বরিশালে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যু, আটক ২

ঢাকা, বুধবার   ২৭ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪২৭,   ০৩ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

বরিশালে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যু, আটক ২

বরিশাল প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:২৮ ২২ মে ২০২০   আপডেট: ১৫:৩৫ ২২ মে ২০২০

কথিত চিকিৎসক ও আনোয়ারা ক্লিনিক অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক হেদায়েত উল্লাহ

কথিত চিকিৎসক ও আনোয়ারা ক্লিনিক অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক হেদায়েত উল্লাহ

বরিশালের গৌরনদীতে ভুল চিকিৎসায় আফরোজা আক্তার মুন্নী নামে এক প্রসূতি ও তার গর্ভজাত সন্তানের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। 

এ ঘটনায় আনোয়ারা ক্লিনিক অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট অজয় হালদার ও অপারেশন থিয়েটারের সহযোগী রিপন মিস্ত্রিকে আটক করেছে পুলিশ।

ঘটনার পর পরই ক্লিনিক থেকে পালিয়ে গেছে কথিত চিকিৎসক ও আনোয়ারা ক্লিনিক অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক হেদায়েত উল্লাহ। ভুল চিকিৎসায় মৃত প্রসূতি উজিরপুর উপজেলার শোলক ইউপির দত্তেস্বর গ্রামের কুদ্দুস তালুকদারের স্ত্রী।

গৃহবধূর স্বজনরা জানায়, প্রসব বেদনা শুরু হওয়ার পর অস্ত্রোপচারের জন্য মুন্নীকে বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। বিকেলে অস্ত্রোপচারের জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক চিকিৎসককে সার্জন হিসেবে উপস্থিতি করে হেদায়েত উল্লাহ ওই প্রসূতিকে ভুল এ্যানেসথেসিয়া পুশ করার সঙ্গে সঙ্গে তার মৃত্যু হয়। 

তাৎক্ষণিক বিষয়টি ধামাচাঁপা দিতে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ রোগীর অবস্থা খারাপ বলে শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানোর জন্য অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে আসে।

ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যুর বিষয়টি জানতে পেরে সন্ধ্যায় তার স্বজনরা বিক্ষোভ করে। এর আগে হেদায়েত উল্লাহসহ অন্য চিকিৎসক কৌশলে ক্লিনিক থেকে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে রাতে গৃহবধূ আফরোজা আক্তার মুন্নীর মরদেহ উদ্ধার করে। এ সময় ক্লিনিকের দুইজন স্টাফকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, বিষয়টি ধামাচাঁপা দেয়াসহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত এক চিকিৎসককে রক্ষার জন্য একটি মহল জোর প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। 

গৌরনদী মডেল থানার ওসি মো. গোলাম ছরোয়ার জানান, এ ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী কুদ্দুস তালুকদার থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হবে।

হেদায়েত উল্লাহ একজন ফার্মাসিস্ট হয়েও নিজেকে এমবিবিএস চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে দীর্ঘদিন থেকে অপচিকিৎসা দিয়ে আসছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। গত বছরের মে মাসে অপচিকিৎসার অভিযোগে হেদায়েত উল্লাহ গ্রেফতার হয়। বেশ কিছুদিন কারাভোগ করে জামিনে বের হয়ে পুনরায় অপচিকিৎসা শুরু করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে