকা চৌধুরী লিখেছেন-

“বিশ্বসুন্দরী”: আমার প্রথম চলচ্চিত্র

আজ বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। প্রতিটি দিনের মত আজও আমি সবার ভালোবাসা নিতে চাই, দিতে চাই। ভালোবাসার মাঝেই দর্শকের সাথে আমার ১৭টি বছর কিভাবে চোখের নিমিষে কেটে গেলো, বুঝতেই পারিনি। তবে আমার প্রতি সবার ভালোবাসা থেকে আমি দায় অনুভব করেছি প্রতিনিয়ত: জীবনে অন্তত একবার হলেও একটি সিনেমা নির্মাণ করবো। 

ভালোবাসার একক নাটক করেছি ৩৮৫টি, ১৮টি ধারাবাহিক নাটক করেছি। আর একটি সিনেমা নির্মাণ করতে পারবো না? দর্শকের মন ছুঁয়ে যাবার মত একটি গল্প কি বড় পর্দায় তুলে আনতে পারবো না? যে গল্প দেখে দর্শক হাসবেন, কাঁদবেন, প্রেম বোধ করবেন, আপ্লুত হয়ে বন্ধু-স্বজনদের পরামর্শ দেবেন-কোনোভাবেই এই সিনেমাটি মিস করা যাবে না। 

কিন্তু চাইলেই কি মানুষ সব পায়? কেন জানি বছরের পর বছর খুঁজেও মনের মত গল্প পাচ্ছিলাম না। কেন জানি সব ভালো লাগলেও কোথাও গিয়ে ভেতর থেকে তাগিদ অনুভব করিনি এই গল্পেই হবে আমার প্রথম সিনেমা। রুম্মান রশীদ খান আমার অসংখ্য নাটকের নাট্যকার, আমার প্রিয় মানুষ। রুম্মান আমাকে সেই ২০০৫ থেকে অনুরোধ করে আসছে: বৌদি, একবার অন্তত একটি সিনেমা নির্মাণ করুন। 

আমি বারবারই ভেবেছি-সিনেমা??? এত বড় মাধ্যম? আমি কি পারবো? বেশ কয়েক মাস আগে হঠাৎ করেই কোথা থেকে যেন এক দৈব শক্তি ভর করলো আমার ওপর। মনে হলো-হুম, আমি পারবো। আমার দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতা, সিনেমা প্রেম আমাকে ভালো কিছু করতে অবশ্যই প্রেরণা যোগাবে। এরপর যা ঘটলো, পুরোটাই প্রকৃতির সাজানো চিত্রনাট্য। 

রুম্মান রশীদ খান আমাকে তার একটি গল্প শোনালেন। আমি আর আমার একমাত্র ছেলে অনন্য প্রতীক চৌধুরী সেটি শুনলাম। রুম্মান বলছে, এদিকে আমরা মা-ছেলে কাঁদছি। গল্প বলা শেষ। আমার গলা ধরে গেছে ততক্ষণে। আমার ছেলে আমাকে বিস্মিত করে বললো-আমি এ যুগের ছেলে। আবেগী গল্প আমাকে খুব একটা স্পর্শ করতে পারেনা। আমি ইস্পাত কঠিন মানুষ। তবে এই গল্পটি আমার মন ছুঁয়ে গেছে। অনন্য নিজ থেকে গল্পকারের সাথে ‘হ্যান্ডশেক’ করলো। 

আজ এই ভালোবাসার দিনে আমি জানাতে চাই, আমার দর্শকরা যেহেতু ভালোবাসার নাটকে আমাকে বেশি চেয়েছেন, পছন্দ করেছেন, আমি নিজেও যেহেতু ভালোবাসার পূজারী, সুন্দরের পূজারী, তাই আপনাদের সবার সম্মতি নিয়ে আমি আমার প্রথম চলচ্চিত্রের কাজ শুরু করতে যাচ্ছে, যে চলচ্চিত্রের নাম ‘বিশ্ব সুন্দরী’।

 আমার সিনেমার গল্প হবে প্রেমের, মানবতার, এই গল্প জীবনের জয়গানের। সৌন্দর্য যে শুধু বাহ্যিক নয়, সৌন্দর্য হতে পারে মনের-মননের তাই শক্তিশালী এক চিত্রনাট্যের মাধ্যমে রুম্মান রশীদ খান ফুটিয়ে তুলেছেন। আশা করছি দারুণ এই মৌলিক গল্পকে আমি আমার দীর্ঘ নির্মাণ জীবনের অভিজ্ঞতা দিয়ে চলচ্চিত্রে রং ছড়াতে পারবো। এই ভালোবাসার মাসেই আমার প্রথম সিনেমার বিস্তারিত জানাবো। 

আশা করাছি আপনারা সবাই আমার, আমাদের জন্য বরাবরের মত দোয়া করবেন। পাশে থাকবেন। ভালোবাসার রঙয়ে রঙিন হোক প্রতিটি দিন, প্রতিটি মুহূর্ত।'#

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএস