.ঢাকা, শুক্রবার   ২২ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ৭ ১৪২৫,   ১৫ রজব ১৪৪০

ফলে সুগারের পরিমাণ

ফাতিমাতুজ্জোহরা

 প্রকাশিত: ১৫:৪১ ১১ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৫:৪১ ১১ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

যারা ডায়বেটিস রোগী বা এ রোগ থেকে নিজেকে সতর্ক রাখতে চান তারা কিছু খাবার সম্পর্কে জেনে নিন। ডায়বেটিস হলে চিনি জাতীয় কিছু খাবার আমরা খাদ্য তালিকা থেকে বাদ দিয়ে থাকি। কিন্তু আমরা বেশ কিছু ফল খেয়ে নেই যেগুলোতে প্রাকৃতিক চিনি রয়েছে। কোন ফলে কতটা সুগার রয়েছে সে সম্পর্কে জেনে নিন-

এক কাপ পরিমাণ আঙ্গুর ফলে ২৩ গ্রাম সুগার থাকে। তাই ডায়বেটিস রোগীরা আঙ্গুর খাওয়ার আগে সুগারের কথা মনে রেখে পরিমিত মাত্রায় খেতে হবে। আঙ্গুরের প্রচুর উপকারিতা রয়েছে। আঙ্গুরের মধ্যে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে যা শরীরের জন্য খুবই উপকারি। তাই আঙ্গুর অবশ্যই খাবেন। কিন্তু পরিমান মতো খেতে হবে।

চেরী ফল খুবই সুস্বাদু ও ছোট একটি ফল। এক কাপ চেরী ফলে ২০ গ্রাম সুগার থাকে। আবার চেরী ফল ভিটামিন সি ও ফাইবার সমৃদ্ধ। তাই চেরী ফল স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারি। কিন্তু ডায়বেটিস রোগীদের পরিমিত মাত্রায় চেরী ফল খেতে হবে। নাহলে সুগারের মাত্রা বেড়ে যেতে পারে।

আপেল খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারি। কারণ আপেলে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও ডায়োটারী ফাইবার রয়েছে। যা শরীর থেকে ধীরে ধীরে সুগার শোষণ করবে। আপেল হলো শক্তির খুব ভালো উৎস। তাই আপেল খেতেই পারেন। মাঝারি সাইজের একটি আপেলে ১৯ গ্রাম সুগার থাকে। তাই আপেল খেলেও পরিমাণ মতো খেতে হবে।

এক কাপ আনারসে ১৬ গ্রাম সুগার থাকে। তাই ডায়বেটিস রোগীদের আনারস না খওয়াই ভালো। আবার আনারসে ম্যাগনেসিয়াম ও ভিটামিন সি রয়েছে। যা শরীরের জন্য খুবই উপকারি। তাই আনারস খেলেও অল্প পরিমাণে খেতে পারেন।

একটি কলাতে ১৪ গ্রাম সুগার থাকে। তাই ডায়বেটিস রোগীদের কলা খাওয়া ঠিক নয়। কিন্তু কলাতে রয়েছে পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম ও ফাইবার যা শরীরের জন্য খুবই উপকারি। শরীর চর্চার পর পেশীতে টান পড়লে তা রোধ করতে পারে কলা। তাই কলা খেতেই পারেন কিন্তু অল্প পরিমাণে খেতে হবে।

কমলা লেবু শীতকালীন একটি ফল। কিন্তু মোটামুটি সব সময়ই পাওয়া যায়। একটি কমলা লেবুতে ১৩ গ্রাম সুগার থাকে। এছাড়াও ভিটামিন এ, সি, ফাইবার, ক্যালসিয়াম ও পটাশিয়াম। শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় ভিটামিন ও খনিজ সরবরাহ করে কমলা লেবু। তাই কমলা লেবু খাবেন না তা নয়। তবে অতিরিক্ত মাত্রায় খাওয়া যাবে না।

গরমে তরমুজ খুবই মজাদার একটি খাবার। এতে ৯০ শতাংশেরও বেশি পানি থাকে। তাই তরমুজ পানির তৃষ্ণা মিটিয়ে থাকে। এক কাপ তরমুচে মাত্র ৯ গ্রাম সুগার থাকে তাই আপনি নিশ্চিন্তে তরমুজ খেতে পারেন। তরমুজ ভিটামিন ও শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় খনিজ সরবরাহ করে থাকে।

এক কাপ পরিমাণ স্ট্রবেরীতে ৭ গ্রাম সুগার থাকে। এছাড়াও স্ট্রাবেরীতে ভিটামিন সি, ফাইবার ও ফলিড এসিড রয়েছে। যা শরীরের জন্য খুবই উপকারি। তাই নিশ্চিন্তে স্ট্রবেরী খেতেই পারেন। যেকোনো ফলই খাওয়ার সময় পরিমিত মাত্রায় খেতে হবে। কখনো অতিরিক্ত খাওয়া যাবে না।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস