Alexa ‘বাংলাদেশে যৌথভাবে বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে’

ঢাকা, শুক্রবার   ২৩ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৮ ১৪২৬,   ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

কলকাতায় ট্রেড সামিটে এফবিসিসিআই সভাপতি 

‘বাংলাদেশে যৌথভাবে বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৫৯ ১৫ জুলাই ২০১৯   আপডেট: ২০:১১ ১৫ জুলাই ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশ উন্নত অর্থনৈতিক কাঠামোতে উন্নীত হচ্ছে। তাই সম্ভাবনাময় কিছু খাতে যৌথভাবে বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে বলে জানিয়েছেন এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম।

সোমবার কলকাতায় বাণিজ্য সম্মেলন সিডব্লিউবিটিএ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া ট্রেড সামিটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে এফবিসিসিআই সভাপতি তার প্রবন্ধে এ কথা বলেন।

নতুন বাণিজ্য সম্ভাবনা ও প্রতিবেশি দেশগুলোর মধ্যে আরো নিবিড় অংশীদারত্ব গড়ে তোলার লক্ষ্যে কলকাতায় শুরু হয়েছে এ বাণিজ্য সম্মেলন। এতে যোগ দেন বাংলাদেশর ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম। আগামীকাল ১৬ জুলাই এ সম্মেলন শেষ হবে।

এ সম্মেলনের লক্ষ্য হচ্ছে; প্রতিবেশী দেশগুলোর ব্যবসায়ী নেতাদের মধ্যে ব্যবসা সম্ভাবনার সন্ধান, বৈদেশিক বাণিজ্য সহজীকরণে সুপারিশমালা প্রণয়ন, রফতানি পণ্যের তালিকা নিয়ে আলোচনা ও তথ্য বিনিময়।

কলকাতার মেয়র ও মন্ত্রী ফরহাদ হাকিম প্রধান অতিথি হিসেবে দু’দিনের এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন। এ সময় পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশের অর্থমন্ত্রী ড. অমিত মিত্রও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

থাইল্যান্ড, বাংলাদেশ, নেপাল, ভূটান ও ভারতের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং ব্যবসায়ী নেতারা সম্মেলনে অংশ নিয়েছেন। কনফেডারেশন অব ওয়েস্ট বেঙ্গল ট্রেড অ্যাসোসিয়েশনস সম্মেলনটির আয়োজন করেছে।

এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম সম্মেলনের উদ্বোধন শেষে তার প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। প্রবন্ধে তিনি বাংলাদেশের উদার বিনিয়োগ নীতির উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশ সরকার বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য কর অবকাশ, কর অব্যাহতি, ট্যারিফ ফেরত, দ্বৈত কর প্রতিরোধ ও শতভাগ মালিকানাসহ পুঁজি হস্তান্তরের সুযোগ রেখেছে। 

এফবিসিসিআই সভাপতি বাণিজ্য বহুমুখীকরণে বাংলাদেশের তৈরি পোশাকের পাশাপাশি চামড়াজাত পণ্য, ওষুধ, হিমায়িত সামুদ্রিক খাদ্য, সিরামিক, পাটপণ্য, তথ্য প্রযুক্তি এবং হোম অ্যাপ্লায়েন্স ব্যবসায় সম্ভাবনা তুলে ধরেন। 

তিনি বলেন, বাংলাদেশ যেহেতু উন্নত অর্থনৈতিক কাঠামোতে উন্নীত হচ্ছে, তাই সম্ভাবনাময় কিছু খাতে যৌথভাবে কাজ করার সুযোগ রয়েছে। এর মধ্যে আছে- হালকা, মাঝারি ও ভারি শিল্পের জন্য যৌথ উদ্যোগে উচ্চ প্রযুক্তির গবেষণা, উন্নয়ন ও উদ্ভাবন। তৃতীয় শিল্প বিপ্লব থেকে ৪র্থ শিল্প বিপ্লবে উন্নীতকরণের সময় প্রয়োজনীয় জ্ঞান বিনিময়, বাণিজ্য, বিনিয়োগ এবং রাজস্ব কাঠামো ও নীতি পরিকল্পনার বিষয়ে প্রয়োজনীয় জ্ঞান বিনিময় এবং সমুদ্র অর্থনীতির বিকাশে যৌথ উদ্যোগ গ্রহণ।

সম্মেলন শেষে এফবিসিসিআই প্রতিনিধিদল আগামি ১৭ জুলাই ঢাকায় ফিরবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএসআই/আরএইচ

Best Electronics
Best Electronics