বিপিএল জুয়ায় আসক্ত শির্ক্ষাথীরা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৭ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ১৫ ১৪২৬,   ২২ শাওয়াল ১৪৪০

বিপিএল জুয়ায় আসক্ত শির্ক্ষাথীরা

নিকলি (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৪:৫২ ১৪ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৫:১০ ১৪ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

শুরু হয়েছে ঘরোয়া ক্রিকেটের সব থেকে জনপ্রিয় আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ(বিপিএল)। আর এই বিপিএল নিয়ে কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলার সাতটি ইউনিয়নে জমে উঠেছে জমজমাট জুয়ার আসর।

নিকলীর অধিকাংশ যুব সমাজ ও শির্ক্ষাথী এ খেলায় সম্পৃক্ত হয়ে ধ্বংস হচ্ছে। অনেকেই এখন নিজের কর্মসংস্থান ছেড়ে জুয়ার পেছনে ঘুরছে। যার ফলে কিছু লোক অল্প দিনের মধ্যে আঙুল ফুলে কলাগাছে পরিণত হয়েছেন। আবার কেউ কেউ নিঃস্ব হয়ে রাস্তায় নেমে পড়েছেন।

জুয়ার টাকা সংগ্রহ করতে গিয়ে অনেক যুবক নানা অপরাধের সঙ্গে সম্পৃক্ত হচ্ছে। যার কারণে এলাকায় বাড়ছে নানা অপরাধ ও ছিনতাই। জুয়ায় আসক্ত হয়ে অনেকেই নিজের সঞ্চয়কৃত টাকা জুয়ার দানে নিয়ে যাচ্ছেন।

একটি বিশ্বস্ত সূত্র থেকে জানা যায়, নিম্ন আয়ের মানুষ থেকে শুরু করে উচ্চ শিক্ষিত লোকেরাও জুয়ার সঙ্গে জড়িত। বিশেষ করে স্কুল- কলেজের শিক্ষির্থীরা এ কাজে বেশি জড়িয়ে পড়ছে। অনেকেই রাতে লেখাপড়া ছেড়ে উপজেলার বিভিন্ন জুয়ার আসরে সময় কাটাচ্ছে।

নামিদামি তারকারদের হাতে যখন বল-বা ব্যাট থাকে তখন বলে আমার তারকা এবার চার বা ছক্কা মারবেন। চার-ছক্কা না পারলে আপনাকে আমি ২০ হাজার টাকা দেব। আর চার-ছক্কা করতে পারলে আপনি আমাকে ২০ হাজার টাকা দেবেন। এভাবে ভালো ক্রিকেট খেলোয়ারদের ক্ষেত্রে হাজার থেকে শুরু করে লাখ টাকা পর্যন্ত জুয়া ধরা হয়। এভাবে জুয়া ধরা হয়।

অনুসন্ধানে জানা যায়, নিকলী উপজেলা সাতটি ইউনিয়নের ১৩ টি হাট-বাজারসহ বিভিন্ন দোকান, হোটেল ও বাসায় প্রতিনিয়ত জুয়ার আসর বসে।এছাড়াঁও খোঁজ নিয়ে জানা যায়,গ্রামাঞ্চলেও জুয়ার আসরের ব্যাপক বিস্তৃতি লাভ করেছে।

উপজেলার সচেতন নাগরিকরা বলেছেন,প্রশাসন এবং পুলিশ আন্তরিক হলে এভাবে প্রকাশ্যে জুয়াড়িরা বসার সাহস পেত না।

এ বিষয়ে নিকলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ নাছির উদ্দিন ভূইয়া ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, বিপিএল ক্রিকেট খেলার নামে জুয়া খেলা হয় এ কথা শুনেছি। আমাদের সোর্স কাজ করছে। সুনিদির্ষ্ট তথ্য পেলে অভিযান পরিচালনা করব।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস/আরএস