‘ফিক্সিংয়ের দায় শুধু খেলোয়াড়দের নয়, বোর্ডেরও’

ঢাকা, রোববার   ৩১ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৮ ১৪২৭,   ০৮ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

‘ফিক্সিংয়ের দায় শুধু খেলোয়াড়দের নয়, বোর্ডেরও’

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:২৮ ৯ এপ্রিল ২০২০  

পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক উইকেটরক্ষক রশিদ লতিফ -ফাইল ফটো

পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক উইকেটরক্ষক রশিদ লতিফ -ফাইল ফটো

ক্রিকেটের বিষ ফোঁড়া হলো ম্যাচ ফিক্সিং। তবে এ ব্যাপারে খেলোয়াড়দের সঙ্গে সঙ্গে বোর্ডের ও দায় আছে বলে মনে করেন পাকিস্তানের সাবেক উইকেটরক্ষক রশিদ লতিফ। দুর্নীতি দমনে শুধু খেলোয়াড়দের নানা বিধিনিষেধ মেনে চলতে বলে আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিট (আকসু)। কিন্তু টেকসই কোনো পদক্ষেপ নেয় না তারা। গতকাল নিজের ইউটিউব চ্যানেলে এসব কথাই বলেছেন পাকিস্তানি সাবেক এ ক্রিকেটার।

রশিদ লতিফ বলেন, ‘ম্যাচ পাতানোয় অভিযুক্ত খেলোয়াড়কে সব সময় সমর্থন দিয়ে এসেছে বোর্ডগুলো। কিন্তু আমরা শুধু খেলোয়াড়দের দোষ দেই। হ্যাঁ তারা অভিযুক্ত, তবে ক্রিকেট কর্তৃপক্ষের দোষও তো আছে’।

আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগ নিয়ে তিনি বলেন, ‘কিছু নির্দিষ্ট ব্যক্তি থেকে খেলোয়াড়দের দূরে থাকার কথা বলে আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগ। কিন্তু ক্রিকেটাররা এমন ফ্র্যাঞ্চাইজি দলে খেলছে যার মালিক হয়তো সেই ব্যক্তি। আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগ যার থেকে দূরে থাকতে বলেছে। এটা বড় সমস্যা।’

পাকিস্তানের সাবেক এ অধিনায়ক ফিক্সিংয়ের পুরো দোষ খেলোয়াড়ের কাঁধে চাপাতে রাজি নন। তাঁর ভাষায়, ‘পুরো দোষটা খেলোয়াড়কে দেব না। খেলোয়াড়েরা তো ঘুঁটি। বোর্ডের বড় কর্তারা তাদের ব্যবহার করে থাকে। ফিক্সিংয়ের পেছনে বড় ভূমিকা আছে বোর্ডেরও। বোর্ডের কোনো সদস্য এর সঙ্গে জড়িত না থাকলে খেলোয়াড়দের তারা শাস্তি দিতই। কিন্তু বোর্ডের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা। রাজনৈতিক কারণে যারা পদ পেয়েছেন। এর সঙ্গে তারা কোনো না কোনোভাবে জড়িত। এ কারণেই খেলোয়াড়েরা সব সময় সুরক্ষা পেয়ে আসছে’।

লতিফ যোগ করেন, ‘বিশ্বের সব জায়গার ক্রিকেট বোর্ডই খেলোয়াড়দের রক্ষা করে আসছে। ম্যাচ পাতানোর সঙ্গে জড়িত খেলোয়াড়দের রক্ষা করে আসছে প্রতিটি দেশ। এ কারণে টি-টোয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খুলে বলা হয়, যা করার এখানে করো, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নয়’।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএস