Alexa ফ্যাশন নয় চোখ সুরক্ষায় ‘সানগ্লাস’ 

ঢাকা, শনিবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৬ ১৪২৬,   ২১ মুহররম ১৪৪১

Akash

ফ্যাশন নয় চোখ সুরক্ষায় ‘সানগ্লাস’ 

আঁখি আক্তার  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:২৯ ৮ মে ২০১৯   আপডেট: ১২:৫৭ ৮ মে ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

অনেকেরই সানগ্লাস বেশ পছন্দের। সানগ্লাসকে ফ্যাশন হিসেবেই জানে অনেকেই। কিন্তু ধারনাটি ভুল, সানগ্লাস শুধু ফ্যাশনের জন্য নয় বরং রোদ থেকে চোখকে নিরাপদ রাখাতেই এটি ব্যবহার করা হয়। সূর্যের ক্ষতিকর অতি-বেগুনি রশ্মি চোখের ভেতরের অংশের ক্ষতি করে। সেজন্য চোখকে সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মির হাত থেকে রক্ষা করার জন্য সানগ্লাস ব্যবহার করা জরুরি। যদি আপনি অনেক সময় ধরে রোদে থাকেন তাহলে চোখে জ্বালাপোড়া, গ্লুকোমা, ছানিপড়া, ও বয়স বাড়ার সাথে সাথে দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়ার শঙ্কা বেড়ে যায়। তাই দীর্ঘ সময় রোদে থাকা থেকে বিরত থাকুন অথবা ওই সময় অব্যশই সানগ্লাস ব্যবহার করুন।

সানগ্লাস কেনায় সতর্কতা  
সানগ্লাস কেনার আগেই কয়েকটা জিনিস একটু খেয়াল রাখা দরকার। কারণ সানগ্লাস ভুলভাল কিনলে প্রভাব পড়তে পারে চোখের উপর। তাই সানগ্লাস কেনার আগে সতর্ক থাকুন কিছু বিষয়ে- 

১. চিকিৎসকের পরামর্শ
আপনার চোখে যদি কোন সমস্যা থাকে তবে অবশ্যই চশমা নেয়ার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং জেনে নিন কি ধরনের চশমা আপনার চোখের জন্য ভাল। তারপরেই চশমা বা সানগ্লাস কিনুন।

২. সঠিক পাওয়ার
আপনার চোখে পাওয়ার থাকলে, সেই নির্দিষ্ট পাওয়ারের সানগ্লাস পরা দরকার। ভুলেও দোকান থেকে যেকোনো সানগ্লাস কিনে চোখে পরবেননা। এতে আপনার চোখেরই ক্ষতি হবে।

৩. ব্র্যান্ড
সস্তায় স্টাইল বাড়াতে সানগ্লাস কেনাটা বোকামি। চশমার নানা রকম ধরণ আছে। তাই দাম দিয়ে চশমা কেনাটাই উচিত। ব্র্যান্ডেড চশমা কিনার পর যদি সেটায় আপনার চোখে অসুবিধা হয়, তাহলে বদলেও নিতে পারবেন সহজে।

৪. অনলাইন চশমা কেনা
আজকাল অনলাইনে সানগ্লাস কেনা বেশ সহজ। কিন্তু কেনার পূর্বে একবার পরিচিত দোকান বা চিকিৎসককে দেখিয়ে নিতে পারেন। সেটি চোখের জন্য উপযুক্ত কিনা, সেটা জেনে নেয়াই বুদ্ধিমানের কাজ। 

৫. শীতকালেও দরকার
শুধু গরম কালে রোদের তীব্রতা এড়াতেই সানগ্লাস পরতে হয়, এই ধারণাটি ভুল। শীতকালেও সানগ্লাস দরকার। কারণ, সূর্যের আলো আটকানোর পাশপাশি, বাতাসে ভাসমান নানা ধূলি কণা থেকেও চশমা রক্ষা করে আপনার চোখকে। 

সানগ্লাস ব্যবহারের উপকারিতা
রোদেলা দিনের প্রতি মুহূর্তে সানগ্লাস চোখকে সুরক্ষা করে। নারী-পুরুষ-নির্বিশেষে সকলের জন্যই এটি একটি দরকারি অনুষঙ্গ। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক সানগ্লাস ব্যবহারের উপকারিতাগুলো- 

১. দীর্ঘ সময় রোদে থাকলে বয়স বাড়ার সঙ্গে চোখের দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়া আশঙ্কাও বেড়ে যায়। তাই সানগ্লাস ব্যবহার জরুরি।

২. বাইসাইকেল ও মোটরসাইকেল চলন্ত অবস্থায় বাতাসের ধূলাবালি এবং পোকা-মাকড় আমাদের চোখে এসে পড়তে পারে। আর এসব ধূলাবালি ও পোকামাকড় থেকে সানগ্লাস রক্ষা পেতে সহায়তা করে। 

৩. লোহা, নাইলন, প্লাস্টিক, টাইটেনিয়ামসহ বিভিন্ন উপাদানে চশমা তৈরি করা হয় বলে এদের রয়েছে নিজস্ব কিছু সুবিধা-অসুবিধা। তাই নিজের প্রয়োজন অনুযায়ী চশমা কিনুন।

৪. চোখে প্রচুর আলো পড়লে ‘আইরিস’ ছোট হয়ে চোখ কুচকে যেতে পারে। এতে অক্ষিপটের ক্ষতি হয়। ভালো মানের সানগ্লাস ব্যবহার এই আলোর পরিমাণ ৯৭ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়ে দিতে পারে। 

৫. দীর্ঘ সময় রোদে থাকলে চোখের পাতা, চোখের চারপাশ, ত্বকে জ্বালাভাব, কালি পড়া, ভাঁজ পড়া সমস্যার দেখা দেয়। তাই সানগ্লাস ব্যবহার জরুরি।

৬. সূর্যের ক্ষতিকর অতি-বেগুনি রশ্মি কর্ণিয়া ও অক্ষিপটের ক্ষতি করে। সানগ্লাস চোখকে রশ্মি থেকে পুরোপুরি রক্ষা করে। তাই চোখকে রক্ষা করতে সানগ্লাস ব্যবহার করা জরুরি। 

চশমা নির্বাচনে সচেতনতা
সব চেহারার সঙ্গে সব ধরণের চশমা মানায় না। সেজন্য চশমা নির্বাচনের ক্ষেত্রে আপনাকে যা যা মনে রাখতে হবে-
১. রং, আকার ও আকৃতি। 
২. যাদের চেহারা ছোট তারা চিকন আকৃতি বেছে নিন। আর বড় চেহারার জন্য বড় গ্লাস মানানসই।
৩. যাদের গায়ের রঙ উজ্জ্বল তারা বেগুনি, সাদা, গোলাপি, লাল রংয়ের গ্লাস ব্যবহার করতে পারেন।
৪. যাদের ত্বক গাঢ় তারা কালো, কফি, বাদামি রঙের গ্লাস ব্যবহার করতে পারেন।
৫. চুলের স্টাইলের ওপর গ্লাস ব্যবহার করতে পারেন।

সানগ্লাসের দাম ও প্রাপ্তি স্থান 
রাজধানীর বিভিন্ন শপিং সেন্টারগুলো থেকে শুরু করে ফুটপাত প্রায় সবখানেই পাওয়া যায় চশমার ফ্রেম। রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোড, সাতমসজিদ রোড, ফার্মগেট, সিদ্ধেশ্বরী, বসুন্ধরা শপিংমল ছাড়াও নিউমার্কেট ইত্যাদি জায়গায় রয়েছে ভালো মানের চশমার দোকান। এছাড়া অনলাইন তো আছেই।  এসব জায়গায় ফ্রেমগুলোর মূল্য ৩০০ থেকে ২ হাজার টাকা। এছাড়া ব্র্যান্ডেড ফ্রেমগুলোর মূল্য ৩ হাজার ৫০০ থেকে ১৫ হাজার টাকা। নন-ব্র্যান্ড ও বিভিন্ন ব্র্যান্ডেড ফ্রেমে দামে পার্থক্য রয়েছে। বিদেশি ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে রয়েছে রে-ব্যান, লুসবাটন, শ্যানেল, গুচ্চি, ফাস্টট্র্যাক, কেরারা, পুলিশ, ডিএনজি, ওকলে, প্যারাডা, রিবন, সাফারি বা ক্রিশ্চিয়ান ডিওর। এসব ব্র্যান্ডের চশমার দাম পড়বে এক হাজার থেকে ২০ হাজার টাকার মধ্যে।

চশমার ফ্রেমটি অনেক সময় মানুষের ব্যক্তিত্ব প্রকাশ করে। আবার চশমার ফ্রেম খুব সহজেই চেহারায় পরিবর্তনও এনে দেয়। তাই সানগ্লাস শুধু পড়লেই হবে না। সেক্ষেত্রে অব্যশই ভালো মানের সানগ্লাস পড়তে হবে। কারণ ভালো সানগ্লাসের ব্যবহার ও নিয়মিত যত্নেই আপনার চোখ নিরাপদ থাকবে।

ডেইলি বাংলদেশ/এএ/জেএমএস