বাঙালির জয় চির অম্লান-অক্ষয়

ঢাকা, রোববার   ২৬ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪২৬,   ২০ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

বাঙালির জয় চির অম্লান-অক্ষয়

সজীবুল ইসলাম

 প্রকাশিত: ০০:২০ ২ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১২:০৩ ২ ডিসেম্বর ২০১৮

সজীবুল ইসলাম
তরুণ প্রতিশ্রুতিশীল সাংবাদিক সজীবুল ইসলাম। নিজগুণে আপন করে নিয়েছেন ঝুঁকিপূর্ণ এ পেশাটিকে। ২০১২ সাল থেকে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন বিভিন্ন গণমাধ্যমে। বর্তমানে ডেইলি বাংলাদেশের সহ-সম্পাদক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

মহান বিজয়ের মাস ডিসেম্বর। স্বাধীন বাংলাদেশের সব মানুষ মাতে বিজয়ের উৎসবে। আর তাই বাঙালীর সবচেয়ে খুশির মাস এটি। আমরা নতুনরা এ মাসে তোমাদের খুঁজে পাই। কারণ তোমরা এ উৎসব করতে জীবিত হয়ে শহীদি প্রাণে বের হও।

মাতৃভূমি বাংলা মা’কে এই দিনে স্বাধীনতার বিজয় মুকুট পরিয়ে দিতে মুক্তিবাহিনীর বীর শহীদ-গাজী নায়ক হয়েছিলে তোমরা। তোমাদের শহীদি আত্মার প্রতি নতুনরা জানাচ্ছি বিনম্র শ্রদ্ধা।

আর প্রেরণা নিচ্ছি শত্রুদের প্রতি তোমাদের ক্রোধ থেকে। যে ক্রোধে বার বার চিৎকার করে বলেছিলে ‘রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই’। ক্ষিপ্ত হয়েছিলে রাষ্ট্রদ্রোহীদের বিরুদ্ধে, যারা কেড়ে নিতে চেয়েছিল মায়ের ভাষা। যুদ্ধ করে ছিনিয়ে এনেছো মায়ের ও জাতির স্বাধীনতা। তোমরা সবাই বীর মুক্তিযোদ্ধা।

শুনেছি, তোমাদের কথা কেড়ে নেতে চেয়েছিলো পাক-শয়তানী জুলুম শত্রুপক্ষ। বর্বরতা চালিয়েছিল তোমাদের ওপর। প্রতিরোধ গড়তে চেয়েছিলো তারা। তোমরা ছিলে অপ্রতিরোধ্য, স্বপ্ন দেখতে স্বাধীনতার। আর তাই করেছো স্বাধীনতার যুদ্ধ, করেছো আত্মত্যাগ। এনে দিয়েছো জাতিকে স্বাধীনতার বিজয় উৎসব।

নতুনরা এখন বুকে জাগিয়ে রাখে বিজয়ের প্রেরণা, হৃদয়ে আঁকে বাংলাদেশ। তোমাদের ত্যাগ দেবে না বৃথা যেতে একটাই দৃঢ় প্রত্যয় তাদের। কবির ভাষায়-

 

লাল শোণিতের সাগর পেরিয়ে আমরা এনেছি বিজয়
সাত কোটি বীর বাঙালির জয় চির অম্লান-অক্ষয়।

ভুলিনি কিছুই, ভুলবারও নয় যতদিন এ মাটি রয়
প্রতি অন্তরে জ্বলজ্বল করে স্মৃতির দুঃসময়।

রক্ত প্লাবনে ধুয়ে মুছে যে নিশান গেঁথেছি বুকে
কোন বিনিময়ে ছিঁড়বে না তা, সব বাঁধা দেব রুখে।

সব শকুনের বিষদাঁত ভেঙে সরাবো অকল্যাণ
বাঙালি দেহে বাঙালি রক্ত যতদিন বহমান।

তাইতো ওরা অস্ত্র হাতে দাঁড়িয়ে আছে সীমান্ত পাহাড়ায়। বিশ্ব দরবারে অধিকার নিয়ে মুক্তকণ্ঠে বলতে শিখেছে, ‘সামনে কে.. রে..? বুট পায়ে, এ রাস্তা এখন আমার (বাঙালীর)।’

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই/টিআরএইচ/আরএ

Best Electronics