Alexa বিচারের অপেক্ষায় আতিক-কুদ্দুছের স্বজনরা

ঢাকা, সোমবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৮ ১৪২৬,   ২৩ মুহররম ১৪৪১

Akash

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত

বিচারের অপেক্ষায় আতিক-কুদ্দুছের স্বজনরা

শরীফুল ইসলাম, চাঁদপুর ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০০:০৪ ২১ আগস্ট ২০১৯   আপডেট: ০০:০৮ ২১ আগস্ট ২০১৯

ডেইলি বাংলাদেশ

ডেইলি বাংলাদেশ

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের তালিকায় আছেন আতিক উল্ল্যাহ ও আব্দুল কুদ্দুছ। দুজনের বাড়ি চাঁদপুর জেলায়। আতিক মতলব উত্তরের পাঁচআনী গ্রামের আর কুদ্দুছ হাইমচর উপজেলার।  

তাদের পরিবারের সদস্যরা বিচার দ্রুত শেষ করার দাবি জানিয়েছেন। দীর্ঘ ১৫ বছরেও এ হত্যাকাণ্ডের বিচার শেষ না হওয়ায় তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

ঘটনার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুইপরিবারকে ১১ লাখ টাকা করে অনুদান দিয়েছেন। এরপর আবার এ বছরের ১৩ এপ্রিল আতিক উল্ল্যাহর চার সন্তান ও স্ত্রীকে ২৫ লাখ টাকা এবং কুদ্দুছের ৮ ভাই-বোনকে ১৬ লাখ টাকা দিয়েছেন।

হাইমচরের আব্দুল কুদ্দুছ ছিলেন কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা। তার বড় ভাই হুমায়ুন কবির পাটওয়ারী বলেন, শুধু আমার ভাই নয়, ২১ আগস্টে শেখ হাসিনাকে বাঁচাতে গিয়ে ২৪ জন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে ছিলেন চাঁদপুরের দুজন। তাদের স্মৃতি ধরে রাখতে একটি মেডিকেল কলেজ করার দাবি জানানো হয়েছে।

অপরদিকে মতলব উত্তর উপজেলার পাঁচআনী গ্রামের আতিক উল্ল্যার স্ত্রী লাইলী বেগম বলেন, ২১ আগস্টে স্বামীর মারা গেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার পরিবারকে যেভাবে সহযোগিতা করেছেন তাতে আমি ওনার কাছে কৃতজ্ঞ। কিন্তু এতো বছর পরও স্বামী হত্যার বিচার না হওয়ায় আমি চিন্তিত।

মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ কুদ্দুস জানান, শুধু কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়েই ওইসব পরিবারের শোক মুছে ফেলা যাবে না। অপরাধীরা শাস্তি পেলে কিছুটা হলেও তারা শান্তি পাবে। তাই দ্রুত বিচার দাবি করেন তিনি।

হামইচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটওয়ারী বলেন, বিভিন্ন সময়ে নিহতদের পরিবারের পাশে থেকে সহযোগিতা করেছে আওয়ামী লীগ নেতারা। তাদের পরিবারের সঙ্গে আমরাও হত্যার বিচার দাবি করছি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম