Alexa ‘ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো বুঝল না’

ঢাকা, বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯,   কার্তিক ২ ১৪২৬,   ১৭ সফর ১৪৪১

Akash

‘ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো বুঝল না’

ক্রীড়া প্রতিবেদক

 প্রকাশিত: ১৪:১৪ ২০ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৪:১৪ ২০ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ষষ্ঠ আসরে খেলতে পারবেন না স্টিভ স্মিথ। এর পিছনের কারণ জানিয়েছেন বিপিএল টেকনিক্যাল কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস।

২৮ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হয় বিপিএলের ষষ্ঠ আসরের ড্রাফট। এতে শ্রীলংকার আসেলা গুনারত্নেকে দলে ভিড়িয়েছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। কিন্তু বিপিএলের সময় এই ব্যাটিং অলরাউন্ডারকে পাবে না কুমিল্লা। তাই ড্রাফটের বাইরে থেকে এক মাস পর (২৭ নভেম্বর) দলে অন্তর্ভূক্ত করে অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথকে। যা নিশ্চিত করে একটি ভিডিও বার্তা পাঠিয়েছিলেন স্মিথ।

তবে টুর্নামেন্ট শুরুর প্রায় ২ সপ্তাহ আগে জানা গেল, এবারের বিপিএলে খেলতে পারবেন না স্মিথ। মূলত এই ব্যাটসম্যানকে ড্রাফটের বাইরে থেকে নেয়ার ফলে বাকি ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো বিপিএল কমিটির কাছে অভিযোগ করেছে। কেননা ড্রাফটের বাইরে থেকে বিদেশি খেলোয়াড় নেয়ার ব্যাপারটা বিপিএলের বাইলজে ছিল না। এরপরেও টুর্নামেন্টের স্বার্থে শুরুতে অনুমতি দেয় বিপিএল কমিটি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত নিয়মের মধ্যেই থাকতে হচ্ছে তাদের।
 
স্মিথের অন্তর্ভূক্তির বিষয়টি অনেক জটিল আকার ধারণ করায় বিপিএল কমিটি সিদ্ধান্তের জন্য বিসিবির কাছে পাঠিয়ে দেয়। এদিকে আজ (২০ ডিসেম্বর) জানানো হয়েছে, আসন্ন বিপিএলে খেলতে পারবেন না স্মিথ। এরইমধ্যে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স কর্তৃপক্ষকে স্মিথের ব্যাপারে নেয়া সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছে বিসিবি।

স্মিথ প্রসঙ্গে বিপিএল টেকনিক্যাল কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস বলেন, ‘ড্রাফটের বাইরে বিদেশি খেলোয়াড় নেয়ার ব্যাপারটা বাইলজে ছিল না। তবে টুর্নামেন্টের বৃহৎ স্বার্থে প্রথমে অনুমতি দিয়েছিলাম। অন্য ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো বিরোধিতা না করলে হয়তো অসুবিধা হতো না।

মূলত ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো মেনে না নেয়ায় বিপিএলে স্মিথের খেলা হচ্ছে না। জালাল ইউনুস আরো বলেন, ‘সবাই যখন রাজি হচ্ছে না তখন শেষ পর্যন্ত আমাদের না করতেই হলো। (বল টেম্পারিংয়ে) নিষেধাজ্ঞার পর বিপিএলের মতো টুর্নামেন্ট দিয়ে সে (স্মিথ) শুরু করতে চেয়েছিল, এটা আমাদের জন্য বড় একটা ব্যাপার ছিল। টুর্নামেন্টের ভালো ব্র্যান্ডিং হতো। কিন্তু ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো বুঝল না।’

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে