ঢাকা, শুক্রবার   ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯,   ফাল্গুন ৯ ১৪২৫,   ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪০

ব্রিজের পিলারের নিচে বাঁশের সাঁকো

কুমিল্লা প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৭:০৬ ১১ অক্টোবর ২০১৮   আপডেট: ১৭:০৯ ১১ অক্টোবর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

নির্মাণ কাজ শুরুর পাঁচ বছরেও চালু হয়নি কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার যাত্রাপুরের রঘুরামপুর-গাজীপুর গ্রামের সংযোগ ব্রিজটি। এতে চরম দুর্ভোগে আছেন ১০ গ্রামের মানুষ। 

এডিবির অর্থায়নে উপজেলা এলজিইডি থেকে ব্রিজটি বাস্তবায়ন করা হয়। ব্রিজের ঠিকাদার নাম মাত্র ৪টি খুটির উপর একটি ছাদের আস্তর দিয়ে যায়। এছাড়া ব্রিজে দেয়া হয়নি কোন সংযোগ সড়ক। এর দু’পাশের গোড়ায় নেই মাটি।  ফলে, ৫ বছরেও ব্রিজটি অত্র এলাকার জনগণের কোন কাজে আসেনি। ব্রিজের নিচে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করে সবার পারাপার হতে হয়। আর বর্ষা এলে নৌকা করে ঝুঁকি নিয়ে পারাপার করতে হয়।বাঁশের এই সাঁকো থেকে পড়ে অনেক হতাহতের ঘটনাও ঘটে।

রঘুরামপুর গ্রামের কৃষক বাদশা মিয়া ও সমীর মৃধা বলেন, শুধু এই ব্রিজের কারণে আমরা এখন অনেক কষ্টে আছি। জমিতে ফসল ফলানোর পর তা বিক্রির জন্য বাজারজাত করতে খরচ অনেক বেশী হয়। কৃষিপণ্য আনা নেওয়ায় খরচ বেশি পড়ায় আমরা বেশ ক্ষতির মধ্যে আছি।  

উচ্চমাধ্যমিকের শিক্ষার্থী  সজিব মৃধা, নাদিয়া আক্তার, জসিম উদ্দিন,আল-আমিন জানান, এই ব্রিজের কারণে কলেজে আসা যাওয়ায় আমাদের অনেক সমস্যা হয়। এটি কোন কাজেই আসে না। এ বিষয়ে সাবেক মেম্বার ফারুক হোসেন বলেন , ব্রিজটি চলাচলের অনুপোযুক্ত হওয়ায় এ সড়কে কোন রিকশা,গাড়ি চলে না। ছেলে মেয়েরা পড়াশুনাতে অনুৎসাহ হচ্ছে দিন দিন।  কৃষকরা কৃষি কাজে উৎসাহ হারাচ্ছে। আমাদের প্রাণের দাবি এই ব্রিজটি যেন চলাচলের উপযুক্ত করে দেয়া হয়।

যাত্রাপুর ৩নং ওয়ার্ডের  জহিরুল হক খোকন মেম্বার বলেন, ব্রিজটির ব্যাপারে আমি এমপি মহোদয়কে বেশ কয়েকবার অবহিত করেছি।  কিন্তু তেমন সাড়া পাইনি।

এই বিষয়ে কুমিল্লা-৩(মুরাদনগর) আসনের এমপি ইউছুফ আবদুল্লাহ হারুনের সঙ্গে কথা বলার জন্য তাকে একাধিকবার চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। 

ডেইলি বাংলাদেশ/টিপি/জেডএম