বিশ্বনবী (সা.) এর ব্যবহৃত জিনিস-পত্র সংরক্ষিত যে জাদুঘরে

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৪ ১৪২৬,   ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

বিশ্বনবী (সা.) এর ব্যবহৃত জিনিস-পত্র সংরক্ষিত যে জাদুঘরে

ধর্ম ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:০৩ ১৩ জুন ২০১৯  

তুরস্কের ঐতিহাসিক তোপকাপি রাজ প্রাসাদ জাদুঘর (ফাইল ফটো)

তুরস্কের ঐতিহাসিক তোপকাপি রাজ প্রাসাদ জাদুঘর (ফাইল ফটো)

বিশ্বনবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের রেখে যাওয় মহামূল্যবান জিনিস-পত্রগুলো মুসলিম খেলাফতের শাসন পরিচালনাকারী রাজা-বাদশাহরা সব সময় নিজেদের কাছে রাখতে চেয়েছেন। 

সে হিসেবে অটোমান খেলাফতের সময় সেসব জিনিস-পত্র চলে আসে তুরস্ক। যা বর্তমানে তুরস্কের ঐতিহাসিক তোপকাপি রাজ প্রাসাদ জাদুঘরে সংরক্ষিত।

বিশ্বনবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ব্যবহৃত দুর্লভ সেসব জিনিস-পত্রগুলো তোপকাপি জাদুঘরের প্রিভি রুমে সর্বোচ্চ নিরাপত্তায় সংরক্ষণ করা হয়েছে। তোপকাপি প্রাসাদটি তুরস্ক সম্রাজ্যের রাজ প্রাসাদ হিসেবে ব্যবহৃত হতো।

খেলাফতের শাসনের পর তুরস্কে প্রজাতন্ত্র শুরু হলে রাজ প্রাসাদটিকে জাদুঘরে রুপান্তরিত করা হয়। এরপর থেকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তায় বিশ্বনবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর ব্যবহৃত জিনিস-পত্রগুলো দর্শণার্থীদের জন্য দেখার ব্যবস্থা রাখা হয়।

তোপকাপি প্রাসাদে থাকা কিছু জিনিসের ছবি তুলে ধরা হলো-

পানি পান করার পেয়ালা

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যে পেয়ালায় পানি পান করতে ক্যালিগ্রাফিতে সজ্জিত সে পেয়ালাটি তোপকাপি প্রসাদে সংরক্ষিত।

পবিত্র দাঁড়ি মোবারক

লম্বা একটি সুসজ্জিত পাত্রে বিশ্বনবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের পবিত্র দাঁড়ি মোবারক রাখা হয়েছে। যা এখনো তুরস্কের তোপকাপি প্রাসাদে সংরক্ষিত।

ধনুক

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ব্যবহৃত ধনুক ও ক্যালিগ্রাফি খচিত কাভার রয়েছে এ প্রসাদে।

তলোয়ার

বিশ্বনবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের তলোয়ার। যা হজরত ওমর এবং হজরত আলি রাদিয়াল্লাহু আনহুর কাছেও সংরক্ষিত ছিল। তা এখন তোপকাপি প্রাসাদে সংরক্ষিত।

ক্যালিগ্রাফি খচিত স্টাম্প

কাবা শরিফের তালা ও চাবি

তুরস্কের ইস্তাম্বুলে যেখানে প্রিয়নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ব্যবহৃত জিনিসগুলো সংরক্ষিত সেখানে রয়েছে কাবা শরিফের একটি তালা ও চাবি। যা স্বর্ণ দ্বারা নির্মিত।

সংরক্ষিত রুমের বাইরের দৃশ্য

তোপকাপি জাদুঘর প্রসাদের যে রুমটিতে রাখা হয়েছে এ মহামূল্যবান দুর্লভ জিনিসগুলো। সে রুমের বাহিরের আঙিনা এটি। এখানে দর্শনার্থীরা রুমটি পরিদর্শনে অপেক্ষা করছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে