বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক আরো শক্তিশালী হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৫ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ১২ ১৪২৬,   ২১ শাওয়াল ১৪৪০

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক আরো শক্তিশালী হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৩২ ২৪ মে ২০১৯   আপডেট: ১০:৪৭ ২৫ মে ২০১৯

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স (এনডিএ) লোকসভা নির্বাচনে বিপুলভাবে জয়লাভ করায় অভিনন্দন জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

শুক্রবার বিকেলে সিলেটে গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন,ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দল ও জোট পুনরায় নির্বাচিত হওয়ার ফলে ভারত-বাংলাদেশ দুই দেশের সম্পর্ক আরো শক্তিশালী হবে। দুই দেশে স্থিতিশীল সরকার থাকলে আমরা উভয়ে উন্নয়নের দিক থেকে এগিয়ে যাবো। এ জন্য নরেন্দ্র মোদিকে অভিনন্দন জানাই।

ভারত-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদার হবে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, তাদের সঙ্গে গত কয়েক বছর ধরে যেভাবে কাজ করছি ভবিষ্যতেও তা অব্যাহত থাকবে।

তিস্তা চুক্তি প্রসঙ্গে অপর প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নিজের প্রথম সফরে ভারত গিয়ে আমি তিস্তা চুক্তি প্রসঙ্গে কথা বলেছি। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার এ চুক্তির বিষয়ে আন্তরিক। আমি মনে করি, এ সরকারের সময়ে এ সমস্যার সমাধান হবে।

এর আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিলেট সিটি কর্পোরেশন আয়োজিত মতবিনিময় সভায় যোগ দেন। মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। 

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন বলেন, উন্নয়নে কোন বৈষম্য নয়, সমতা চাই। উন্নয়ন কি হবে তা স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা নির্ধারণ করবেন।

তিনি জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে বলেন, জনগণের জন্য প্রকল্প তৈরি করুন, তা বাস্তবায়নে সবধরণের সহযোগিতা দেয়া হবে। যেসব এলাকায় বিদ্যালয় নেই সেখানে বিদ্যালয় বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিন। সিলেট-১ আসনের এমপি হিসেবে এ এলাকার উন্নয়নের জন্য সরকারের কাছ থেকে সবধরণের সহযোগিতা নিয়ে আসার চেষ্টা করবো।

সভায় বক্তব্য রাখেন- সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরী, প্যানেল মেয়র রোকসানা বেগম, কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, রেজোয়ান আহমদ, আজাদুর রহমান আজাদ, ফরহাদ চৌধুরী শামীম, একে লায়েক প্রমুখ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- সিটি কাউন্সিলর, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর, সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে