Alexa ‘বাজেট বাস্তবায়নে বছরের শুরু থেকেই সুষ্ঠু তদারক জরুরি’

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ৫ ১৪২৬,   ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

‘বাজেট বাস্তবায়নে বছরের শুরু থেকেই সুষ্ঠু তদারক জরুরি’

 প্রকাশিত: ২০:১৩ ৩ জুন ২০১৭  

অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বাস্তবায়নে দক্ষতা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়েছে দেশের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই বলেছে, ৪ লাখ ২৬৬ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। তবে বাজেট বাস্তবায়নে অর্থায়ন ও অর্থ ব্যয় সঠিকভাবে করতে না পারায় প্রতিবছরই বাজেট সংশোধন করতে হয়। তাই বাজেট বাস্তবায়নে বছরের শুরু থেকেই সুষ্ঠু তদারক করা জরুরি। বাজেট বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে দক্ষতা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে। অন্যথায় এই বিশাল বাজেট বাস্তবায়ন বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দেখা দেবে। আগামী অর্থবছরের ঘোষিত বাজেট নিয়ে শনিবার বিকেলে সহযোগী সংগঠনগুলোকে নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলে এফবিসিসিআই। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন। সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ ১৫ শতাংশ ভ্যাট মূল্যস্ফীতি বাড়াবে, আবগারি শুল্ক আমানতকে নিরুৎসাহিত করবে বলে মন্তব্য করা হয়। পাশাপাশি গ্যাস-বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি না করার আহ্বান জানানো হয়েছে। লিখিত বক্তব্যে শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, নতুন বাজেটে ঘাটতি দাঁড়াচ্ছে প্রায় ১ লক্ষ ১২ হাজার ২৭৬ কোটি টাকা, যা জিডিপির ৫ শতাংশ। বাজেট ঘাটতি পূরনের জন্য সরকারের ব্যাংক খাত থেকে ঋণ নেয়ার প্রবণতা বাড়তে পারে। ব্যাংক খাতের ওপর নির্ভলশীলতা উৎপাদনশীল খাতে ঋণের প্রবাহ কমিয়ে দিতে পারে। তিনি আরো বলেন, ভ্যাট আইন বাস্তবায়নের পূর্বে এর প্রভাব পর‌্যালোচনা (ইমপ্যাক্ট এসেসমেন্ট) করতে বলেছিলাম। কিন্তু এ বিষয়ে কোন উদ্যোগে নেয়া হয়নি। আগামীতে একটি স্বাধীন সংস্থার মাধ্যমে ইমপ্যাক্ট এসেসমেন্ট করার জন্য এনবিআরে প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির কারণেও মূল্যস্ফীতি বাড়বে পারে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এতে মূল্যস্ফীতির পাশাপাশি শিল্প খাতকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। তাই আগামীতে গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি না করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, টার্নওভার করের সীমা ১ কোটি ৫০ লাখ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এক্ষেত্রে টার্নওভার ট্যাক্স ৩ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি করে ৪ শতাংশ করা হয়েছে। বর্তমান প্রেক্ষিতে টার্নওভার ট্যাক্স ৩ শতাংশ অপরিবর্তিত রেখে টার্নওভার করের সীমা ৫ কোটি টাকা বা যৌক্তিক পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া প্রয়োজন। ডেইলি বাংলাদেশ/এসএইচ