Alexa প্রস্তুত আওয়ামী লীগ, নীরব বিএনপি

ঢাকা, বুধবার   ২১ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৬ ১৪২৬,   ১৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

প্রস্তুত আওয়ামী লীগ, নীরব বিএনপি

 প্রকাশিত: ১৪:২৩ ১০ নভেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৪:৫০ ১০ নভেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

আওয়ামী লীগের দুর্গ হিসেবে খ্যাত নড়াইল-২ আসনের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের হাওয়া বইতে শুরু করেছে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতারা দলের মনোনয়ন লাভের আশায় কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত রাখার পাশাপাশি নিজ নিজ সংসদীয় আসনের বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন, চেয়ারম্যান, মেম্বার ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে মতবিনিময় শুরু করেছেন।

এরইমধ্যে স্ব স্ব দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা বিভিন্ন এলাকায় শোডাউনের পাশাপাশি নিজ নিজ প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন।

এ আসন থেকে মনোনয়নের তালিকায় আলোচনায় রয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট অঙ্গনের উজ্জ্বল নক্ষত্র জাতীয় দলের ওয়ানডে সফল অধিনায়ক নড়াইল এক্সপ্রেস খ্যাত মাশরাফি বিন মর্তুজার নাম। সব মিলিয়ে নড়াইল-২ আসনের সব জায়গায় বইছে নির্বাচনী হাওয়া।

নড়াইল সদর আসন (নড়াইল-২) আসনটি নড়াইল পৌরসভা, সদর উপজেলার আটটি ইউপি, লোহাগড়া পৌরসভা এবং লোহাগড়া উপজেলার ১২টি ইউপি নিয়ে গঠিত। এ আসনে বর্তমানে মোট ভোটার সংখ্যা তিন লাখ ১৭ হাজার ৫শ’ ১১ জন। এরমধ্যে রয়েছে পুরুষ ভোটার এক লাখ ৫৬ হাজার ৮শ’ ৮৭ ও  মহিলা ভোটার এক লাখ ৬০ হাজার ৬শ’ ২৪ জন। 

এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জনসাধারণের মধ্যে জল্পনা-কল্পনা শুরু হয়েছে। সরকারি দলের দুই ডজনেরও বেশি নেতা এ আসনে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে নিজেদের নাম ঘোষণা এবং মনোনয়নের জন্য দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। নির্বাচনী নানা হিসাব-নিকাশের মধ্যেও প্রস্তুতি নিচ্ছেন বিএনপি ও জোট  সমর্থিত নেতারা। সম্ভাব্য প্রার্থীরা বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানে গিয়ে দান খয়রাত করে জানান দিচ্ছেন তাদের প্রার্থীতার কথা।

নেতারা বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে ডিজিটাল ব্যানার টানিয়ে জনগণের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করছেন। আওয়ামী লীগসহ ১৪দলে দুই ডজনের মতো প্রার্থী থাকায় আগামী সংসদ নির্বাচনে যোগ্য প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে এ জোট সমস্যায় পড়বে।

এদিকে এ আসন থেকে মনোনয়নের তালিকায় আলোচনায় রয়েছে মাশরাফি বিন মর্তুজার নাম। এ ক্ষেত্রে বিএনপি সমর্থিত দলীয় প্রার্থী এবং ২০ দলীয় জোটে প্রার্থী কম থাকায় এ জোট একটু সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে।

নড়াইল আওয়ামী লীগের অন্যতম ঘাঁটি বলে বিবেচিত হলেও এখানে দলীয় কোন্দল বহু পুরনো। আওয়ামী লীগসহ এর বিভিন্ন ইউনিটের কমিটি গঠন এবং স্থানীয় সরকার নির্বাচন ও জাতীয় নির্বাচন আসলেই আওয়ামী লীগের গ্রুপিং চাঙ্গা হয়ে ওঠে। সে ক্ষেত্রে যোগ্য প্রার্থীকে মনোনয়ন না দিলে নড়াইল-২ আসনটি আওয়ামী লীগের হাতছাড়া হতে পারে বলে আশংকা রয়েছে।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নড়াইলের এ আসন থেকে আওয়ামী লীগ বরাবরই ভালো ফলাফল করেছে। ৭৩, ৯১, ৯৬, ২০০৮ এবং ২০১৪ সালের সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে জয়লাভ করে তবে ১৪ সালে আওয়ামী লীগের নৌকা নিয়ে জয়লাভ করে ওয়ার্কাস পার্টি নেতা বর্তমান সংসদ সদস্য শেখ হাফিজুর রহমান।

আসনটিতে ৮৬ ও ৮৮ সালে জাতীয় পার্টি এবং ১৯৭৯ এবং ২০০১ উপ-নির্বাচনে বিএনপি জয়লাভ করে। আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী-নির্বাচনে এই আসনে আ.লীগের দুই ডজনেরও বেশি মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতার নাম শোনা যাচ্ছে। তারমধ্যে হেবি ওয়েট প্রার্থীর তালিকায় নাম রয়েছে আ.লীগের কেন্দ্রীয় যুব ও ক্রীড়া উপকমিটির সদস্য বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শিল্পপতি নেতা শেখ আমিনুর রহমান হিমু, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, কেন্দ্রিয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শেখ মো. নুরুজ্জামান, জেলা আ.লীগের সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট আয়ুব আলী, লোহাগড়া উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ ফয়জুল আমীর লিটু, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এস এম আসিফুর রহমান বাপ্পি।

এদিকে আওয়ামী.লীগ থেকে এ আসনে মনোনয়নের তালিকায় আলোচনায় রয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট  জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক নড়াইল এক্সপ্রেস খ্যাত মাশরাফি বিন মর্তুজার নাম। এছাড়া নৌকা প্রতীক নেওয়ার জন্য চেষ্টা করছেন দুই ডজনেরও বেশি অতিথি পাখি হিসেবে পরিচিত হাইব্রিড নেতারা।

বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী হল সাবেক ছাত্রদল নেতা বর্তমান জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নড়াইল সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মনিরুল ইসলাম। সাবেক পৌর মেয়র জেলা বিএনপি নেতা জুলফিকার আলী মণ্ডল, প্রয়াত এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা শরীফ খশরুরজ্জামানের ছেলে বিএনপি নেতা শরীফ কাসাফুদ্দোজা কাফী ও জেলা বিএনপির সাংগাঠনিক ও ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক শাহরিয়ার রিজভী জর্জ।

এনপিপি প্রার্থী: ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক দল এনপিপির কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ মনোনয়ন পাওয়ার আশায় নিজ দলের নেতাকর্মীদের নিয়ে এলাকায় গণসংযোগ চালাচ্ছেন।

১৪দলীয় জোটের সম্ভাব্য প্রার্থী: বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি জেলা শাখার সভাপতি নড়াইল-২ আসনের এমপি অ্যাডভোকেট শেখ হাফিজুর রহমান, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, জেলা জাসদের (ইনু) সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুস ছালাম খান।

জাতীয় পার্টি: জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি  অ্যাডভোকেট ফায়েকুজ্জামান ফিরোজ। আওয়ামী.লীগের কেন্দ্রীয় যুব ও ক্রীড়া উপকমিটির সদস্য বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শিল্পপতি শেখ আমিনুর রহমান হিমু জানান, দলীয় মনোনয়নের ব্যাপারে আশাবাদী তিনি। দল থেকে নৌকা প্রতীক পেলে বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়ে নড়াইলের উন্নয়নে কাজ করবেন। সারা জীবন নড়াইলের সব শ্রেণিপেশার মানুষের পাশে থাকবেন।

ছেলের সংসদ সদস্য প্রার্থী হওয়া প্রসঙ্গে বাবা গোলাম মোর্তজা স্বপন বলেন, মাশরাফি কিম্বা আমরা কখনই নির্বাচন নিয়ে ভাবিনি, আমরা কোথাও আগ্রহ প্রকাশ করিনি। তবে প্রধানমন্ত্রী যদি চায় তার চাওয়া ফেরত দেয়াতো সম্ভব নয়, জানি না মাশরাফি কি করবে।

সাবেক ছাত্রদল নেতা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নড়াইল সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, স্কুল জীবন থেকে আমি বিএনপির রাজনিতির সঙ্গে জড়িত। ৩০ বছরেরও বেশি সময় দলের বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃত্ব দিয়ে নড়াইলের বিএনপিকে শক্তিশালী দল হিসেবে পরিণত করেছি। রাজনীতির কারণে ডর্জন খানেক মামলার আসামি হয়েছি, কারাগারে থেকেছি। বর্তমান সরকারের আমলে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি। সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পেলে নড়াইল-২ আসনটি দলীয় প্রধান বেগম খালেদা জিয়াকে উপহার দিব ইনশাআল্লাহ।

এনপিপির কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান ডক্টর ফরিদুজ্জামান ফরহাদ জানান, আমরা সরকারের কাছে ৭ দফা দাবি জানিয়েছি। আশা করছি সংলাপের মাধ্যমে নির্বাচনী পরিবেশ সৃষ্টি হবে। ২০ দলীয় জোট আমাকে মনোনয়ন দিবে এ আশা রাখি। সুষ্ঠ নির্বাচন হলে নড়াইল-২ আসন থেকে বিপুল ভোটে জয়ী হওয়ার আশা করি।

ডেইলি বাংলাদেশ/

Best Electronics
Best Electronics