Alexa বিজিবি-বিএসএফ সেক্টর কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক 

ঢাকা, সোমবার   ২২ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ৭ ১৪২৬,   ১৮ জ্বিলকদ ১৪৪০

ভোমরা স্থল বন্দর 

বিজিবি-বিএসএফ সেক্টর কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক 

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:২৯ ১২ মার্চ ২০১৯   আপডেট: ১৫:৩২ ১২ মার্চ ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

সাতক্ষীরার ভোমরা স্থল বন্দর কাষ্টমস হাউস সম্মেলন কক্ষে মঙ্গলবার দুপুরে বিজিবি-বিএসএফের সেক্টর কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক শুরু হয়েছে।   

চার ঘন্টার এই পতাকা বৈঠকে মাদক ও চোরাচালান প্রতিরোধ, সীমান্তে গুলি বর্ষণে নিহত ও আহত হওয়ার ঘটনা রোধ, অবৈধ অনুপ্রবেশ, নারী ও শিশু পাচার প্রতিরোধসহ সীমান্ত সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।  

বিজিবি জানায়, পতাকা বৈঠকে বাংলাদেশের ২৬ সদস্যের নেতৃত্ব দেন বিজিবির খুলনা সেক্টর কমান্ডার মো. আরশাদুজ্জামান খান। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন- খুলনা বিজিবি (পিবিজিএমএস) ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল ইমরান উল্লাহ, সাতক্ষীরা ৩৩ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল গোলাম মহিউদ্দীন খন্দকার, সাতক্ষীরা নীলডুমুর ১৭ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ মোস্তফা আসাদ ইকবাল, যশোর বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. সেলিম রেজা ও রিভাইন বর্ডারগার্ড কোম্পানির অধিনায়ক লে. কমান্ডার এম মিল্টন কবির।

বিএসএফ’র ১২ সদস্যের নেতৃত্ব দেন বিএসএফ’র কোলকাতা সেক্টর কমান্ডার ডিআইজি শ্রী রাজিবা রঞ্জন শর্মা। তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন, স্টাফ অফিসার (এডমিন) শ্রী তারনী কুমার তিউ, কমান্ডিং অফিসার শ্রী মনোজ কুমার বানোয়াল, কমান্ডিং অফিসার জেএস সান্ধু, কমান্ডিং অফিসার শ্রী অরুন কুমার, কমান্ডিং অফিসার শ্রী সুরেন্দ্র শিং, কমান্ডিং অফিসার শ্রী রবি ভূষন, কমান্ডিং অফিসার শ্রী বিজয় ডিমরি প্রমুখ।  

বৈঠকের উদ্ধৃতি দিয়ে সাতক্ষীরার ৩৩ বিজিবি ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল গোলাম মহিউদ্দিন খন্দকার বলেন, আলোচনায় মাদকদ্রব্য পাচারে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতি পূনর্ব্যক্ত করা হয়েছে। এ জন্য বিএসএফকে আরো কড়া অবস্থান নিতে হবে।

 এছাড়া অবৈধ অনুপ্রবেশ রোধ, অবৈধ অস্ত্র পাচার এবং নারী ও শিশু পাচার রোধে দুই পক্ষই একমত পোষণ করেছেন। ভারতীয়দের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, চোরাচালানিরা প্রায়ই  বিএসএফ সদস্যদের ওপর হামলা করে থাকে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। 

এ বিষয়ে বিজিবি ও বিএসএফ আরো সতর্কতা অবলম্বন করবে বলে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে  চারঘণ্টাব্যাপী এই সমন্বয় বৈঠকে বিজিবি ও বিএসএফ  সীমান্তের অপরাধ দমনে নিজ নিজ  ভূখন্ডে অবস্থান করে এক ও অভিন্ন লক্ষ্যে কাজ করে যাবে বলেও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। 

দীর্ঘ সময়ের এ পতাকা বৈঠকে সীমান্তে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য অপরাধ দমনে বিজিবি ও বিএসএফ একযোগে কাজ করবে বলে ঐকমত্য প্রকাশ করেন। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে