ঢাকা, শনিবার   ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯,   ফাল্গুন ১১ ১৪২৫,   ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪০

বরখাস্ত সেনা কর্মকর্তার সন্ধানে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চান স্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

 প্রকাশিত: ১৪:৪৯ ৭ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৪:৪৯ ৭ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

নিখোঁজের চারমাস পেরিয়ে গেলেও কোনো সন্ধান মেলেনি বরখাস্ত লেফটেন্যান্ট কর্নেল হাসিনুর রহমানের। তার খোঁজ পেতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন স্ত্রী শামীমা আখতার।

শুক্রবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ক্রাইম রিপোর্টার্স বহুমুখী সমবায় সমিতির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

শামীমা আখতারের দাবি, তার স্বামী হাসিনুর নির্দোষ এবং তিনি কোনো অন্যায়ের সঙ্গে জড়িত নন। তিনি একজন দেশপ্রেমিক মানুষ। সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দীর্ঘ ২৮ বছর সেনাবাহিনীতে কাজ করেছেন। দেশের প্রতি অবদানের জন্য তিনি বীর প্রতীক, বিপিএম ও বাংলাদেশ রাইফেলস পদক পেয়েছেন। 

এর আগে গেল ৮ আগস্ট রাত ১০টার দিকে ঢাকার মিরপুর ডিওএইচএসের বাসার পাশ থেকে হাসিনুর রহমানকে তুলে নেয়ার অভিযোগে  ৯ আগস্ট পল্লবী থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন শামীমা আখতার। 

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, সেদিন রাত ১০টা ২০ মিনিটে দুটি মাইক্রোবাসে আনুমানিক ১৪ থেকে ১৫জন সাদা পোশাকধারী লোক মিরপুর ডিওএইচএস থেকে তাকে উঠিয়ে নিয়ে যায়। 

প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে শামীমা বলেন, চার মাস পার হয়ে গেলো, এখনো তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। আমি ও আমার পরিবার তাকে ছাড়া অসহায় অবস্থান দিন কাটাচ্ছি। স্বজন হারানোর বেদনা আমার মতো করে আপনারা কেউ বুঝবেন না। 

এ বিষয়ে আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি। তিনিই আমার শেষ আশ্রয়স্থল। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার আবেদন, তিনি যেনো আমার স্বামীকে খুঁজে বের করার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দেন।

সেনাবাহিনীতে চাকরির সময় হাসিনুর রহমান রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় দণ্ডিত হয়ে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ভোগ করেন। পরে ২০১৪ সালে তাকে মুক্তি দেয়া হয়। হাসিনুর রহমান একসময় র‌্যাব-৫ ও র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক ছিলেন। এছাড়া বেশ কিছুদিন তিনি বিজিবিতেও ছিলেন। 

ডেইলি বাংলাদেশ/ইএ/ আরএইচ/এসআইএস