Alexa ববি’র ভেলুর ধ্যান-জ্ঞান বৃদ্ধ বাবা-মা

ঢাকা, সোমবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৮ ১৪২৬,   ২৩ মুহররম ১৪৪১

Akash

ববি’র ভেলুর ধ্যান-জ্ঞান বৃদ্ধ বাবা-মা

ববি প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৮:৪৬ ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৮:৪৬ ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

মাঝে মাঝে পত্রিকার পাতায় চোখ বুলালেই আমরা দেখতে পাই বৃদ্ধ পিতা- মাতা  কে রাস্তায় বা বৃদ্ধাশ্রমে ফেলে রেখেছে সন্তান। তবে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) কর্মচারী ইলিয়াস কাঞ্চন ওরফে ভেলু হাওলাদার সেইসব মানুষের অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত; যারা মা- বাবার সেবায় নিজেকে আজীবন নিয়োজিত করতে পেরেছেন।

ভেলু হাওলাদার বরিশাল জেলার, উজিরপুর উপজেলার, ভরসাকাঠী গ্রামে বসবাস করেন। পাঁচ ভাই - বোনের মাঝে ভেলু সবচেয়ে ছোট। পিতা মো: মৌজে আলী হাওলাদার। বয়স ১১৫(আনুমানিক) । মাতা : মোছা: লাল বরু বেগম। বয়স ১০৫ বছর।

ছোট কাল থেকেই  পিতা- মাতার প্রতি ছিল ভেলুর  অগাধ শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা। দীর্ঘ কাল মা - বাবা দুই জনই অসুস্থ। প্যারালাইজড হয়ে বিছানাসজ্জায় পড়ে আছেন। ভেলু দিন রাত মা -বাবার সেবায় নিজেকে আত্মনিয়োগ করেছেন। অসুস্থ মা-বাবাকে গোসল করানো, খাওয়ানো, নিজ হাতেই  করেন। প্যারালাইজড মা-বাবা হাঁটতে পারেন না। বিছানায় মলমূত্র ত্যাগ করেন। কখনো একটু দ্বিধা কাজ করে না ভেলুর এসব পরিষ্কার - পরিচ্ছন্ন করতে।

মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্ম নেওয়া ভেলু বর্তমানে ববির সাংবাদিকতা বিভাগে অফিস সহায়ক হিসেবে কাজ করেন। দীর্ঘ সময় মা- বাবা অসুস্থ থাকায় সংসার পরিচালনায় হিমশিম খেতে হয়। বৃদ্ধ মা-বাবা কোন সরকারি ভাতাও পায় না। ফলশ্রুতিতে সংসার পরিচালনা ভেলুর একার পক্ষে কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে।

ভেলু স্থানীয় আওয়ামীলীগ রাজনীতির সঙ্গেও জড়িত। রাজনীতির সুখে দু:খে তার রয়েছে অনেক অবদান। জীবনের সর্ব ক্ষেত্রে মানুষের কল্যাণে কাজ করেছেন তিনি। পেয়েছেন গ্রামের সকল শ্রেণির মানুষের ভালোবাসা,স্নেহ, মমতা। এলাকায় একজন সমাজ সেবী, মাতৃ- পিতৃ ভক্ত সেবক হিসাবে তিনি যথেষ্ট পরিচিত।

মাতা- পিতার সেবার ব্যাপারে ভেলু হাওলাদার কে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, মা- বাবার সেবা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ইবাদত। এটা সবার ভাগ্যে জোটে না। ভাগ্যবানরায় এটা পায়। পিতা- মাতার সেবা করে অলি, আউলিয়া হওয়া যায়। স্বর্গীয় সুখ ভোগ করা যায়। তাই আমি আমার জান্নাতি দায়িক্ত পালন করি মাত্র। "

পুরো বিশ্ববাসীকে ভেলু আহ্বান করে বলেন, কোন সন্তান যেন তার পিতা - মাতাকে কোন বিষয়ে অবহেলা না করেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে হলেও যেন মা- বাবার সেবা করেন। মা- বাবার মতো আপন পৃথিবীতে কেউ নেই। জান্নাতের সুখ শান্তি পিতা - মাতার সেবার মাঝেই নিহিত। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ