‘বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের পুরস্কৃত করেছিলেন জিয়াউর রহমান’

ঢাকা, বুধবার   ২২ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ৮ ১৪২৬,   ১৬ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

‘বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের পুরস্কৃত করেছিলেন জিয়াউর রহমান’

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:১৪ ১৩ মার্চ ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেছেন, জিয়াউর রহমান ছিলেন পাকিস্তানের এজেন্ট। বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীরা যারা প্রকাশ্যে দায় স্বীকার করেছিল, সেই খুনিদের পুরস্কৃত করেছিলেন জিয়াউর রহমান। অথচ তিনি তাদের বিচার করেনি।

তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান পাকিস্তানের ভাবধারীতে বিশ্বাসী এবং বঙ্গবন্ধু হত্যার মূল চক্রান্তকারী হিসেবে নিজেকে তুলে ধরেছিলেন। এর মধ্য দিয়ে জিয়াউর রহমান প্রমাণ করেছিলেন তিনি পাকিস্তানের এজেন্ট।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের আব্দুস সালাম হলে স্বপ্ন ফাউন্ডেশন আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু, স্বাধীনতা ও অগ্নিঝরা মার্চ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, ডাকসু নির্বাচন নিয়ে বিএনপি অফিস থেকে বিএনপির আবাসিক নেতা প্রতিদিন ব্রিফিং করছেন। মনে হচ্ছে এটা ছাত্রদের নির্বাচন না, বিএনপির নির্বাচন।

তিনি বলেন, প্রতিদিন ব্রিফিং করে কোথায় কি হচ্ছে, কার কি সমস্যা হচ্ছে এগুলা ব্যাখ্যা করে যাচ্ছেন। নিজেদের যদি লজ্জা বোধ থাকে তবে আমার মনে হয় এডাকসু নির্বাচন নিয়ে বিএনপির কথাবার্তা বলার আর সুযোগ থাকতে পারে না।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে ইঙ্গিত করে মাহবুব-উল আলম হানিফ ওই বক্তব্য রাখেন।

মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাকসু নির্বাচন হচ্ছে ছাত্রদের। এটা নিয়ে মূল দলের কেন মাথা ব্যথা থাকবে সেটা আমার জানা ছিল না।

তিনি আরো বলেন, বিএনপি’র এ আবাসিক নেতা প্রায়ই অসংলগ্ন কথা বলেন। কয়েকদিন আগে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে কথা বলেছেন।

হা]নিফ বলেন, আমি অবাক হই বিএনপি একটি বড় রাজনৈতিক দল, সেই দলের নেত্রীর সঙ্গে ইয়াবা ব্যবসায়ীর তুলনা করছেন। ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে তুলনা করে আসলে বিএনপি নেত্রী  খালেদা জিয়ার সম্মান এবং অবস্থানটা কতটা নিচে নামিয়ে আনেন তা যদি এ আবাসিক নেতা বুঝতেন তাহলে তিনি এ ধরনের উপমা দিতেন না।

তিনি বলেন, আমি আশা করব এ আবাসিক নেতা ভবিষ্যতে সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলার জন্য নিজেদের ভাবমর্যাদা নষ্ট করবেন না।

ডাকসু নির্বাচন নিয়ে মাহবুব আলম বলেন, গত পরশুদিন আমাদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ নির্বাচন হলো। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন প্রাক্তন ছাত্র হিসেবে আমি আনন্দিত হয়েছিলাম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ নির্বাচন হচ্ছে। এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আমরা কিছু অভিযোগ শুনেছিলাম, সব অভিযোগকে মিথ্যা প্রমাণ করে এ নির্বাচন হয়েছে এবং যারা নির্বাচিত হয়েছে তাদের অভিনন্দন জানাই।

তিনি বলেন, ধন্যবাদ জানাই আমাদের ছাত্রলীগ সভাপতিকে। যিনি নির্বাচিত ভিপিকে বরণ করে নিয়ে প্রমাণ করেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ধারণকৃত ছাত্র সংগঠন।

আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন- সাবেক খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, ঢাকা দক্ষিণ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলমমুরাদ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী এবং স্বপ্ন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই

Best Electronics