ফেসবুক লাইভে চলছে পাঠদান

ঢাকা, সোমবার   ০৬ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২৩ ১৪২৬,   ১২ শা'বান ১৪৪১

Akash

ফেসবুক লাইভে চলছে পাঠদান

নাছির উদ্দিন, মিরসরাই ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৪৯ ২৩ মার্চ ২০২০  

ফেসবুক লাইভে ক্লাস নিচ্ছেন কলেজের অধ্যক্ষ মো. সোহরাব হোসেন (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

ফেসবুক লাইভে ক্লাস নিচ্ছেন কলেজের অধ্যক্ষ মো. সোহরাব হোসেন (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

করোনাভাইরাসের আতঙ্কে ১৭ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। এতে অলস সময় পার করছেন শিক্ষার্থীরা। কিন্তু সেই সময় কাজে লাগিয়েছেন চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের মহাজনহাট ফজলুর রহমান স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষকরা। তারা ফেসবুক লাইভে পাঠদান কার্যক্রম চালাচ্ছেন।

বন্ধের পর থেকে প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এবং সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত ফেসবুক লাইভে এ পাঠদান চালানো হচ্ছে। এতে সব শিক্ষার্থীরাই বই নিয়ে পড়াশোনায় মগ্ন হয়েছেন। আর এ ক্লাসগুলো এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধের মতো কাজ করছে বলে শিক্ষার্থীদের অভিমত।

সোমবার সকালে কলেজ ক্যাম্প্যাসে গিয়ে দেখা গেছে, কলেজের কম্পিউটার ল্যাবে কয়েকজন শিক্ষক বসে আছেন। এ সময় হোস্টেল থেকে একজন শিক্ষক অনলাইনে পাঠদান করছেন। তার পাঠদান শেষে ল্যাব থেকে কলেজের অধ্যক্ষ সোহরাব হোসেন অ্যাকাউন্টিং বিষয়ে পাঠদানের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এ সময় কথা হয় তার সঙ্গে।

অধ্যক্ষ সোহরাব হোসনে বলেন, বন্ধের সময়টা শিক্ষার্থীরা এদিক-ওদিক ঘুরে ফিরে কাটাবে। তারা বই নিয়ে খুব একটা পড়াশোনা করবে না। আমরা শিক্ষকরাও অলস সময় পার করছি। তাই শিক্ষর্থীদের ও কলেজের স্বার্থে স্বেচ্ছায় কলেজের নির্ধারিত ফেসবুক পেজ থেকে লাইভে এসে বিভিন্ন বিষয়ে পাঠদান চালানো হচ্ছে। প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করেছি ও শিক্ষকদের একটি রুটিন করে দিয়েছি। যাতে তারা নিয়মিত পাঠদান চালাতে পারেন।

তিনি আরো বলেন, ফেসবুক লাইভে শিক্ষার্থীরা কমেন্ট বক্সে শিক্ষকদের প্রশ্ন করেন। পরে প্রশ্নের আলোকে উত্তর দেয়া হয়। কোনো শিক্ষর্থী লাইভে যুক্ত না হতে পারলে ফেসবুকে শেয়ার করা হয়।

শিক্ষকদের এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে অভিভাবকরা জানান, কলেজ বন্ধ হওয়ায় এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা কীভাবে ভালো ফলাফল করবে এ নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলেন তারা। কিন্তু শিক্ষকদের অনলাইন শ্রেণি কার্যক্রমে আশার আলো দেখা যাচ্ছে। শিক্ষার্থীরাও পড়াশোনায় মনোযোগী হচ্ছে।

কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী বিজ্ঞান বিভাগের বিথি আক্তার বলেন, বন্ধের কারণে চিন্তায় পড়ে গিয়েছি। শেষ মুহূর্তে ক্লাস না হলে ভালো ফলাফল কীভাবে করবো। কিন্তু শিক্ষকদের অনলাইনে ক্লাসের আয়োজনে অত্যন্ত খুশি। আমি ও আমার সহপাঠীরা লাইভে পাঠদানে অংশ নেই।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর