ফ্রান্স জুড়ে ৮৪ হাজার ইয়েলো ভেস্ট বিক্ষোভকারীর তাণ্ডব

ঢাকা, সোমবার   ১৭ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৫ ১৪২৬,   ১২ শাওয়াল ১৪৪০

ফ্রান্স জুড়ে ৮৪ হাজার ইয়েলো ভেস্ট বিক্ষোভকারীর তাণ্ডব

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

 প্রকাশিত: ১৬:০৭ ১৩ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৬:০৭ ১৩ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

সরকার বিরোধী বিক্ষোভে ফের উত্তাল হয়ে উঠেছে ফ্রান্সের রাজপথ। শনিবার নবম সপ্তাহের মতো ফ্রান্স জুড়ে প্রধানমন্ত্রী ইম্যানুয়েল ম্যাক্রোঁর সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ পালন করে ইয়েলো ভেস্ট বিক্ষোভকারীরা।

এদিন দেশজুড়ে ৮৪ হাজারেরও বেশি ইয়েলো ভেস্ট বিক্ষোভকারী বিক্ষোভে অংশ নেয় যা পূর্বের বিক্ষোভগুলোয় অংশগ্রহণকারী লোকের সংখ্যা থেকে অনেক বেশি। গেলো সপ্তাহের ইয়েলো ভেস্ট বিক্ষোভে ৫০ হাজারেরও বেশি লোক অংশগ্রহণ করেছিল।- খবর বিবিসি ও নিউজ ডটকমে’র

ইয়েলো ভেস্ট বিক্ষোভ ঠেকাতে ফ্রান্স সরকার দেশজুড়ে প্রায় ৮০ হাজার নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করে। এর মধ্যে শুধু দেশটির রাজধানী প্যারিসেই মোতায়েন করা হয় প্রায় ৫ হাজার পুলিশ সদস্য। 

প্যারিসে পুলিশ বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে জলকামান ও কাঁদানে গ্যাস ছুড়লে প্যারিসসহ দেশটির বিভিন্ন শহরে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। এতে সহিংস হয়ে ওঠে এ বিক্ষোভ। পুলিশ-বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষের ঘটনায় ২৪৪ জন বিক্ষোভকারীকে আটক করে পুলিশ। 

গেল নভেম্বরে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে গোটা দেশে এই বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে আন্দোলনের সূত্রপাত হলেও আস্তে আস্তে বিক্ষোভকারীরে সংখ্যা বাড়তে থাকলে তালিকায় যুক্ত হয় জীবন যাপনের ব্যয় বৃদ্ধিসহ অন্যান্য অনেক চাহিদার। গতকাল অন্তত ২৪৪ জন ইয়েলো ভেস্ট আন্দোলনকারীকে আটক করেছে পুলিশ। শুধু রাজধানী প্যারিসেই আটক করা হয়েছে ১৫৬ জনকে।

রাজধানী প্যারিসে হাজার হাজার নিরপত্তা কর্মকর্তা মোতায়েন করা হয়েছে। এর আগেও বিক্ষোভের দিনগুলোতে রাস্তায় পুলিশসদস্য ও বিক্ষোভকারীদের মধ্যে ব্যপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। বিক্ষোভকারীদের সামাল দিতে প্যারিসের বিভিন্ন রাস্তা ও গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় রায়ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেছেন, বিক্ষোভকারীদের এমন আন্দোলনের প্রেক্ষিতে আগামী ১৫ জানুয়ারি একটি জাতীয় বিতর্কের আয়োজন করা হবে। এই বিতর্কে ট্যাক্স, গ্রিন এনার্জি, প্রাতিষ্ঠানিক সংস্কার ও নাগরিকত্ব ইস্যু নিয়ে আলোচনা করা হবে। আর এই বিতর্ক একযোগে গোটা ফ্রান্সের বিভিন্ন শহরের টাউন হলে ইন্টারনেটের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হবে।

জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির কারণে গত ১৭ নভেম্বর থেকে ব্যাপক গণ-আন্দোলনের মুখে পড়েছে ফ্রান্সের ইমানুয়েল ম্যক্রোঁর সরকার। ‘ইয়েলো ভেস্ট’ আন্দোলনের চাপে পড়ে গত ১০ ডিসেম্বর জ্বালানি তেলের কর বৃদ্ধি বাতিল এবং অবসর ভাতা ও ওভারটাইমের আয়ের ওপর থেকে কর প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট। তবে এরপরও আন্দোলন চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী/এসআই