Alexa গোল্ডেন বুট জিততে নেপালের নোংরা নাটক

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৬ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ২ ১৪২৬,   ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪০

গোল্ডেন বুট জিততে নেপালের নোংরা নাটক

 প্রকাশিত: ১৯:৫৮ ৯ অক্টোবর ২০১৮   আপডেট: ১৯:৫৮ ৯ অক্টোবর ২০১৮

ছবি সংগৃহীত

ছবি সংগৃহীত

ভুটানে সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ নারী ফুটবলে চ্যাম্পিয়নের মুকুট বাংলাদেশি কিশোরীদের। এছাড়া ফেয়ার প্লে এওয়ার্ডও জিতেছে তারা। আর তাতে অসাধারণ পারফর্ম করা বাংলাদেশি স্ট্রাইকার সিরাত জাহান স্বপ্নার সাত গোল রেখেছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। অন্যদিকে রানার্স আপ নেপালের রেখা পাউডেলেরও ৭ গোল। সর্বোচ্চ গোলদাতার গোল্ডেন বুট পুরস্কার নির্বাচন করতে গিয়ে তাই টস করতে হলো। তাতে বঞ্চিত হন স্বপ্না। আর এই টসে বিতর্কিত আচরণ নেপাল স্ট্রাইকার পাউডেলের।  

রোববার ফাইনাল শেষে সর্বোচ্চ গোলদাতা হিসেবে স্বপ্নার নামই ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু পরে জানা যায় পাকিস্তানের বিপক্ষে একটি গোল স্বপ্না নয়, সানজিদার নামে রেকর্ডভুক্ত করা হয়েছে। সেদিন সানজিদার শট গোললাইন অতিক্রম করার পর বলে মাথা ছুঁইয়েছিলেন স্বপ্না না জেনেই। আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে ১৭-০ গোলে জয় পায় বাংলাদেশ। ওই ম্যাচে ৬ গোল করেন স্বপ্না।

গ্রুপে দ্বিতীয় ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে জয়ের ম্যাচে এক গোল পান তিনি। তবে ইনজুরির কারণে সেমিফাইনাল ও ফাইনালে খেলতে পারেননি স্বপ্না। ফলে রেখা পাউডেলের সঙ্গে ৭ গোল নিয়ে যৌথভাবে সেরা ছিলেন তিনিও।

গোল্ডেন বুট নির্বাচনে তাই প্রয়োজন হয় টসের। কিন্তু সেই টসেই বিতর্ক ও নাটক ছড়ালো নেপালি মেয়েরা। প্রথমে টসে জিতেছিলেন স্বপ্নাই। কিন্তু সেটি মানতে চায়নি নেপালি প্রতিদ্বন্দ্বী। পরের বার টসের ফল যায় স্বপ্নার বিপক্ষে।

স্বপ্না অবশ্য বিরক্ত এই টসের নাটক নিয়ে, ‘প্রথমে জানলাম  আমিই সর্বোচ্চ গোলদাতা। কিন্তু পরে শুনি আমার গোল সাতটি ও নেপালের রেখারও গোল সাতটি। তাই টস হলো। টসেও প্রথমে আমি জিতেছিলাম। কিন্তু রেখা মানতে রাজি না হওয়ায় দ্বিতীয় টসে ও জিতে যায়।

নেপালি প্রতিদ্বন্দ্বী কেন টস মেনে নিলো না সেটিও বুঝতে পারিনি।’ এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন জানান, ম্যাচ কমিশনারের হাত থেকে কয়েন ফসকে পড়ে গেছে এই অভিযোগ তুলে রেখা পাউডেল প্রথম টসের ফল মানতে চায়নি। রোববার ফাইনালে ডিফেন্ডার মাসুরা পারভীনের একমাত্র গোলে নেপালকে হারিয়ে শিরোপা উৎসব করে বাংলাদেশ।

কিন্তু সবকিছু ছাপিয়ে গোল্ডেন বুট জিততে নেপালি মেয়েদের নোংরা নাটক বেশ বিতর্ক ছড়ায়। তাও এমন একটি দলের সামনে যারা কি না শুধু চ্যাম্পিয়নশিপই নয়, ফুটবলে মার্জিত আচরণ করে ফেয়ার প্লে’র পুরষ্কারও ঘরে তুলেছে। স্বপ্নাদের কাছে থেকে নেপালি মেয়েদের তাই যথেষ্টই শেখার আছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ