বার্ড স্ট্রাইকেও হতে পারে বড় দুর্ঘটনা

.ঢাকা, শুক্রবার   ২৬ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ১৩ ১৪২৬,   ২০ শা'বান ১৪৪০

বার্ড স্ট্রাইকেও হতে পারে বড় দুর্ঘটনা

 প্রকাশিত: ১৭:২৮ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৯:৫৭ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বিমান ঘিরে একঝাক পাখি

বিমান ঘিরে একঝাক পাখি

 

একটা সময় আকাশ ছিল শুধু পাখিদের দখলে। কিন্তু এখন সেইস্থানটি দখল করে নিয়েছে বিভিন্ন ধরনের ও আকারের বিমান। একটি উড়ন্ত বিমানের ডানায় বা পাইলের সামনের উইন্সস্ক্রিনে পাখি আঘাত করলে কি ঘটে? এই একটি প্রশ্ন যা মানুষের মনে অধিকাংশ সময় আঘাত করে, কিন্তু তাদের মধ্যে খুব কমই আছেন যারা জানেন উড়ন্ত পাখি উড়োজাহাজের সাথে ধাক্কা লাগলে ঠিক কি বিপর্যয় ঘটতে পারে। দৃশ্যত, যখন একটি পাখি প্লেনের ডানায় বা প্রপেলারে আঘাত করে, ইঞ্জিন সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যায়। পাইলটদের বিশেষ করে এই ধরনের ঘটনাগুলিতে জরুরি অবতরণের জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

প্রতিবছর, এই ঘটনার ফলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাদের প্লেনের রক্ষণাবেক্ষণে অতিরিক্ত ১১২ কোটি ডলার খরচ করে। এই খরচের শুধুমাত্র একটি ছোট পরিমাণ বিমান ঠিক করতে ব্যয় হয়, ফ্লাইট বিলম্ব এবং বাতিলের কারণে ক্ষতির পরিমাণ সবচেয়ে বেশি।

ইন্টারন্যাশনাল সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশন (আইসিএও) ২০১১-১৪ সালে ৬৫ হাজারেও বেশি বার্ড স্ট্রাইকের কথা জানিয়েছে। বার্ড স্ট্রাইকটি বেশি ঘটে টেকঅফ এবং ল্যান্ডিংয়ের সময় কারন তখন উড়োজাহাজটি কম উচ্চতায় থাকে। জুলাই থেকে অক্টোবরের মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক আঘাত ঘটে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বার্ড স্ট্রাইকের জন্য সবচেয়ে বেশি দায়ি ঈগল ও শঙ্খচিল। পাখি ছাড়াও, কখনও কখনও বড় প্রাণীও বিমানের জন্য সমস্যা তৈরি করে (বা হতে পারে বিমান এইসব পশুদের জন্যে সমস্যা তৈরি করছে)। মার্কিন বেসামরিক বিমানগুলো নেকড়ের সঙ্গে ৪৪০টিরও বেশি এবং হরিনের সঙ্গে হাজারেরও বেশি সংঘর্ষের হওয়ার প্রতিবেদন করেছে।  

ইতিহাসে, অরভিল রাইট ১৯০৫ সালে প্রথমবার পাখির আঘাতের সম্মুখীন হয়েছিল। ১৯৮৮ সালে টেকঅফের সময় পায়রা ইঞ্জিনে আঘাত করে এবং বিমান দুর্ঘটনায় পড়ে ৩৫ জন যাত্রী মারা যায়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসজেড