.ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৬ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ১২ ১৪২৫,   ১৯ রজব ১৪৪০

দিওয়ালির পর বায়ুদূষণে অস্থির দিল্লিবাসী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

 প্রকাশিত: ১২:৪৮ ৯ নভেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৪:২৬ ৯ নভেম্বর ২০১৮

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

আদালতের কঠোর নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও অতিরিক্ত আতশবাজির কারণে ধোঁয়ায় ঢেকে যায় ভারতের রাজধানী দিল্লি। দেশটির সুপ্রিম কোর্ট রাতে মাত্র দুই ঘণ্টার জন্য আতশবাজির অনুমতি দিলেও তা প্রকাশ্যে অবমাননা করা হয়। 

উত্তর ভারতীয় হিন্দুদের দিওয়ালি অন্যতম ধর্মীয় উৎসব। এ দিনে আতশবাজি ফুটিয়ে অশুভ শক্তির উপর শুভ শক্তির বিজয় উদযাপন করা হয়। কিন্তু অতিরিক্ত আতশবাজির কারণে কিছু কিছু এলাকায় দূষণের মাত্রা প্রতি কিউবিক মিটারে ৯৯৯ মাইক্রোগ্রামে পৌঁছে যায়। এটি স্বাস্থ্যের জন্য মারত্মক হুমকি বলে জানায় বিবিসি। 

গেল মাসে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট বাতাসে দূষণের পরিমাণ বিশ্বের সব শহর থেকে দিল্লি খারাপ পর্যায়ে যেতে পারে বলে আতশবাজির উপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। যদিও কোর্ট বলেছিল, মাত্র দু‘ঘণ্টার জন্য আতশবাজি ফোটানো যাবে। কিন্তু তা গভীর রাত পর্যন্ত চলে। এতে মানুষকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হতাশা প্রকাশ করতে দেখা যায়।

তবে যারা আতশবাজি ফুটিয়েছে তারা বলছে, বায়ু দূষণের কারণে তাদেরকে দোষারোপ করা উচিত নয়। তাদের মতে, বাতাসের নিম্ন গতি, নির্মাণাধীন ভবনের ধুলা, আবর্জনা পোড়ানো এবং ডিজেল চালিত গাড়ির কারণেও বায়ু দূষণ হয়। 

এছাড়া দিল্লির বাতাসে প্রতি বছরই দূষণের মাত্রা বাড়ছে। পার্শ্ববর্তী রাজ্য পাঞ্জাব ও হরিয়ানাতে প্রতি বছর জমি পরিষ্কারের জন্য ফসল কাটার পরে আবর্জনা পোড়ানো হয়। এ কারণেও দিল্লির বাতাস চরমভাবে দূষিত হয়ে যাচ্ছে। 

আতশবাজদের একজন বলেন, আমরা সারাবছর এই দিনটির জন্য অপেক্ষা করে থাকি। আতশবাজিতে যদি জোরে শব্দ না হয় তাহলে অশুভ শক্তি পালাবে কি করে?

উল্লেখ্য, বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী ভারতের রাজধানী দিল্লি বিশ্বের ষষ্ঠ দূষিত শহরের তালিকায় স্থান পেয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর/আরআই