Alexa বাংলাদেশের হয়ে খেলছে বৃষ্টি!

ঢাকা, শনিবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৭ ১৪২৬,   ২২ মুহররম ১৪৪১

Akash

বাংলাদেশের হয়ে খেলছে বৃষ্টি!

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:৪০ ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১৪:১১ ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ম্যাচ জয় আফগানিস্তানের জন্য কেবলই সময়ের ব্যাপার। কিন্তু সেই সময় তারা পাবে তো? প্রবল বৃষ্টিতে খেলা শুরু হতে পারেনি চট্টগ্রাম টেস্টের শেষ দিনে। 

সারা রাত বৃষ্টি হয়েছে, সকালেও বৃষ্টি থামার কোনো লক্ষণ দেখা যায়নি। ফলে, চট্টগ্রামের আকাশের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আফগান খেলোয়াড় আর কর্মকর্তাদের মুখও গোমড়া হচ্ছে আস্তে আস্তে। আর হবে নাই–বা কেন? আর মাত্র চারটা উইকেট নিয়ে নিলে যেখানে তারা ইতিহাসের দ্বিতীয় টেস্ট জিতে যাবে, সহজ জয়ের পথে বৃষ্টি বাধা হয়ে দাঁড়ালে তাদের ভালো লাগবেই–বা কেন?

গতকালই দিনের খেলা শেষে বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বলেছিলেন, সৃষ্টিকর্তা এবং বৃষ্টি না চাইলে এই ম্যাচে হার এড়ানো সম্ভব নয়। সাকিবের কথা খুবই বাস্তব। আজ পঞ্চম দিনে ৪ উইকেটে ২৬২ রান তোলা চাট্টখানি কথা নয়। পুরো দিন খেলাও প্রায় অসম্ভব। সব সমস্যার সমাধান করে চট্টগ্রামে সকাল থেকেই মুষলধারে বৃষ্টি চলছে। পঞ্চম দিন একটি বলও মাঠে গড়ায়নি। যেন বাংলাদেশের হয়ে খেলছি বৃষ্টি!

৩৯৮ রানের বিশাল টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে গতকাল রোববার ৬ উইকেটে ১৩৬ রান তুলে চতুর্থ দিন শেষ করে বাংলাদেশ। ৪টা ৪০ মিনিটে বৃষ্টির কারণে খেলা বন্ধ না হলে হয়তো কালই পরাজয় দেখতে হতো সাকিবদের। সাকিব ৩৯* আর সৌম্য ০* রানে অপরাজিত আছেন।

বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংস সূচনা করেন লিটন দাস আর সাদমান ইসলাম। শুরুটা মোটামুটি ভালো হলেও ৩০ রানের জুটি জহির খানের বলে এলবিডাব্লিউয়ের ফাঁদে পড়েন লিটন দাস (৯)। আগের বলেই তিনি রিভিউ নিয়ে জীবন পেয়েছিলেন। তিনে নামা মোসাদ্দেক হোসেন ১২ রান করে সেই জহির খানের বলেই আত্মঘাতী শটে আউট হন। মুশফিকুর রহিম আজ ‘ডিপেন্ডেবল’ হয়ে উঠতে পারেননি। রশিদ খানের বলে ২৩ রানে এলবিডাব্লিউ হয়েছেন। রিভিউ নিয়েও আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত বদলানো যায়নি।

মুমিনুল হক ‘টেস্ট স্পেশালিস্ট’ খ্যাতি পেলেও রশিদ খানের ঘূর্ণি বুঝতে না পেরে এলবিডাব্লিউ হন ৩ রান করে। সাদমানের সঙ্গে সাকিব যোগ দিয়ে জুটি গড়ার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু জুটিতে ২৪ রান আসতেই মোহাম্মদ নবির বলে এলবিডাব্লিউ হয়ে যান ১১৪ বলে ৪১ করা সাদমান। ১১ রানে রশিদের সৌজন্যে একবার জীবনও পান সাকিব। টানা ব্যর্থ হওয়া মাহমুদউল্লাহ ৭ রান করে রশিদ খানের শিকার হন। শর্টে দুর্দান্ত ক্যাচ নেন ইব্রাহিম জারদান।

১৩৭ রানের লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংস খেলতে নামা আফগানিস্তান ২৬০ রানে অল-আউট হয়। এর আগে আফগানদের ৩৪২ রানের জবাবে ২০৫ রানেই অল-আউট হয়ে যায় বাংলাদেশ। চতুর্থ ইনিংসে সর্বোচ্চ ২১৫ রান তাড়া করার রেকর্ড আছে বাংলাদেশের। তাছাড়া চট্টগ্রামে বাংলাদেশ চতুর্থ ইনিংসে কখনোই রান তাড়া করে জিততে পারেনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই