বিদেশি ফলে বাজার সয়লাব

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২০ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৬ ১৪২৬,   ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

বিদেশি ফলে বাজার সয়লাব

নকলা (শেরপুর) প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ০৪:৫৭ ১১ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ০৮:৫৫ ১১ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

শেরপুরের নকলায় কয়েক সপ্তাহ ধরে বিদেশি ফলে সয়লাব হয়ে গেছে বাজার। দেখা মিলছে না দেশি ফলের। কালেভদ্রে হাটে ওঠে বারমাসি কলা, পেঁপে। এতে প্রকট আকার ধারণ করেছে দেশি ফলের চাহিদা। সুযোগ বুঝে দামও বাড়িয়ে দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

নকলা উপজেলা অর্ধশতাধিক বিক্রেতা সারাবছর ফলফলাদি বিক্রি করেন। মৌসুমি ফলের বিক্রেতাও রয়েছেন শতাধিক।

নকলা শহরের ফল বিক্রেতা নাজমুল বলেন, দেশি ফলের উৎপাদন ও সরবরাহ না থাকায় বাজার বিদেশি ফলের দখলে চলে গেছে। বছরের এই সময়টাতে দেশি কোন ফল পাওয়া যায় না। তাই আপেল, কমলা, আঙ্গুর, বেদানা দিয়ে দোকান সাজিয়েছি। ক্রেতাদের কাছেও অল্প লাভে বিক্রি করি।

চন্দ্রকোনা বাজারের খুচরা ফল বিক্রেতা রতন চৌহান জানান, প্রতি কেজি আপেল-কমলা ১১০ টাকা, কালো আঙ্গুর ৩৫০ টাকা, সবুজ আঙ্গুর ২০০ টাকা, ছোট কমলা প্রতি প্যাকেট ১২০ টাকা দামে পাইকারি কিনে ১০-২০ টাকা লাভে বিক্রি করি।

আরেক ব্যবসায়ী মকবুল বলেন, দৈনিক ১০-১২ কেজি আপেল, ৬-৭ কেজি কমলা, দেড় থেকে ২ কেজি কালো আঙ্গুর, ৫-৬ কেজি সবুজ আঙ্গুর, ৮-১০ প্যাকেট ছোট কমলা বিক্রি হয়। লাভও বেশি হয়না। চাহিদা কম থাকায় অনেক সময় ফল পচে যায়।


ডেইলি বাংলাদেশ/এআর