প্রস্তুত ৩৭৯ বছর আগের তৈরি ঈদগাহ

ঢাকা, বুধবার   ২৬ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ১২ ১৪২৬,   ২১ শাওয়াল ১৪৪০

প্রস্তুত ৩৭৯ বছর আগের তৈরি ঈদগাহ

সোহেল রহমান ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:৫৩ ৪ জুন ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

দীর্ঘ এক মাসের সিয়াম সাধনার পর দেশবাসী প্রস্তুতি নিচ্ছে মহা আনন্দের মাহেন্দ্রক্ষণ ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায়ে। তারই ধারাবাহিকতায় সাজানো হয়েছে জাতীয় ঈদগাহ থেকে প্রত্যন্ত গ্রামের ঈদ জামাতের মাঠ।

ধানমন্ডির সাতমসজিদ রোডে রয়েছে ৩৭৯ বছর আগে তৈরি ঐতিহ্যবাহী শাহী ঈদগাহ। মুঘল সম্রাটদের সময় করা ঈদগাহে প্রতিবছরের মতো এবারো ধানমন্ডির সর্ববৃহৎ ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এ উপলক্ষ্যে শাহী ঈদগাহে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায়ে প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। মঙ্গলবার চাঁদ দেখার পর মাঠে কার্পেট বিছানোর মাধ্যমে চূড়ান্ত প্রস্তুতি শেষ করা হবে।

শাহী ঈদগাহ ঢাকার ধানমন্ডি থানায় সাত মসজিদ রাস্তার ৩/এ তে অবস্থিত একটি প্রাচীন ধর্মীয় স্থাপনা। এটি বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতর কর্তৃক তালিকাভুক্ত একটি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনা। ১৬৪০ খ্রিষ্টাব্দে বাংলার সুবাদার সম্রাট শাহজাহানের পুত্র শাহ সুজার প্রধান অমাত্য মীর আবুল কাসেম ধানমন্ডির শাহী ঈদগাহ মাঠ প্রতিষ্ঠা করেন। 

ঢাকায় অবস্থিত মুঘল স্থাপত্য নিদর্শনসমূহের অন্যতম এই ঈদগাহ। দীর্ঘদিন অরক্ষিত থাকার পর ১৯৮১ সাল থেকে ঈদগাহটি সংরক্ষণ করছে বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতর। এরপর মাঠটির উন্নয়নকর্ম ও পাশে অবস্থিত শাহী মসজিদের আধুনিক নির্মাণ কাজের পর ২০১৬ সাল থেকে দর্শনার্থী এবং ঈদের নামাজের জন্য সব সময় উন্মুক্ত রাখা হয়েছে শাহী ঈদগাহ মাঠ।

ঈদের জামাতের বিষয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) ১৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাকির হোসেন স্বপনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ধানমন্ডি শাহী ঈদগাহ মাঠটি রক্ষণাবেক্ষণ করেন ধানমন্ডি ঈদগাহ মসজিদ কমিটি। আর সরকারিভাবে প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ দেখাশোনা করে। 

তিনি বলেন, সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে আমরা মাঠের চারপাশের রাস্তা পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্ব পালন করি। তাছাড়া মাঠটি রক্ষণাবেক্ষণ ও ঈদ জামাতের জন্য প্রস্তুত করতে মসজিদ কমিটির সঙ্গে বিশেষ প্রয়োজনে সিটি কর্পোরেশনও সহযোগিতা করে থাকে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এস.আর/এমআরকে