Alexa বন্যার্তদের পাশে লেখক সমাজ

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২২ অক্টোবর ২০১৯,   কার্তিক ৬ ১৪২৬,   ২২ সফর ১৪৪১

Akash

বন্যার্তদের পাশে লেখক সমাজ

ডেস্ক নিউজ ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:১২ ২৫ জুলাই ২০১৯   আপডেট: ২১:০৬ ২৫ জুলাই ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

চলমান বন্যা পরিস্থিতিতে বন্যার্তদের সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছেন লেখক সমাজ। সম্প্রতি ‘বন্যাকবলিত মানুষের পাশে লেখক সমাজ’ শিরোনামে বন্যার্তদের জন্য ত্রাণ সংগ্রহ শুরু করেছেন তারা।

এ উদ্যোগে উপদেষ্টামণ্ডলী হিসেবে রয়েছেন- হাসান আজিজুল হক, সেলিনা হোসেন, হাবীবুল্লাহ সিরাজী, সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, ইমদাদুল হক মিলন, নাসরীন জাহান, পাপড়ি রহমান, আহমাদ মোস্তফা কামাল।
সমন্বয়ক হিসেবে রয়েছেন- চঞ্চল আশরাফ, স্বকৃত নোমান, অরবিন্দ চক্রবর্তী, মোজাফফর হোসেন, হামিম কামাল, জাহরা জাহান পার্লিয়া, অপর্ণা হালদার।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ সংক্রান্ত একটি স্ট্যাটাস ঘুরছে দু’দিন ধরে। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে- ‘শতাব্দীর সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যায় বিপর্যস্ত উত্তরের জনপদ কুড়িগ্রাম। বিপদসীমার ১৫৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে ব্রহ্মপুত্র, তিস্তা, যমুনা, ধরলা, দুধকুমারসহ অন্যান্য শাখানদীর পানি। গত একশ বছরেও এমন দুর্যোগ দেখেনি ওই অঞ্চলের মানুষ। নেই খাদ্য, নেই বিশুদ্ধ পানীয়। দুর্গম এলাকা হওয়ায় ঠিকমতো পৌঁছাচ্ছে না ত্রাণ। ঘরে ঘরে খাদ্যের জন্য হাহাকার। ঘটছে মানবিক বিপর্যয়। বেঁচে থাকার জন্য কেউ খাচ্ছে লবণ দিয়ে শুকনো ভাত, কাঁচা কাঠাল, আলু আর কচু সেদ্ধ ইত্যাদি। এ পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছে ১৫ জন মানুষ। ভেসে যাচ্ছে বিস্তর বাড়িঘর, মারা পড়ছে অসংখ্য গবাদি পশু। এখনো ডুবে আছে কুড়িগ্রামের রৌমারি, চিলমারি, নাগেশ্বরী, রাজিবপুরসহ বিস্তীর্ণ জনপদ। বন্ধ রয়েছে প্রায় ৭৫৫টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। পানি কমার কোনো লক্ষণই দেখা যাচ্ছে না। এই পরিস্থিতিতে কুড়িগ্রামের বন্যাকবলিত মানুষদের পাশে দাঁড়াতে চায় লেখক সমাজ।

আপনারা জানেন যে, ২০১৬ ও ২০১৭ সালের ভয়াবহ বন্যার সময়ও লেখক সমাজ একটি উদ্যোগ নিয়েছিল। সে-বার লেখক-শিল্পী সমাজের উদ্যোগে বন্যাকবলিতদের মাঝে দুই দফায় বিতরণ করা হয়েছিল প্রায় ২৩ লাখ টাকা। এই টাকা দিয়েছিলেন আপনারাই। এবারও আমরা একই উদ্যোগ নিতে চাই, দাঁড়াতে চাই বিপন্ন মানুষের পাশে। কারণ, আমরা মনে করি, মানুষের এই সংকটকালে লেখকরা নির্বিকার থাকতে পারেন না। দেশ ও সমাজের প্রতি আমাদেরও দায়বদ্ধতা রয়েছে। আমাদের কোনো লেখালেখিই এই মুহূর্তে বন্যাকবলিত বিপন্ন, ক্ষুধার্ত মানুষের কোনো কাজে আসবে না। তাই আমরা যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী দিতে চাই অর্থসাহায্য ও খাবার। এই মুহূর্তে বন্যাকবলিত মানুষদের কাছে এক হাজার টাকা এক লাখ টাকার সমান। আশা করছি এবারও আপনারা এই উদ্যোগে সাড়া দিয়ে প্রাকৃতিক দুর্যোগকবলিত মানুষের পাশে দাঁড়াবেন। 

উল্লেখ্য, যারা অর্থসাহায্য দেবেন, জবাবদিহিতা ও স্বচ্ছতার প্রয়োজনে, আমরা তাদের নাম ও ছবি ফেসবুকে প্রকাশ করতে চাই। কেউ প্রকাশ করতে অনাগ্রহী হলে ফোন করে আমাদের জানাবেন, আমরা গোপন রাখব । শুধু টাকা পাঠিয়ে যে কোনো একজন সমন্বয়ককে অবহিত করলেই চলবে। আর নিম্নোক্ত বিকাশ, রকেট ও ব্যাংক একাউন্ট নম্বর ছাড়া অন্য কেউ যদি ‘বন্যাকবলিত মানুষের পাশে লেখক সমাজের’ নামে অর্থ সাহায্য চায়, দয়া করে আপনারা তাদের কাছে অর্থসাহায্য দেবেন না। পোস্টটি আপনাদের টাইমলাইনে পোস্ট দিয়ে আপনারাও হতে পারেন এই উদ্যোগের অংশীদার।

♦️অর্থসাহায্য পাঠানোর শেষ তারিখ : ৫ আগস্ট ২০১৯, রাত ১২.০০ টা।
:: অর্থসাহায্য পাঠানোর ঠিকানা ::
বিকাশ ও রকেট নম্বর (পার্সোনাল)
▪️স্বকৃত নোমান : ০১৮১৮২৩৮৩২০, ০১৯৭২২৩৮৩২০ 
▪️অরবিন্দ চক্রবর্তী : ০১৬৮১৪৬৮৫৫৪
▪️মোজাফফর হোসেন : ০১৭১৭৫১৩০২৩ (বিকাশ), ০১৭১৭৫১৩০২৩৬ (রকেট)
▪️জাহরা জাহান পার্লিয়া : ০১৬৭৪৫৬৩৯৩৯
▪️অপর্ণা হালদার : ০১৭৬৮১৭৯৯৯৫
.

:: ব্যাংক একাউন্ট নম্বর ::

১.
sakrito noman
1503202739897001
Brac Bank
Mogbazar Branch, Dhaka.
.
২.
Mojaffor Hossain
16815132388
Dutch-Bangla Bank Limited
Kushtia Branch, Kushtia.

৩.
Sakrito Noman
Dutch-Bangla Bank Limited
137.101.72952
Savar Bazar Branch
Savar, Dhaka..

সার্বক্ষণিক যোগাযোগ : ০১৯৭২২৩৮৩২০, ০১৭৫৭১৫০৬২৫, ০১৭১৭৫১৩০২৩, ০১৭৬০২৩৮৪৩৩, ০১৫৫২৪৭৪৪০০

ডেইলি বাংলাদেশ/আরআর